বিশ্ব নদী দিবসে বরিশালে ‘রিভার টক’
jugantor
বিশ্ব নদী দিবসে বরিশালে ‘রিভার টক’

  বরিশাল ব্যুরো  

২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২০:২৭:১০  |  অনলাইন সংস্করণ

বিশ্ব নদী দিবস উপলক্ষে বরিশালে ‘রিভার টক’ এর অয়োজন করেছে ৩৬টি সংগঠন নিয়ে গঠিত বিশ্ব নদী দিবস উদযাপন সম্মিলিত পর্ষদ।

সোমবার সকালে ডিসি ঘাটে বিশ্ব নদী দিবস উদযাপন সম্মিলিত পর্ষদের আহবায়ক বীর মুক্তিযোদ্ধা কেএসএ মহিউদ্দিন মানিকের (বীরপ্রতীক) সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত রিভার টকে প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা প্রশাসক জসীম উদ্দীন হায়দার।

অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, কীর্তনখোলা নদীটি জেলার শায়েস্তাবাদ ইউনিয়নের আড়িয়াল খাঁ নদ থেকে উৎপত্তি। নদীটি ঝালকাঠির সুগন্ধা নদীতে পতিত হয়েছে। ২০১১ সালে পানি উন্নয়ন বোর্ড কর্তৃক প্রকাশিত বাংলাদেশের নদ-নদী বইয়ের ২য় সংস্করণের তথ্য অনুসারে নদীটির দৈর্ঘ্য ২১ কিলোমিটার প্রস্থ ৩২১ মিটার। এ নদীতেই আছে বরিশাল নৌবন্দর; যা বাংলাদেশের ২য় বৃহত্তর নদীবন্দর। এই নদীকে ঘিরেই আমাদের শহর। এই নদী যাতে দূষণ ও দখলের কবলে না পড়ে এ বিষয়ে আমাদের সচেতন থাকতে হবে। এ সময় নদী খাল বাঁচাতে নদীর জীবন্ত সত্তা নিশ্চিতকরণে ১৮ দফা জনদাবি পেশ করা হয়।

নদী খাল দখল দূষণ প্রতিরোধসহ পরিবেশ সুরক্ষায় জনগণের মুখ্য অংশীজনদের করণীয় শীর্ষক অনুষ্ঠানের শুরুতে ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে বক্তব্য রাখেন- এএলআরডি নির্বাহী পরিচালক শামসুল হুদা, বেলার প্রধান নির্বাহী সৈয়দা রেজওয়ানা হাসান, বাপা সহ-সভাপতি ডা. আ. মতিন, ব্রতী প্রধান নির্বাহী শারমিন মুরশিদ।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন- বরিশাল বিআইডব্লিউটিএর যুগ্ম পরিচালক মোস্তাফিজুর রহমান, বরিশাল পরিবেশ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক তোতা মিয়া, সচেতন নাগরিক কমিটি বরিশাল জেলার সভাপতি অধ্যাপক শাহ সাজেদা প্রমুখ।

অনুষ্ঠানে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করে বক্তব্য রাখেন বিশ্ব নদী দিবস উদযাপন সম্মিলিত পর্ষদের সদস্য সচিব রণজিৎ কুমার দত্ত প্রমুখ।

বিশ্ব নদী দিবসে বরিশালে ‘রিভার টক’

 বরিশাল ব্যুরো 
২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৮:২৭ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

বিশ্ব নদী দিবস উপলক্ষে বরিশালে ‘রিভার টক’ এর অয়োজন করেছে ৩৬টি সংগঠন নিয়ে গঠিত বিশ্ব নদী দিবস উদযাপন সম্মিলিত পর্ষদ।

সোমবার সকালে ডিসি ঘাটে বিশ্ব নদী দিবস উদযাপন সম্মিলিত পর্ষদের আহবায়ক বীর মুক্তিযোদ্ধা কেএসএ মহিউদ্দিন মানিকের (বীরপ্রতীক) সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত রিভার টকে প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা প্রশাসক জসীম উদ্দীন হায়দার।

অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, কীর্তনখোলা নদীটি জেলার শায়েস্তাবাদ ইউনিয়নের আড়িয়াল খাঁ নদ থেকে উৎপত্তি। নদীটি ঝালকাঠির সুগন্ধা নদীতে পতিত হয়েছে। ২০১১ সালে পানি উন্নয়ন বোর্ড কর্তৃক প্রকাশিত বাংলাদেশের নদ-নদী বইয়ের ২য় সংস্করণের তথ্য অনুসারে নদীটির দৈর্ঘ্য ২১ কিলোমিটার প্রস্থ ৩২১ মিটার। এ নদীতেই আছে বরিশাল নৌবন্দর; যা বাংলাদেশের ২য় বৃহত্তর নদীবন্দর। এই নদীকে ঘিরেই আমাদের শহর। এই নদী যাতে দূষণ ও দখলের কবলে না পড়ে এ বিষয়ে আমাদের সচেতন থাকতে হবে। এ সময় নদী খাল বাঁচাতে নদীর জীবন্ত সত্তা নিশ্চিতকরণে ১৮ দফা জনদাবি পেশ করা হয়।

নদী খাল দখল দূষণ প্রতিরোধসহ পরিবেশ সুরক্ষায় জনগণের মুখ্য অংশীজনদের করণীয় শীর্ষক অনুষ্ঠানের শুরুতে ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে বক্তব্য রাখেন- এএলআরডি নির্বাহী পরিচালক শামসুল হুদা, বেলার প্রধান নির্বাহী সৈয়দা রেজওয়ানা হাসান, বাপা সহ-সভাপতি ডা. আ. মতিন, ব্রতী প্রধান নির্বাহী শারমিন মুরশিদ।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন- বরিশাল বিআইডব্লিউটিএর যুগ্ম পরিচালক মোস্তাফিজুর রহমান, বরিশাল পরিবেশ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক তোতা মিয়া, সচেতন নাগরিক কমিটি বরিশাল জেলার সভাপতি অধ্যাপক শাহ সাজেদা প্রমুখ।

অনুষ্ঠানে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করে বক্তব্য রাখেন বিশ্ব নদী দিবস উদযাপন সম্মিলিত পর্ষদের সদস্য সচিব রণজিৎ কুমার দত্ত প্রমুখ।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন