নির্বাচনোত্তর সহিংসতায় দুইপক্ষের সংর্ঘষে আহত ২৫
jugantor
নির্বাচনোত্তর সহিংসতায় দুইপক্ষের সংর্ঘষে আহত ২৫

  বাগেরহাট প্রতিনিধি  

২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২২:০৬:২৩  |  অনলাইন সংস্করণ

বাগেরহাটের বিষ্ণুপুর ইউনিয়নের ৯ নং ওয়ার্ডের বিজয়ী ও পরাজিত প্রার্থীর মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনায় অন্তত ২৫ জন আহত হয়েছেন।

শুক্রবার জুমার নামাজ শেষে স্থানীয় শেকড়া জামে মসজিদ থেকে পরাজিত প্রার্থী লতিফ মেম্বারের লোকজন বের হওয়ার পর ওতপেতে থাকা জয়ী আনিস মেম্বারের লোকজন অতর্কিত হামলা চালায়।

এতে উভয়পক্ষের ২৫ জন আহত হন। এদের মধ্যে ২১ জনকে বাগেরহাট সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। গুরুতর জখম বাবুল ফকিরকে (৫৫) উন্নত চিকিৎসার জন্য বিকালে খুলনা মেডিকেলে প্রেরণ করা হয়।

পুলিশ ও ঘটনার সময় প্রতক্ষদর্শী মুসল্লিরা জানান, জুমার নামাজ শেষে বিষ্ণুপুর শেকড়া মসজিদে পরাজিত মেম্বার প্রার্থীর সমর্থক বাবুল ফকির, কামরুল ফকিরের সঙ্গে ৯নং ওয়ার্ডের সদ্য নির্বাচিত মেম্বার আনিস গ্রুপের রবিউল ও বাচ্চু মল্লিক মসজিদের মধ্যেই তর্কে লিপ্ত হন।

একপর্যায়ে উভয় পক্ষ সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে ধারালো অস্ত্র নিয়ে আক্রমণ করে। হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আহতদের মধ্যে রয়েছেন- শেখরা গ্রামের রুবেল মল্লিক, সোহেল শেখ, শওকত শেখ, রাসেল শেখ, রবিউল শেখ, সাইফুল শেখ, মাহতাব মল্লিক, সজিব মোল্লা, কামরুল ফকির, মল্লিক ইমামুল কবির, সোহেল মল্লিক, জাহাঙ্গীর মল্লিক, বাবুল ফকির, তৈয়ব আলী মল্লিক, আলম মল্লিক, মহিউদ্দিন শেখ।

পরাজিত মেম্বার আব্দুল লতিফ জানান, পূর্বপরিকল্পিতভাবেই আনিসুর রহমানের লোকজন ধারালো অস্ত্র নিয়ে মসজিদে জুমার নামাজ পড়তে যাওয়া আমার সমর্থকদের ওপর হামলা করে। তিনি আরও বলেন, বাবুল ফকিরসহ তার পক্ষের ১৩ জন বর্তমানে হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন।

অপরদিকে নির্বাচিত মেম্বার আনিসুর রহমান হামলার বিষয়টি অস্বীকার করে বলেন, মসজিদের মধ্যেই বাবুল ফকির, কামরুল ইশারাত শেখসহ বেশ কয়েকজন আমার লোকজনের ওপর ক্ষিপ্ত হয়ে মারমুখী আচরণ করেন। তখন উভয়পক্ষের মধ্যে হাতাহাতির ঘটনা ঘটেছে।

বাগেরহাট মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কেএম আজিজুর ইসলাম বলেন, জুমার নামাজ শুরু হওয়ার আগে থেকেই মসজিদের সামনে উভয়পক্ষের লোকজনের মধ্যে কথাকাটাকাটি হয়। পরে নামাজের পর উভয়পক্ষ সংঘর্ষে লিপ্ত হয়। এতে উভয়পক্ষের বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন। আহতরা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। পরিস্থিতি এখন স্বাভাবিক রয়েছে।

নির্বাচনোত্তর সহিংসতায় দুইপক্ষের সংর্ঘষে আহত ২৫

 বাগেরহাট প্রতিনিধি 
২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১০:০৬ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

বাগেরহাটের বিষ্ণুপুর ইউনিয়নের ৯ নং ওয়ার্ডের বিজয়ী ও পরাজিত প্রার্থীর মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনায় অন্তত ২৫ জন আহত হয়েছেন।

শুক্রবার জুমার নামাজ শেষে স্থানীয় শেকড়া জামে মসজিদ থেকে পরাজিত প্রার্থী লতিফ মেম্বারের লোকজন বের হওয়ার পর ওতপেতে থাকা জয়ী আনিস মেম্বারের লোকজন অতর্কিত হামলা চালায়। 

এতে উভয়পক্ষের ২৫ জন আহত হন। এদের মধ্যে ২১ জনকে বাগেরহাট সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। গুরুতর জখম বাবুল ফকিরকে (৫৫) উন্নত চিকিৎসার জন্য বিকালে খুলনা মেডিকেলে প্রেরণ করা হয়।

পুলিশ ও ঘটনার সময় প্রতক্ষদর্শী মুসল্লিরা জানান, জুমার নামাজ শেষে বিষ্ণুপুর শেকড়া মসজিদে পরাজিত মেম্বার প্রার্থীর সমর্থক বাবুল ফকির, কামরুল ফকিরের সঙ্গে ৯নং ওয়ার্ডের সদ্য নির্বাচিত মেম্বার আনিস গ্রুপের রবিউল ও বাচ্চু মল্লিক মসজিদের মধ্যেই তর্কে লিপ্ত হন। 

একপর্যায়ে উভয় পক্ষ সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে ধারালো অস্ত্র নিয়ে আক্রমণ করে। হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আহতদের মধ্যে রয়েছেন- শেখরা গ্রামের রুবেল মল্লিক, সোহেল শেখ, শওকত শেখ, রাসেল শেখ, রবিউল শেখ, সাইফুল শেখ, মাহতাব মল্লিক, সজিব মোল্লা, কামরুল ফকির, মল্লিক ইমামুল কবির, সোহেল মল্লিক, জাহাঙ্গীর মল্লিক, বাবুল ফকির, তৈয়ব আলী মল্লিক, আলম মল্লিক, মহিউদ্দিন শেখ।

পরাজিত মেম্বার আব্দুল লতিফ জানান, পূর্বপরিকল্পিতভাবেই আনিসুর রহমানের লোকজন ধারালো অস্ত্র নিয়ে মসজিদে জুমার নামাজ পড়তে যাওয়া আমার সমর্থকদের ওপর হামলা করে। তিনি আরও বলেন, বাবুল ফকিরসহ তার পক্ষের ১৩ জন বর্তমানে হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন। 

অপরদিকে নির্বাচিত মেম্বার আনিসুর রহমান হামলার বিষয়টি অস্বীকার করে বলেন, মসজিদের মধ্যেই বাবুল ফকির, কামরুল ইশারাত শেখসহ বেশ কয়েকজন আমার লোকজনের ওপর ক্ষিপ্ত হয়ে মারমুখী আচরণ করেন। তখন উভয়পক্ষের মধ্যে হাতাহাতির ঘটনা ঘটেছে।  

বাগেরহাট মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কেএম আজিজুর ইসলাম বলেন, জুমার নামাজ শুরু হওয়ার আগে থেকেই মসজিদের সামনে উভয়পক্ষের লোকজনের মধ্যে কথাকাটাকাটি হয়। পরে নামাজের পর উভয়পক্ষ সংঘর্ষে লিপ্ত হয়। এতে উভয়পক্ষের বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন। আহতরা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। পরিস্থিতি এখন স্বাভাবিক রয়েছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও খবর
 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন