এক কাতলের দাম ৩৩ হাজার টাকা
jugantor
এক কাতলের দাম ৩৩ হাজার টাকা

  রাজবাড়ী প্রতিনিধি  

২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৫:০৪:৪৮  |  অনলাইন সংস্করণ

কাতল

রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ উপজেলার দৌলতদিয়া পদ্মা নদীতে জেলের জালে ২০ কেজি ওজনের একটি কাতল মাছ ধরা পড়েছে। মাছটির দাম ধরা হয়েছে ৩৩ হাজার টাকা।

বৃহস্পতিবার ভোরে পদ্মা ও যমুনার মোহনায় জেলে নারাণ হালদারের জালে মাছটি ধরা পড়ে। মাছটি কিনে নেন দৌলতদিয়া ৫ নম্বর ফেরিঘাটের মাছ ব্যবসায়ী সম্রাট শাজাহান মাছটি এক হাজার ৬৫০ টাকা কেজি দরে ৩৩ হাজার টাকা দিয়ে মাছটি কিনে নেন। আড়তদারের দোকানে মাছটি দেখতে স্থানীয় উৎসুক জনতা সেখানে ভিড় করেন।

এ বিষয়ে দৌলতদিয়া ফেরিঘাটের মাছ ব্যবসায়ী সম্রাট শাজাহন জানান, সকালে দৌলতদিয়া থেকে এক হাজার ৬৫০ টাকা কেজি দরে ৩৩ হাজার টাকায় মাছটি কিনে নিয়েছি। এখন মাছটি এক হাজার ৭৫০ টাকা কেজি দরে বিক্রি করার জন্য বড় বড় ব্যবসায়ীর কাছে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করছি।

এ প্রসঙ্গে জেলা মৎস্য কর্মকর্তা মো. রোকনুজ্জামান যুগান্তরকে জানান, পদ্মা নদীর সুস্বাদু পানিতে এখন মাঝেমধ্যেই এ ধরনের বড় মাছ পাওয়া যাচ্ছে। তবে ২০ কেজি ওজনের কাতল মাছ সাধারণত খুব বেশি ধরা পড়ে না বলে জানান ওই কর্মকর্তা।

এক কাতলের দাম ৩৩ হাজার টাকা

 রাজবাড়ী প্রতিনিধি 
২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৩:০৪ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
কাতল
ছবি: যুগান্তর

রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ উপজেলার দৌলতদিয়া পদ্মা নদীতে জেলের জালে ২০ কেজি ওজনের একটি কাতল মাছ ধরা পড়েছে। মাছটির দাম ধরা হয়েছে ৩৩ হাজার টাকা।

বৃহস্পতিবার ভোরে পদ্মা ও যমুনার মোহনায় জেলে নারাণ হালদারের জালে মাছটি ধরা পড়ে। মাছটি কিনে নেন দৌলতদিয়া ৫ নম্বর ফেরিঘাটের মাছ ব্যবসায়ী সম্রাট শাজাহান   মাছটি এক হাজার ৬৫০ টাকা কেজি দরে ৩৩ হাজার টাকা দিয়ে মাছটি কিনে নেন। আড়তদারের দোকানে মাছটি দেখতে স্থানীয় উৎসুক জনতা সেখানে ভিড় করেন।

এ বিষয়ে দৌলতদিয়া ফেরিঘাটের মাছ ব্যবসায়ী সম্রাট শাজাহন জানান, সকালে দৌলতদিয়া থেকে এক হাজার ৬৫০ টাকা কেজি দরে ৩৩ হাজার টাকায় মাছটি কিনে নিয়েছি। এখন মাছটি এক হাজার ৭৫০ টাকা কেজি দরে বিক্রি করার জন্য বড় বড় ব্যবসায়ীর কাছে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করছি।

এ প্রসঙ্গে জেলা মৎস্য কর্মকর্তা মো. রোকনুজ্জামান যুগান্তরকে জানান, পদ্মা নদীর সুস্বাদু পানিতে এখন মাঝেমধ্যেই এ ধরনের বড় মাছ পাওয়া যাচ্ছে। তবে ২০ কেজি ওজনের কাতল মাছ সাধারণত খুব বেশি ধরা পড়ে না বলে জানান ওই কর্মকর্তা।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন