বৃদ্ধের লালসার শিকার হয়ে ৫ মাসের অন্তঃসত্ত্বা প্রতিবন্ধী নাতনি
jugantor
বৃদ্ধের লালসার শিকার হয়ে ৫ মাসের অন্তঃসত্ত্বা প্রতিবন্ধী নাতনি

  ধামরাই (ঢাকা) প্রতিনিধি  

২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৯:০২:৩৬  |  অনলাইন সংস্করণ

অন্তঃসত্ত্বা

ঢাকার ধামরাইয়ে বৃদ্ধ নানার বিরুদ্ধে থানায় ধর্ষণ মামলা দায়ের করেছেন বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী নাতনি। নানার লালসার শিকার হয়ে ওই তরুণী ৫ মাসের অন্তঃসত্ত্বা হয়েছেন।

উপজেলার চৌহাট ইউনিয়নের দ্বিমুখা পূর্বপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

পুলিশ ডাক্তারি পরীক্ষা ও ২২ ধারায় জবানবন্দি রেকর্ড করার জন্য হাসপাতাল ও আদালতে পাঠিয়েছে।

এলাকাবাসী ও ভুক্তভোগী পরিবার জানায়, দ্বিমুখা পূর্বপাড়ার মৃত চাঁনমিয়ার ছেলে ছুফুরদ্দিন একই গ্রামের তার মেয়ের ঘরের বাকপ্রতিবন্ধী নাতনিকে ফুসলিয়ে একাধিকবার ধর্ষণ করে। এতে ওই বাকপ্রতিবন্ধী তরুণী অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়েন।

দেহের পরিবর্তন দেখে পরিবারের সদস্যদের সন্দেহ হলে ওই বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী তরুণীকে হাসপাতালে নিয়ে স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হয়। পরীক্ষায় ৫ মাসের অন্তঃসত্ত্বা ধরা পড়ে। এরপর বাড়ি ফিরেই এ ব্যাপারে স্থানীয় মাতবরদের কাছে বিচার প্রার্থনা করেন পরিবারের সদস্যরা।

এ নিয়ে বুধবার রাতে গ্রাম্য সালিশি বৈঠকের আয়োজন করা হয়। এরপরই অভিযুক্ত ও তার লোকজন ৫০ হাজার টাকার বিনিময়ে ঘটনা মীমাংসা করার জন্য চেষ্টা করেন।

ভুক্তভোগী পরিবার এ মীমাংসা না মেনে শুক্রবার রাতে ধামরাই থানায় অভিযুক্তকে সহায়তাকারী এক নারীর বিরুদ্ধে মামলা করেন। পুলিশ সহায়তাকারী নারীকে তার নিজ বাড়ি থেকে গ্রেফতার করে। পুলিশ তাকে আদালতে প্রেরণ করলে আদালত তার জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠিয়েছেন।

বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী তরুণী জানান, তার নানা তাকে বাড়িতে ডেকে বারবার জড়িয়ে ধরে কী যেন করত- এখন তার পেটে বাচ্চা। তিনি ব্যথা পান উল্লেখ করে বলেন, আমি খাইবার পালিনা (পারি না), আমাল (আমার) বমি আহে (আসে)।

এ ব্যাপারে ধামরাই থানার ডিউটি অফিসার উপ-পুলিশ পরিদর্শক মালেকা বেগম বলেন, শুক্রবার রাতে এ ব্যাপারে ভুক্তভোগী বাদী হয়ে থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা দায়ের করেছেন। সহযোগী নারী আসামিকে গ্রেফতার করা হয়েছে। মূল আসামি পলাতক রয়েছে। তাকেও গ্রেফতারের জোর চেষ্টা চলছে।

বৃদ্ধের লালসার শিকার হয়ে ৫ মাসের অন্তঃসত্ত্বা প্রতিবন্ধী নাতনি

 ধামরাই (ঢাকা) প্রতিনিধি 
২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৭:০২ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
অন্তঃসত্ত্বা
প্রতীকী ছবি

ঢাকার ধামরাইয়ে বৃদ্ধ নানার বিরুদ্ধে থানায় ধর্ষণ মামলা দায়ের করেছেন বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী নাতনি। নানার লালসার শিকার হয়ে ওই তরুণী ৫ মাসের অন্তঃসত্ত্বা হয়েছেন।

উপজেলার চৌহাট ইউনিয়নের দ্বিমুখা পূর্বপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

পুলিশ ডাক্তারি পরীক্ষা ও ২২ ধারায় জবানবন্দি রেকর্ড করার জন্য হাসপাতাল ও আদালতে পাঠিয়েছে।

এলাকাবাসী ও ভুক্তভোগী পরিবার জানায়, দ্বিমুখা পূর্বপাড়ার মৃত চাঁনমিয়ার ছেলে ছুফুরদ্দিন একই গ্রামের তার মেয়ের ঘরের বাকপ্রতিবন্ধী নাতনিকে ফুসলিয়ে একাধিকবার ধর্ষণ করে। এতে ওই বাকপ্রতিবন্ধী তরুণী অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়েন।

দেহের পরিবর্তন দেখে পরিবারের সদস্যদের সন্দেহ হলে ওই বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী তরুণীকে হাসপাতালে নিয়ে স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হয়। পরীক্ষায় ৫ মাসের অন্তঃসত্ত্বা ধরা পড়ে। এরপর বাড়ি ফিরেই এ ব্যাপারে স্থানীয় মাতবরদের কাছে বিচার প্রার্থনা করেন পরিবারের সদস্যরা।

এ নিয়ে বুধবার রাতে গ্রাম্য সালিশি বৈঠকের আয়োজন করা হয়। এরপরই অভিযুক্ত ও তার লোকজন ৫০ হাজার টাকার বিনিময়ে ঘটনা মীমাংসা করার জন্য চেষ্টা করেন।

ভুক্তভোগী পরিবার এ মীমাংসা না মেনে শুক্রবার রাতে ধামরাই থানায় অভিযুক্তকে সহায়তাকারী এক নারীর বিরুদ্ধে মামলা করেন। পুলিশ সহায়তাকারী নারীকে তার নিজ বাড়ি থেকে গ্রেফতার করে। পুলিশ তাকে আদালতে প্রেরণ করলে আদালত তার জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠিয়েছেন।

বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী তরুণী জানান, তার নানা তাকে বাড়িতে ডেকে বারবার জড়িয়ে ধরে কী যেন করত- এখন তার পেটে বাচ্চা। তিনি ব্যথা পান উল্লেখ করে বলেন, আমি খাইবার পালিনা (পারি না), আমাল (আমার) বমি আহে (আসে)।

এ ব্যাপারে ধামরাই থানার ডিউটি অফিসার উপ-পুলিশ পরিদর্শক মালেকা বেগম বলেন, শুক্রবার রাতে এ ব্যাপারে ভুক্তভোগী বাদী হয়ে থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা দায়ের করেছেন। সহযোগী নারী আসামিকে গ্রেফতার করা হয়েছে। মূল আসামি পলাতক রয়েছে। তাকেও গ্রেফতারের জোর চেষ্টা চলছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও খবর
 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন