পাওনা টাকা চাইতে গিয়ে প্রাণ গেল বৃদ্ধার
jugantor
পাওনা টাকা চাইতে গিয়ে প্রাণ গেল বৃদ্ধার

  বগুড়া ব্যুরো  

২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২২:৪৩:০৫  |  অনলাইন সংস্করণ

বগুড়ার শিবগঞ্জে পাওনা ২০ হাজার টাকা চাইতে গিয়ে দেনাদারের ধাক্কায় মাথায় আঘাত পেয়ে কফিরন বেগম (৬২) নামে এক বৃদ্ধা মারা গেছেন। শুক্রবার দুপুরে উপজেলার কিচক ইউনিয়নের বেংদহ পাতাইর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

সন্ধ্যায় নিহতের ছেলে আজিজুল হক শিবগঞ্জ থানায় চারজনের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন।

আসামিরা হলেন- শিবগঞ্জ উপজেলার বেংদহ পাতাইর গ্রামের হবিবর রহমানের ছেলে আবদুর রাজ্জাক (৩৫), রাজ্জাকের স্ত্রী বানেছা বেগম (২৭), মা ডালিম বিবি (৫২), একই গ্রামের মৃত দিরাজ মোল্লার ছেলে আশরাফ আলী আছাব (৪৫)।

পুলিশ ও এজাহার সূত্র জানায়, কফিরন বেগম শিবগঞ্জ উপজেলার বেংদহ পাতাইর গ্রামের আজমল ফকিরের স্ত্রী। আসামি আবদুর রাজ্জাক প্রায় দু’বছর আগে তার (কফিরন) কাছে ২০ হাজার টাকা ধার নেন। ওই টাকা ফেরত চাইলে তিনি টালবাহানা করতে থাকেন। শুক্রবার দুপুরে বাড়ির কাছে রাজ্জাকের সঙ্গে তার দেখা হয়।

টাকা চাইলে আবদুর রাজ্জাক দুর্ব্যবহার করেন। তখন তাদের মধ্যে বাকবিতণ্ডা শুরু হয়। একপর্যায়ে আসামিরা সবাই একত্রিত হয়ে কফিরন বেগমের সঙ্গে ঝগড়া শুরু করেন। এ সময় আবদুর রাজ্জাক গলা ধরে ধাক্কা দিলে কফিরন ইটের সোলিং করা রাস্তার ওপর পড়ে গিয়ে মাথায় আঘাত পান। এরপর অতিরিক্ত রক্তক্ষণে ঘটনাস্থলেই তিনি মারা যান।

শিবগঞ্জ থানার ওসি সিরাজুল ইসলাম জানান, নিহত কফিরনের মরদেহ বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। মামলা হয়েছে, আসামিদের গ্রেফতারে অভিযান চলছে।

পাওনা টাকা চাইতে গিয়ে প্রাণ গেল বৃদ্ধার

 বগুড়া ব্যুরো 
২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১০:৪৩ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

বগুড়ার শিবগঞ্জে পাওনা ২০ হাজার টাকা চাইতে গিয়ে দেনাদারের ধাক্কায় মাথায় আঘাত পেয়ে কফিরন বেগম (৬২) নামে এক বৃদ্ধা মারা গেছেন। শুক্রবার দুপুরে উপজেলার কিচক ইউনিয়নের বেংদহ পাতাইর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। 

সন্ধ্যায় নিহতের ছেলে আজিজুল হক শিবগঞ্জ থানায় চারজনের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন। 

আসামিরা হলেন- শিবগঞ্জ উপজেলার বেংদহ পাতাইর গ্রামের হবিবর রহমানের ছেলে আবদুর রাজ্জাক (৩৫), রাজ্জাকের স্ত্রী বানেছা বেগম (২৭), মা ডালিম বিবি (৫২), একই গ্রামের মৃত দিরাজ মোল্লার ছেলে আশরাফ আলী আছাব (৪৫)।

পুলিশ ও এজাহার সূত্র জানায়, কফিরন বেগম শিবগঞ্জ উপজেলার বেংদহ পাতাইর গ্রামের আজমল ফকিরের স্ত্রী। আসামি আবদুর রাজ্জাক প্রায় দু’বছর আগে তার (কফিরন) কাছে ২০ হাজার টাকা ধার নেন। ওই টাকা ফেরত চাইলে তিনি টালবাহানা করতে থাকেন। শুক্রবার দুপুরে বাড়ির কাছে রাজ্জাকের সঙ্গে তার দেখা হয়।

টাকা চাইলে আবদুর রাজ্জাক দুর্ব্যবহার করেন। তখন তাদের মধ্যে বাকবিতণ্ডা শুরু হয়। একপর্যায়ে আসামিরা সবাই একত্রিত হয়ে কফিরন বেগমের সঙ্গে ঝগড়া শুরু করেন। এ সময় আবদুর রাজ্জাক গলা ধরে ধাক্কা দিলে কফিরন ইটের সোলিং করা রাস্তার ওপর পড়ে গিয়ে মাথায় আঘাত পান। এরপর অতিরিক্ত রক্তক্ষণে ঘটনাস্থলেই তিনি মারা যান।

শিবগঞ্জ থানার ওসি সিরাজুল ইসলাম জানান, নিহত কফিরনের মরদেহ বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। মামলা হয়েছে, আসামিদের গ্রেফতারে অভিযান চলছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন