স্ত্রীকে কুপিয়ে স্বামীর আত্মহত্যা
jugantor
স্ত্রীকে কুপিয়ে স্বামীর আত্মহত্যা

  নাটোর প্রতিনিধি  

২২ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২২:৩৬:০০  |  অনলাইন সংস্করণ

নাটোরে পারিবাহিক কলহের জেরে বুধবার দুপুরে স্ত্রীকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে জখম করে বিষপানে স্বামী হাসান আলী গাজী আত্মহত্যা করেছেন। আশঙ্কাজনক অবস্থায় স্ত্রী রাশিদা বেগম রাসুকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শী, পুলিশ ও হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, নাটোর সদর উপজেলার ঋষি নওগাঁ গ্রামের কৃষক হাসান আলী গাজীর (৫২) সঙ্গে দীর্ঘদিন থেকেই সাংসারিক নানা কারণে স্ত্রী রাশিদা বেগম রাসুর (৪৪) মনোমালিন্য চলছিল। বুধবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে হাসান আলীর সঙ্গে তার স্ত্রী রাসুর ঝগড়া লাগে।

একপর্যায়ে ক্ষিপ্ত হয়ে হাসান আলী স্ত্রীর মুখ কাপড় দিয়ে বেঁধে ধারালো অস্ত্র দিয়ে এলোপাতাড়ি কোপাতে থাকে। একপর্যায়ে রক্তাক্ত রাশিদা বেগম দৌড়ে পাশের বাড়ির কাছে গিয়ে পড়লে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে নাটোর আধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তি করেন। অবস্থার অবনতি হলে দুপুরে রাশিদা বেগমকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে।

এদিকে বেলা ১২টার দিকে হাসান আলীকে গ্রামের পাশের মাঠের একটি শিমুল গাছের ঔষধি বাগানে অচেতন অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখে এলাকাবাসী পুলিশে খবর দেন। পুলিশ গিয়ে তাকে উদ্ধার করে দুপুর দেড়টার দিকে নাটোর আধুনিক সদর হাসপাতালে এনে ভর্তি করে। তার পাশ থেকে ঘাস মারার একটি বিষের বোতল উদ্ধার করা হয়। চিকিৎসাধীন অবস্থায় দুপুর ২টার দিকে তিন সন্তানের জনক হাসান আলী গাজী মারা যান।

নিহতের ভাতিজা শরিফুল ইসলাম ও বোন রাশিদা খাতুন জানান, নিহতের বড় ছেলে রুবেল বগুড়ায় একটি কীটনাশক কোম্পানিতে ও ছোট ছেলে রায়হান ঢাকায় একটি হোটেলে কাজ করে। তারা দুজনই কর্মস্থলে এবং একমাত্র মেয়ে হাসিনা বেগম বিয়ে হয়ে শশুড় বাড়িতে থাকায় ঘটনার সময় বাড়িতে আর কেউ ছিল না। যার কারণে আজকের ঝগড়ার প্রকৃত কারণ তারা কেউ বলতে পারছেন না।

স্থানীয় হরিশপুর ইউনিয়ন পরিষদের ওয়ার্ড সদস্য আবু সাঈদ বলেছেন, পরিবারটিতে স্বামী-স্ত্রী ছাড়া আর কেউ ছিল না। প্রায় প্রতি দিনই তাদের মধ্যে ঝগড়াঝাটি হতো।

তদন্তকারী পুলিশ কর্মকর্তা নাটোর থানার এসআই এরশাদ আলী বলেছেন, মাঠে অচেতন পড়ে থাকা অবস্থায় হাসান আলীকে তারা উদ্ধার করে এনেছেন। কোনো মানুষই তাদের আজকের ঘটনার কারণ জানাতে পারেনি। তার স্ত্রীর অবস্থা বেশি খারাপ হওয়ায় এখনো পুলিশ এ ঘটনার কোনো কারণ জানতে পারেনি।

নাটোর সদর থানার ওসি মুনসুর রহমান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেছেন, পুলিশ বিষয়টি তদন্ত করছে। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে।

স্ত্রীকে কুপিয়ে স্বামীর আত্মহত্যা

 নাটোর প্রতিনিধি 
২২ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১০:৩৬ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

নাটোরে পারিবাহিক কলহের জেরে বুধবার দুপুরে স্ত্রীকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে জখম করে বিষপানে স্বামী হাসান আলী গাজী আত্মহত্যা করেছেন। আশঙ্কাজনক অবস্থায় স্ত্রী রাশিদা বেগম রাসুকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শী, পুলিশ ও হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, নাটোর সদর উপজেলার ঋষি নওগাঁ গ্রামের কৃষক হাসান আলী গাজীর (৫২) সঙ্গে দীর্ঘদিন থেকেই সাংসারিক নানা কারণে স্ত্রী রাশিদা বেগম রাসুর (৪৪) মনোমালিন্য চলছিল। বুধবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে হাসান আলীর সঙ্গে তার স্ত্রী রাসুর ঝগড়া লাগে।

একপর্যায়ে ক্ষিপ্ত হয়ে হাসান আলী স্ত্রীর মুখ কাপড় দিয়ে বেঁধে ধারালো অস্ত্র দিয়ে এলোপাতাড়ি কোপাতে থাকে। একপর্যায়ে রক্তাক্ত রাশিদা বেগম দৌড়ে পাশের বাড়ির কাছে গিয়ে পড়লে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে নাটোর আধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তি করেন। অবস্থার অবনতি হলে দুপুরে রাশিদা বেগমকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে।

এদিকে বেলা ১২টার দিকে হাসান আলীকে গ্রামের পাশের মাঠের একটি শিমুল গাছের ঔষধি বাগানে অচেতন অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখে এলাকাবাসী পুলিশে খবর দেন। পুলিশ গিয়ে তাকে উদ্ধার করে দুপুর দেড়টার দিকে নাটোর আধুনিক সদর হাসপাতালে এনে ভর্তি করে। তার পাশ থেকে ঘাস মারার একটি বিষের বোতল উদ্ধার করা হয়। চিকিৎসাধীন অবস্থায় দুপুর ২টার দিকে তিন সন্তানের জনক হাসান আলী গাজী মারা যান।

নিহতের ভাতিজা শরিফুল ইসলাম ও বোন রাশিদা খাতুন জানান, নিহতের বড় ছেলে রুবেল বগুড়ায় একটি কীটনাশক কোম্পানিতে ও ছোট ছেলে রায়হান ঢাকায় একটি হোটেলে কাজ করে। তারা দুজনই কর্মস্থলে এবং একমাত্র মেয়ে হাসিনা বেগম বিয়ে হয়ে শশুড় বাড়িতে থাকায় ঘটনার সময় বাড়িতে আর কেউ ছিল না। যার কারণে আজকের ঝগড়ার প্রকৃত কারণ তারা কেউ বলতে পারছেন না।

স্থানীয় হরিশপুর ইউনিয়ন পরিষদের ওয়ার্ড সদস্য আবু সাঈদ বলেছেন, পরিবারটিতে স্বামী-স্ত্রী ছাড়া আর কেউ ছিল না। প্রায় প্রতি দিনই তাদের মধ্যে ঝগড়াঝাটি হতো।

তদন্তকারী পুলিশ কর্মকর্তা নাটোর থানার এসআই এরশাদ আলী বলেছেন, মাঠে অচেতন পড়ে থাকা অবস্থায় হাসান আলীকে তারা উদ্ধার করে এনেছেন। কোনো মানুষই তাদের আজকের ঘটনার কারণ জানাতে পারেনি। তার স্ত্রীর অবস্থা বেশি খারাপ হওয়ায় এখনো পুলিশ এ ঘটনার কোনো কারণ জানতে পারেনি।

নাটোর সদর থানার ওসি মুনসুর রহমান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেছেন, পুলিশ বিষয়টি তদন্ত করছে। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন