'দুর্নীতি রুখতে গিয়ে আমি হয়তো কাল নাও থাকতে পারি'
jugantor
'দুর্নীতি রুখতে গিয়ে আমি হয়তো কাল নাও থাকতে পারি'

  বরিশাল ব্যুরো  

২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২১:৫৬:৫৫  |  অনলাইন সংস্করণ

বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন করপোরেশনের (বিআরটিসির) চেয়ারম্যান মো. তাজুল ইসলাম বলেছেন, বিআরটিসির দুর্নীতি দমন করতে আমি অনেক বড় বড় ও কঠিন জায়গায় হাত দিয়েছি। আমি ধরে নিয়েছি এই দুর্নীতি রুখতে গিয়ে আমি হয়তো কাল নাও থাকতে পারি; কিন্তু আমি কোনো কারণে পিছপা হব না।

শনিবার দুপুরে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন করপোরেশন বরিশাল ডিপো কার্যালয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে এক মতবিনিময় অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

বিআরটিসির চেয়ারম্যান তাজুল ইসলাম বলেন, বরিশাল ডিপোর কিছু অনিয়ম আমাদের কাছে অভিযোগ আকারে এসেছে। আমাদের সচিব গত সপ্তাহে বরিশাল ভিজিট করেছেন। তিনি আমাকে কিছু দিকনির্দেশনা দিয়েছেন। তার দিকনির্দেশনার পরিপ্রেক্ষিতে আমি দ্রুত এসেছি।

তিনি আরও বলেন, আমরা অনিয়মের অনুসন্ধান চালাচ্ছি। সবকিছু কাটিয়ে দ্রুত বরিশাল বিআরটিসিকে একটি নতুন রূপ দেব আমরা। ইনশাআল্লাহ বরিশাল বিআরটিসি আর পিছিয়ে পড়বে না। এছাড়া ইতোমধ্যে বরিশালে যেসব অনিয়ম হয়েছে তার জন্য যারা দায়ী তারা ছাড় পাবে না। বিআরটিসিকে আমি একটি আদর্শ প্রতিষ্ঠান হিসেবে দেখেতে চাই। যেখানে খরচের চেয়ে আয় বেশি হবে।

মতবিনিময় সভায় উপস্থিত ছিলেন- বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন করপোরেশনের জেনারেল ম্যানেজার (হিসাব) মো. আমজাদ হোসেন, বরিশাল ডিপোর ম্যানেজার মো. জাহাঙ্গীর আলমসহ ডিপোর কর্মকর্তারা।

'দুর্নীতি রুখতে গিয়ে আমি হয়তো কাল নাও থাকতে পারি'

 বরিশাল ব্যুরো 
২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৯:৫৬ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন করপোরেশনের (বিআরটিসির) চেয়ারম্যান মো. তাজুল ইসলাম বলেছেন, বিআরটিসির দুর্নীতি দমন করতে আমি অনেক বড় বড় ও কঠিন জায়গায় হাত দিয়েছি। আমি ধরে নিয়েছি এই দুর্নীতি রুখতে গিয়ে আমি হয়তো কাল নাও থাকতে পারি; কিন্তু আমি কোনো কারণে পিছপা হব না।

শনিবার দুপুরে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন করপোরেশন বরিশাল ডিপো কার্যালয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে এক মতবিনিময় অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

বিআরটিসির চেয়ারম্যান তাজুল ইসলাম বলেন, বরিশাল ডিপোর কিছু অনিয়ম আমাদের কাছে অভিযোগ আকারে এসেছে। আমাদের সচিব গত সপ্তাহে বরিশাল ভিজিট করেছেন। তিনি আমাকে কিছু দিকনির্দেশনা দিয়েছেন। তার দিকনির্দেশনার পরিপ্রেক্ষিতে আমি দ্রুত এসেছি।

তিনি আরও বলেন, আমরা অনিয়মের অনুসন্ধান চালাচ্ছি। সবকিছু কাটিয়ে দ্রুত বরিশাল বিআরটিসিকে একটি নতুন রূপ দেব আমরা। ইনশাআল্লাহ বরিশাল বিআরটিসি আর পিছিয়ে পড়বে না। এছাড়া ইতোমধ্যে বরিশালে যেসব অনিয়ম হয়েছে তার জন্য যারা দায়ী তারা ছাড় পাবে না। বিআরটিসিকে আমি একটি আদর্শ প্রতিষ্ঠান হিসেবে দেখেতে চাই। যেখানে খরচের চেয়ে আয় বেশি হবে।

মতবিনিময় সভায় উপস্থিত ছিলেন- বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন করপোরেশনের জেনারেল ম্যানেজার (হিসাব) মো. আমজাদ হোসেন, বরিশাল ডিপোর ম্যানেজার মো. জাহাঙ্গীর আলমসহ ডিপোর কর্মকর্তারা।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন