বিচ্ছেদের ২৫ বছর পর শ্বশুরবাড়ি গিয়ে লাশ হলেন ফরজান
jugantor
বিচ্ছেদের ২৫ বছর পর শ্বশুরবাড়ি গিয়ে লাশ হলেন ফরজান

  কমলগঞ্জ (মৌলভীবাজার) প্রতিনিধি  

২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২২:৩০:৩২  |  অনলাইন সংস্করণ

মৌলভীবাজার জেলার কমলগঞ্জের পতনঊষারে প্রথম স্ত্রী ছমসুন বেগমের সঙ্গে বিচ্ছেদের প্রায় ২৫ বছর পর শ্বশুরবাড়ি গিয়ে লাশ হলেন ফরজান খান (৬০) নামের এক বৃদ্ধ। বাড়ির পাশে সবজিক্ষেত থেকে বৃদ্ধের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

এ ঘটনায় ২ ছেলেকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য কমলগঞ্জ থানায় নিয়ে আসা হয়েছে।

এলাকাবাসী জানান, কুলাউড়া থানার টিলাগাঁও ইউনিয়নের বিজলি গ্রামের মৃত রশিদ খানের ছেলে ফরজান খানের (৬০) সঙ্গে প্রায় ৩০ বছর পূর্বে পতনঊষারের টিলাগড় গ্রামের ছমসুন বেগমের বিয়ে হয়। স্বামী ফরজান খান চুরি-ডাকাতির সঙ্গে জড়িত থাকার কারণে সংসার জীবনে কলহের সৃষ্টি হয়। এর জেরে বিয়ের ৫ বছরের মাথায় সংসার জীবনের বিচ্ছেদ ঘটে। তাদের সংসারে ৩ সন্তান নিয়ে বাবার বাড়ি পতনঊষারে টিলাগড় গ্রামে চলে যান স্ত্রী।

এদিকে সংসার বিচ্ছেদের পর ফরজান দ্বিতীয় বিয়ে করেন কমলগঞ্জের আদমপুর ইউনিয়নের ছনগাঁও গ্রামে। প্রায়ই সন্তানদের দেখতে প্রথম স্ত্রীর বাড়িতে যেতেন ফরজান। রোববার রাতের কোনো এক সময় তিনি শ্বশুরবাড়ি যান। পরে তাকে মেরে বাড়ির পেছনের ফসলি ক্ষেতের জমিতে তার লাশ ফেলে দেয়া হয়।

২৭ সেপ্টেম্বর সকালে প্রথম স্ত্রী ছমসুন বেগমের বাড়ির পাশের সবজিক্ষেত থেকে ফরজান খানের (৬০) লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। এ সময় মৃত ব্যক্তির গায়ে সাদা গেঞ্জি ও আকাশি রঙের ফুল শার্ট ও লুঙ্গি পরা ছিল। লাশের শরীরের কোথায় আঘাতের আলামত পাওয়া না গেলেও মাথায় এবং গেঞ্জিতে রক্তের দাগ পাওয়া যায়। যার কারণে বৃদ্ধের মৃত্যু নিয়ে রহস্যের সৃষ্টি হয়েছে।

পতনঊষার ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ইঞ্জিনিয়ার তৌফিক আহমেদ বাবু জানান, সকালে সংবাদ পেয়ে পুলিশের সহযোগিতায় সবজিক্ষেত থেকে লাশটি উদ্ধার করা হয়।

শমশেরনগর পুলিশ ফাঁড়ির পরিদর্শক (তদন্ত) মোশাররফ হোসেন জানান, সকালে ৬০ বছর বয়সী বৃদ্ধের লাশ সবজিক্ষেতে পড়ে থাকতে দেখে স্থানীয়রা পুলিশে খবর দেন। পরে ঘটনাস্থলে এসে লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। লাশের পাশ থেকে ধান কাটার কাঁচি, কাপড়ের বেগ, মোবাইল ফোন, নগদ ২০ টাকা ও বিড়ি পাওয়া গেছে। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। ঘটনায় তদন্ত চলছে। তদন্তক্রমে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

কমলগঞ্জ থানার ওসি ইয়ারদৌস হাসান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ঘটনার জন্য ফরজান খানের ছেলে সোহেল (২৫) ও শাহিনকে (২০) জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় আনা হয়েছে।

বিচ্ছেদের ২৫ বছর পর শ্বশুরবাড়ি গিয়ে লাশ হলেন ফরজান

 কমলগঞ্জ (মৌলভীবাজার) প্রতিনিধি 
২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১০:৩০ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

মৌলভীবাজার জেলার কমলগঞ্জের পতনঊষারে প্রথম স্ত্রী ছমসুন বেগমের সঙ্গে বিচ্ছেদের প্রায় ২৫ বছর পর শ্বশুরবাড়ি গিয়ে লাশ হলেন ফরজান খান (৬০) নামের এক বৃদ্ধ। বাড়ির পাশে সবজিক্ষেত থেকে বৃদ্ধের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

এ ঘটনায় ২ ছেলেকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য কমলগঞ্জ থানায় নিয়ে আসা হয়েছে।

এলাকাবাসী জানান, কুলাউড়া থানার টিলাগাঁও ইউনিয়নের বিজলি গ্রামের মৃত রশিদ খানের ছেলে ফরজান খানের (৬০) সঙ্গে প্রায় ৩০ বছর পূর্বে পতনঊষারের টিলাগড় গ্রামের ছমসুন বেগমের বিয়ে হয়। স্বামী ফরজান খান চুরি-ডাকাতির সঙ্গে জড়িত থাকার কারণে সংসার জীবনে কলহের সৃষ্টি হয়। এর জেরে বিয়ের ৫ বছরের মাথায় সংসার জীবনের বিচ্ছেদ ঘটে। তাদের সংসারে ৩ সন্তান নিয়ে বাবার বাড়ি পতনঊষারে টিলাগড় গ্রামে চলে যান স্ত্রী।

এদিকে সংসার বিচ্ছেদের পর ফরজান দ্বিতীয় বিয়ে করেন কমলগঞ্জের আদমপুর ইউনিয়নের ছনগাঁও গ্রামে। প্রায়ই সন্তানদের দেখতে প্রথম স্ত্রীর বাড়িতে যেতেন ফরজান। রোববার রাতের কোনো এক সময় তিনি শ্বশুরবাড়ি যান। পরে তাকে মেরে বাড়ির পেছনের ফসলি ক্ষেতের জমিতে তার লাশ ফেলে দেয়া হয়।

২৭ সেপ্টেম্বর সকালে প্রথম স্ত্রী ছমসুন বেগমের বাড়ির পাশের সবজিক্ষেত থেকে ফরজান খানের (৬০) লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। এ সময় মৃত ব্যক্তির গায়ে সাদা গেঞ্জি ও আকাশি রঙের ফুল শার্ট ও লুঙ্গি পরা ছিল। লাশের শরীরের কোথায় আঘাতের আলামত পাওয়া না গেলেও মাথায় এবং গেঞ্জিতে রক্তের দাগ পাওয়া যায়। যার কারণে বৃদ্ধের মৃত্যু নিয়ে রহস্যের সৃষ্টি হয়েছে।

পতনঊষার ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ইঞ্জিনিয়ার তৌফিক আহমেদ বাবু জানান, সকালে সংবাদ পেয়ে পুলিশের সহযোগিতায় সবজিক্ষেত থেকে লাশটি উদ্ধার করা হয়।

শমশেরনগর পুলিশ ফাঁড়ির পরিদর্শক (তদন্ত) মোশাররফ হোসেন জানান, সকালে ৬০ বছর বয়সী বৃদ্ধের লাশ সবজিক্ষেতে পড়ে থাকতে দেখে স্থানীয়রা পুলিশে খবর দেন। পরে ঘটনাস্থলে এসে লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। লাশের পাশ থেকে ধান কাটার কাঁচি, কাপড়ের বেগ, মোবাইল ফোন, নগদ ২০ টাকা ও বিড়ি পাওয়া গেছে।  লাশ ময়নাতদন্তের জন্য মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। ঘটনায় তদন্ত চলছে। তদন্তক্রমে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

কমলগঞ্জ থানার ওসি ইয়ারদৌস হাসান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ঘটনার জন্য ফরজান খানের ছেলে সোহেল (২৫) ও শাহিনকে (২০) জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় আনা হয়েছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন