নিজের গায়ে পেট্রোল ঢেলে আগুন দিলেন নারী
jugantor
নিজের গায়ে পেট্রোল ঢেলে আগুন দিলেন নারী

  নেত্রকোনা ও কেন্দুয়া প্রতিনিধি  

২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০০:৫৮:১১  |  অনলাইন সংস্করণ

নেত্রকোনার কেন্দুয়ায় প্রেমের স্বীকৃতি না পেয়ে নিজের গায়ে পেট্রোল ঢেলে আগুন দিয়েছেন স্বামী পরিত্যক্তা (২৭) এক নারী।

বৃহস্পতিবার দুপুরের দিকে ওই উপজেলার সান্দিকোনা ইউনিয়নে আটিগ্রামে দিলু মিয়ার বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।

আহত ওই নারী একই ইউনিয়নের ছেংজানা গ্রামের বাসিন্দা। পেট্রালের আগুনে নারীর মুখমণ্ডল ও দুই হাতসহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে ৩০ শতাংশের বেশি পুড়ে গেছে বলে জানিয়েছেন চিকিৎসক।

পুলিশ ও স্থানীয়দের সূত্রে জানা যায়, আহত ওই নারীর এর আগে একাধিক বিয়ে হয়েছে। সম্প্রতি সান্দিকোনা ইউপির পাইমাস্কা গ্রামের দুলাল মিয়ার ছেলে জামাল মিয়ার সঙ্গে সর্বশেষ বিয়ে হয়। বিয়ের কিছুদিনের মধ্যে দাম্পত্যকলহ দেখা দিলে মামলা-মোকদ্দমায় গড়ায়।

খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) মনিরুল ইসলাম, কেন্দুয়া সার্কেল এএসপির জোনাঈদ আফ্রাদ ও থানার ওসি কাজী শাহ নেওয়াজ।

কেন্দুয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল কর্মকর্তা (আরএমও) সৈয়দ আব্দুল্লাহ গালিব জোবায়ের বলেন, ওই নারীর মুখমণ্ডল, দুই হাতসহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে ৩০ শতাংশের বেশি পুড়ে গেছে। পরে তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

কেন্দুয়া থানার ওসি কাজী শাহ নেওয়াজ বলেন, ঘটনা জানার পরপরই হাসপাতালে গিয়ে ভিকটিমের সঙ্গে কথা বলেছি। দিলু মিয়ার সঙ্গে তার প্রেমের সম্পর্ক ছিল। সম্প্রতি তাদের সম্পর্কের কিছুটা অবনতি ঘটেছে। প্রেমের স্বীকৃত আদায়ের জন্য এই কাণ্ড ঘটিয়েছে ওই নারী। এ ব্যাপারে মামলা করার প্রস্তুতি চলছে বলেও জানান তিনি।

নিজের গায়ে পেট্রোল ঢেলে আগুন দিলেন নারী

 নেত্রকোনা ও কেন্দুয়া প্রতিনিধি 
২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২:৫৮ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

নেত্রকোনার কেন্দুয়ায় প্রেমের স্বীকৃতি না পেয়ে নিজের গায়ে পেট্রোল ঢেলে আগুন দিয়েছেন স্বামী পরিত্যক্তা (২৭) এক নারী।

বৃহস্পতিবার দুপুরের দিকে ওই উপজেলার সান্দিকোনা ইউনিয়নে আটিগ্রামে দিলু মিয়ার বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।

আহত ওই নারী একই ইউনিয়নের ছেংজানা গ্রামের বাসিন্দা। পেট্রালের আগুনে নারীর মুখমণ্ডল ও দুই হাতসহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে ৩০ শতাংশের বেশি পুড়ে গেছে বলে জানিয়েছেন চিকিৎসক।

পুলিশ ও স্থানীয়দের সূত্রে জানা যায়, আহত ওই নারীর এর আগে একাধিক বিয়ে হয়েছে। সম্প্রতি সান্দিকোনা ইউপির পাইমাস্কা গ্রামের দুলাল মিয়ার ছেলে জামাল মিয়ার সঙ্গে সর্বশেষ বিয়ে হয়। বিয়ের কিছুদিনের মধ্যে দাম্পত্যকলহ দেখা দিলে মামলা-মোকদ্দমায় গড়ায়।

খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) মনিরুল ইসলাম, কেন্দুয়া সার্কেল এএসপির জোনাঈদ আফ্রাদ ও থানার ওসি কাজী শাহ নেওয়াজ।

কেন্দুয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল কর্মকর্তা (আরএমও) সৈয়দ আব্দুল্লাহ গালিব জোবায়ের বলেন, ওই নারীর মুখমণ্ডল, দুই হাতসহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে ৩০ শতাংশের বেশি পুড়ে গেছে। পরে তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

কেন্দুয়া থানার ওসি কাজী শাহ নেওয়াজ বলেন, ঘটনা জানার পরপরই হাসপাতালে গিয়ে ভিকটিমের সঙ্গে কথা বলেছি।  দিলু মিয়ার সঙ্গে তার প্রেমের সম্পর্ক ছিল। সম্প্রতি তাদের সম্পর্কের কিছুটা অবনতি ঘটেছে। প্রেমের স্বীকৃত আদায়ের জন্য এই কাণ্ড ঘটিয়েছে ওই নারী। এ ব্যাপারে মামলা করার প্রস্তুতি চলছে বলেও জানান তিনি।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন