জমিতে কীটনাশকযুক্ত মাসকালাই, ৭২ ঘুঘু-কবুতরের মৃত্যু
jugantor
জমিতে কীটনাশকযুক্ত মাসকালাই, ৭২ ঘুঘু-কবুতরের মৃত্যু

  শাহজাদপুর (সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধি  

২২ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৯:০৮:১১  |  অনলাইন সংস্করণ

কবুতর-ঘুঘু

সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর উপজেলায় জমিতে ছিটানো কীটনাশকযুক্ত মাসকালাই খেয়ে ৭২টি ঘুঘু ও কবুতরের মৃত্যু হয়েছে।

এ ঘটনায় মঙ্গলবার বন্যপ্রাণী আইনে থানায় লিখিত অভিযোগ করেছে স্থানীয় বন বিভাগ।

এর আগে সোমবার বিকালে উপজেলার নরিনা গ্রাম থেকে ৬৫টি মৃত ঘুঘু ও সাতটি মৃত কবুতর উদ্ধার করা হয়।

জানা যায়, সোমবার বিকালে ওই জমি, আশপাশের জমি এবং পাশের নদীতে ভাসমান অবস্থায় ৬৫টি মৃত ঘুঘু এবং সাতটি কবুতর উদ্ধার করা হয়। তবে কিছু অসুস্থ ঘুঘু লোকজন নিয়ে গেছে খাওয়ার জন্য।

স্থানীয়ভাবে বন্যপ্রাণী নিয়ে কাজ করা ‘দি বার্ড সেফটি হাউস’-এর চেয়ারম্যান মামুন বিশ্বাস বলেন, উপজেলার নরিনা গ্রামের খেয়াঘাটের উত্তর দিকের একটি জমিতে এক কৃষক মাসকালাই আবাদের জন্য জমিতে বীজ বপন করেছেন। ওই বীজ বন্যপ্রাণীরা খেয়ে ফেললে আবাদে ক্ষতি হবে ভেবে তিনি বীজ বপনের সময় কীটনাশক মেশান। ওই কীটনাশক মেশানো বীজ খেয়েই ঘুঘু ও কবুতর মারা গেছে।

এ বিষয়ে শাহজাদপুর উপজেলা বন বিভাগের প্রতিনিধি রশিদুল হাসান বলেন, বন্যপ্রাণী আইনে পাখি নিধন অপরাধ। মঙ্গলবার দুপুরে এ ঘটনায় থানায় লিখিত অভিযোগ করেছি। আশা করছি ঘটনার তদন্তপূর্বক তারা আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন।

শাহজাদপুর থানার ওসি সাঈদ মাহমুদ বলেন, অভিযোগটি পাওয়ার পর সাধারণ ডাইরিভুক্ত করা হয়েছে। এ ব্যাপারে তদন্ত চলছে।

জমিতে কীটনাশকযুক্ত মাসকালাই, ৭২ ঘুঘু-কবুতরের মৃত্যু

 শাহজাদপুর (সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধি 
২২ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৯:০৮ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ
কবুতর-ঘুঘু
ছবি: সংগৃহীত

সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর উপজেলায় জমিতে ছিটানো কীটনাশকযুক্ত মাসকালাই খেয়ে ৭২টি ঘুঘু ও কবুতরের মৃত্যু হয়েছে।

এ ঘটনায় মঙ্গলবার বন্যপ্রাণী আইনে থানায় লিখিত অভিযোগ করেছে স্থানীয় বন বিভাগ।

এর আগে সোমবার বিকালে উপজেলার নরিনা গ্রাম থেকে ৬৫টি মৃত ঘুঘু ও সাতটি মৃত কবুতর উদ্ধার করা হয়। 

জানা যায়, সোমবার বিকালে ওই জমি, আশপাশের জমি এবং পাশের নদীতে ভাসমান অবস্থায় ৬৫টি মৃত ঘুঘু এবং সাতটি কবুতর উদ্ধার করা হয়। তবে কিছু অসুস্থ ঘুঘু লোকজন নিয়ে গেছে খাওয়ার জন্য।

স্থানীয়ভাবে বন্যপ্রাণী নিয়ে কাজ করা ‘দি বার্ড সেফটি হাউস’-এর চেয়ারম্যান মামুন বিশ্বাস বলেন, উপজেলার নরিনা গ্রামের খেয়াঘাটের উত্তর দিকের একটি জমিতে এক কৃষক মাসকালাই আবাদের জন্য জমিতে বীজ বপন করেছেন। ওই বীজ বন্যপ্রাণীরা খেয়ে ফেললে আবাদে ক্ষতি হবে ভেবে তিনি বীজ বপনের সময় কীটনাশক মেশান। ওই কীটনাশক মেশানো বীজ খেয়েই ঘুঘু ও কবুতর মারা গেছে।

এ বিষয়ে শাহজাদপুর উপজেলা বন বিভাগের প্রতিনিধি রশিদুল হাসান বলেন, বন্যপ্রাণী আইনে পাখি নিধন অপরাধ। মঙ্গলবার দুপুরে এ ঘটনায় থানায় লিখিত অভিযোগ করেছি। আশা করছি ঘটনার তদন্তপূর্বক তারা আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন।   

শাহজাদপুর থানার ওসি সাঈদ মাহমুদ বলেন, অভিযোগটি পাওয়ার পর সাধারণ ডাইরিভুক্ত করা হয়েছে। এ ব্যাপারে তদন্ত চলছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন