কিশোরীকে ধর্ষণ করে কারাগারে বিদ্যুৎ কেন্দ্রের প্রকৌশলী
jugantor
কিশোরীকে ধর্ষণ করে কারাগারে বিদ্যুৎ কেন্দ্রের প্রকৌশলী

  তালতলী (বরগুনা) প্রতিনিধি  

২২ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০১:২৮:৪৬  |  অনলাইন সংস্করণ

বরগুনার তালতলীতে বিয়ের প্রলোভন ১৬ বছরের এক কিশোরীকে ধর্ষণের অভিযোগে শরীফুল ইসলাম নামের এক যুবককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার তাকে আদালতের মাধ্যমে বরগুনা জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

শরীফুল নির্মাণাধীন তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্রের আউট প্রসেসিং প্রকৌশলী হিসেবে কাজ করতেন। ঢাকার গাজীপুর পৌরসভার ১৪নং ওয়ার্ডের পিটি পাড়া এলাকার বাসিন্দা নজরুল ইসলামের ছেলে শরীফুল ইসলাম (৩৫)।

স্থানীয় ও মামলা সূত্রে জানা গেছে, ঢাকার গাজীপুর পৌরসভার ১৪নং ওয়ার্ডের পিটিপাড়া এলাকার বাসিন্দা নজরুল ইসলামের ছেলে শরীফুল ইসলাম (৩৫) মংলার একটি সিমেন্ট কারখানায় চাকরি করার সুবাদে রামপাল এলাকার এক কিশোরীর সঙ্গে দীর্ঘ প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে।

শরীফুল নির্মাণাধীন তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্রের আউট প্রসেসিং প্রকৌশলী হিসেবে চাকরি নেন। পরে তালতলী বন্দরে কবরস্থান রোডে একটি পাকা ভাড়া বাসা নিয়ে ওই কিশোরীকে বিয়ের প্রলোভন দিয়ে নিয়ে আসে এবং সেখানে তার ইচ্ছার বিরুদ্ধে ধর্ষণ করে সে। পরে বিয়ের জন্য বার বার বললেও শরীফুল তালবাহানা করে। ভুক্তভোগী ওই কিশোরী ঘটনাটি গোপনে পাশের বাসায় বললে তারা স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও সংবাদকর্মীদের জানান। তারা ঘটনার সত্যতা জেনে তালতলী থানা পুলিশকে খবর দিলে পুলিশ ওই কিশোরীকে উদ্ধার করে।

ভুক্তভোগী ওই কিশোরী বাদী হয়ে সোমবার রাতে তালতলী থানায় ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন।

তালতলী থানার ওসি কামরুজ্জামান মিয়া জানান, বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে কিশোরীকে ধর্ষণের অভিযোগে অভিযুক্তকে বিচারিক আদালতের মাধ্যমে কারাগারে সোপর্দ করা হয়েছে।

কিশোরীকে ধর্ষণ করে কারাগারে বিদ্যুৎ কেন্দ্রের প্রকৌশলী

 তালতলী (বরগুনা) প্রতিনিধি 
২২ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০১:২৮ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

বরগুনার তালতলীতে বিয়ের প্রলোভন ১৬ বছরের এক কিশোরীকে ধর্ষণের অভিযোগে শরীফুল ইসলাম নামের এক যুবককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার তাকে আদালতের মাধ্যমে বরগুনা জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

শরীফুল নির্মাণাধীন তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্রের আউট প্রসেসিং প্রকৌশলী হিসেবে কাজ করতেন। ঢাকার গাজীপুর পৌরসভার ১৪নং ওয়ার্ডের পিটি পাড়া এলাকার বাসিন্দা নজরুল ইসলামের ছেলে শরীফুল ইসলাম (৩৫)।

স্থানীয় ও মামলা সূত্রে জানা গেছে, ঢাকার গাজীপুর পৌরসভার ১৪নং ওয়ার্ডের পিটিপাড়া এলাকার বাসিন্দা নজরুল ইসলামের ছেলে শরীফুল ইসলাম (৩৫) মংলার একটি সিমেন্ট কারখানায় চাকরি করার সুবাদে রামপাল এলাকার এক কিশোরীর সঙ্গে দীর্ঘ প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে।

শরীফুল নির্মাণাধীন তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্রের আউট প্রসেসিং প্রকৌশলী হিসেবে চাকরি নেন। পরে তালতলী বন্দরে কবরস্থান রোডে একটি পাকা ভাড়া বাসা নিয়ে ওই কিশোরীকে বিয়ের প্রলোভন দিয়ে নিয়ে আসে এবং সেখানে তার ইচ্ছার বিরুদ্ধে ধর্ষণ করে সে। পরে বিয়ের জন্য বার বার বললেও শরীফুল তালবাহানা করে। ভুক্তভোগী ওই কিশোরী ঘটনাটি গোপনে পাশের বাসায় বললে তারা স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও সংবাদকর্মীদের জানান। তারা ঘটনার সত্যতা জেনে তালতলী থানা পুলিশকে খবর দিলে পুলিশ ওই কিশোরীকে উদ্ধার করে।

ভুক্তভোগী ওই কিশোরী বাদী হয়ে সোমবার রাতে তালতলী থানায় ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন।

তালতলী থানার ওসি কামরুজ্জামান মিয়া জানান, বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে কিশোরীকে ধর্ষণের অভিযোগে অভিযুক্তকে বিচারিক আদালতের মাধ্যমে কারাগারে সোপর্দ করা হয়েছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন