পাওনা টাকা চাওয়ায় বৃদ্ধকে পিটিয়ে জখম
jugantor
পাওনা টাকা চাওয়ায় বৃদ্ধকে পিটিয়ে জখম

  রায়পুর (লক্ষ্মীপুর) প্রতিনিধি  

২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২০:৪৯:৪১  |  অনলাইন সংস্করণ

লক্ষ্মীপুরের রায়পুরে চা দোকানের পাওনা টাকা চাওয়াকে কেন্দ্র করে রশিদ আখন (৭০) নামে এক বৃদ্ধকে পিটিয়ে জখম করেছে জহির আখন (৩০) নামের এক বখাটে।

আহত রশিদ আখন রায়পুর সরকারি হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন। ঘটনাটি ঘটেছে শনিবার দুপুরে উপজেলার দক্ষিণ চরবংশী ইউপির চরকাছিয়া গ্রামের বটতলি এলাকায়।

আহত রশিদ আখন চারকাছিয়া গ্রামের মৃত হাফিজ উদ্দিন আহাম্মদের ছেলে। অভিযুক্ত জহির একই গ্রামের রহিম আখনের ছেলে।

আহত রশিদ আখন বলেন, মোল্লারহাটের বটতলি এলাকায় তাদের একটি চা দোকান রয়েছে। গত এক মাস আগে তার ছেলে চা দোকানদার আল-আমিনের কাছ থেকে বাকিতে ১৫শ টাকা এবং হাওলাত হিসেবে ৫ হাজার টাকা নেয় জহির। শনিবার সকালে জহির ঢাকা থেকে বাড়িতে এসে তাদের দোকানের সামনে আসে। এ সময় পাওনা টাকা চাইতে গেলে আল-আমিন ও তার বৃদ্ধ বাবা রশিদ আখনকে মারধরের হুমকি দেয় জহির।

এ ঘটনার প্রায় ৮ মাস আগে জহিরের স্বজন স্থানীয় মেম্বার ফারুক ও তার ছেলে রুবেলের কাছ থেকে ১৬ হাজার টাকা পাওনা নিয়ে রশিদ আখনসহ তার পরিবারের ৪ জন হামলার শিকার হলে আজও তারা বিচার পাননি। শনিবার দুপুরে মেম্বার ও তার ছেলে রুবেলের নির্দেশে বাড়িতে যাওয়ার সময় বৃদ্ধ রশিদকে হামলা করে পালিয়ে যায় জহির। এ সময় স্থানীয় লোকজন রশিদ আখনকে উদ্ধার করে রায়পুর সরকারি হাসপাতালে ভর্তি করেন। তার মাথায় তিনটি সেলাই দেয়া হয়েছে বলে ডাক্তার জানান।

এ ঘটনায় স্থানীয় ইউপি সদস্য ফারুক হোসেন বলেন, এ ঘটনা সম্পর্কে কিছুই জানি না। কোনো লোক আমাকে জানায়নি। রশিদ আখনের সঙ্গে আগে মারামারি হয়েছে, তা মীমাংসাও হয়েছে। অভিযুক্ত জহির পলাতক থাকায় তার বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।

রায়পুর থানার ওসি আবদুল জলিল বলেন, এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত কোনো ব্যক্তি অভিযোগ করেননি। খোঁজখবর নিয়ে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

পাওনা টাকা চাওয়ায় বৃদ্ধকে পিটিয়ে জখম

 রায়পুর (লক্ষ্মীপুর) প্রতিনিধি 
২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৮:৪৯ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

লক্ষ্মীপুরের রায়পুরে চা দোকানের পাওনা টাকা চাওয়াকে কেন্দ্র করে রশিদ আখন (৭০) নামে এক বৃদ্ধকে পিটিয়ে জখম করেছে জহির আখন (৩০) নামের এক বখাটে। 

আহত রশিদ আখন রায়পুর সরকারি হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন। ঘটনাটি ঘটেছে শনিবার দুপুরে উপজেলার দক্ষিণ চরবংশী ইউপির চরকাছিয়া গ্রামের বটতলি এলাকায়।

আহত রশিদ আখন চারকাছিয়া গ্রামের মৃত হাফিজ উদ্দিন আহাম্মদের ছেলে। অভিযুক্ত জহির একই গ্রামের রহিম আখনের ছেলে।

আহত রশিদ আখন বলেন, মোল্লারহাটের বটতলি এলাকায় তাদের একটি চা দোকান রয়েছে। গত এক মাস আগে তার ছেলে চা দোকানদার আল-আমিনের কাছ থেকে বাকিতে ১৫শ টাকা এবং হাওলাত হিসেবে ৫ হাজার টাকা নেয় জহির। শনিবার সকালে জহির ঢাকা থেকে বাড়িতে এসে তাদের দোকানের সামনে আসে। এ সময় পাওনা টাকা চাইতে গেলে আল-আমিন ও তার বৃদ্ধ বাবা রশিদ আখনকে মারধরের হুমকি দেয় জহির। 

এ ঘটনার প্রায় ৮ মাস আগে জহিরের স্বজন স্থানীয় মেম্বার ফারুক ও তার ছেলে রুবেলের কাছ থেকে ১৬ হাজার টাকা পাওনা নিয়ে রশিদ আখনসহ তার পরিবারের ৪ জন হামলার শিকার হলে আজও তারা বিচার পাননি। শনিবার দুপুরে মেম্বার ও তার ছেলে রুবেলের নির্দেশে বাড়িতে যাওয়ার সময় বৃদ্ধ রশিদকে হামলা করে পালিয়ে যায় জহির। এ সময় স্থানীয় লোকজন রশিদ আখনকে উদ্ধার করে রায়পুর সরকারি হাসপাতালে ভর্তি করেন। তার মাথায় তিনটি সেলাই দেয়া হয়েছে বলে ডাক্তার জানান।

এ ঘটনায় স্থানীয় ইউপি সদস্য ফারুক হোসেন বলেন, এ ঘটনা সম্পর্কে কিছুই জানি না। কোনো লোক আমাকে জানায়নি। রশিদ আখনের সঙ্গে আগে মারামারি হয়েছে, তা মীমাংসাও হয়েছে। অভিযুক্ত জহির পলাতক থাকায় তার বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি। 

রায়পুর থানার ওসি আবদুল জলিল বলেন, এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত কোনো ব্যক্তি অভিযোগ করেননি। খোঁজখবর নিয়ে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন