ছাত্রীকে অপহরণ-ধর্ষণে যুবকের ৬০ বছরের দণ্ড, জরিমানা ১৭ লাখ
jugantor
ছাত্রীকে অপহরণ-ধর্ষণে যুবকের ৬০ বছরের দণ্ড, জরিমানা ১৭ লাখ

  জয়পুরহাট প্রতিনিধি  

২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৭:২০:৩৬  |  অনলাইন সংস্করণ

জয়পুরহাটের সদর উপজেলার ধারকী বড়াইলপাড়ায় নবম শ্রেণির ছাত্রীকে অপহরণ ও ধর্ষণের মামলায় আব্দুল মোমিন আকন্দ (২৫) নামে এক যুবককে পৃথক দুটি ধারায় ৬০ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। একই সঙ্গে তাকে ১৭ লাখ টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরও ১২ বছরের সশ্রম কারাদণ্ডাদেশ দিয়েছেন জেলা নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল (আদালত)।

মঙ্গলবার দুপুরে জয়পুরহাট জেলা নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মো. রুস্তম আলী জনাকীর্ণ আদালতে এ রায় প্রদান করেন।

আব্দুল মোমিন আকন্দ জেলার জয়পুরহাট সদর উপজেলার বম্বু ইউনিয়নের ধারকী-বড়াইলপাড়ার বাসিন্দা মামুন আকন্দের ছেলে।

মামলার বিবরণীতে জানা গেছে, জয়পুরহাট সদর উপজেলার বম্বু ইউনিয়নের আব্দুল মোমিন আকন্দ নবম শ্রেণির এক ছাত্রীকে দীর্ঘ দিন যাবত প্রেম ও কুপ্রস্তাব দিয়ে আসছিলেন। তাতে সাড়া না দেওয়ায় ২০১৮ সালের ৩ সেপ্টেম্বর বেলা ১১টায় বিদ্যালয় গেটের সামনে থেকে ওই ছাত্রীকে মাইক্রোবাসে তুলে অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে যায় আব্দুল মোমিন আকন্দসহ তার ৬ জন সহযোগী।

পরে অভিযুক্তরা তাকে একাধিক স্থানে নিয়ে গিয়ে জোরপূর্বক ধর্ষণ করেন। এ ঘটনায় নির্যাতিতার (মেয়েটির) বাবা বাদী হয়ে ওই বছরের ৫ সেপ্টেম্বর জয়পুরহাট থানায় ৬ জনের বিরুদ্ধে অপহরণ ও ধর্ষণের মামলা দায়ের করেন। ৩ মাস পর পুলিশ অভিযান চালিয়ে মেয়েটিকে উদ্ধার ও আব্দুল মোমিন আকন্দকে গ্রেফতার করে।

পুলিশ দীর্ঘ তদন্ত শেষে ২০১৮ সালের ৩১ ডিসেম্বর শুধুমাত্র আব্দুল মোমিন আকন্দকে আসামি দেখিয়ে আদালতে চার্জশিট দাখিল করে এবং অপর অভিযুক্তদের মামলা থেকে অব্যাহতি প্রদান করে।

অবশেষে আইনের যাবতীয় প্রক্রিয়া শেষে মঙ্গলবার দুপুরে আদালতের বিচারক মোমিন আকন্দকে অপহরণের মামলায় ৩০ বছর সশ্রম কারাদণ্ড ও ৭ লাখ টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও ৭ বছরের জেল এবং ধর্ষণের মামলায় ৩০ বছর ও ১০ লাখ টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও ৫ বছরের সশ্রম কারাদণ্ডাদেশ দেন।

ছাত্রীকে অপহরণ-ধর্ষণে যুবকের ৬০ বছরের দণ্ড, জরিমানা ১৭ লাখ

 জয়পুরহাট প্রতিনিধি 
২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৫:২০ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

জয়পুরহাটের সদর উপজেলার ধারকী বড়াইলপাড়ায় নবম শ্রেণির ছাত্রীকে অপহরণ ও ধর্ষণের মামলায় আব্দুল মোমিন আকন্দ (২৫) নামে এক যুবককে পৃথক দুটি ধারায় ৬০ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। একই সঙ্গে তাকে ১৭ লাখ টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরও ১২ বছরের সশ্রম কারাদণ্ডাদেশ দিয়েছেন জেলা নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল (আদালত)।

মঙ্গলবার দুপুরে জয়পুরহাট জেলা নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মো. রুস্তম আলী জনাকীর্ণ আদালতে এ রায় প্রদান করেন।

আব্দুল মোমিন আকন্দ জেলার জয়পুরহাট সদর উপজেলার বম্বু ইউনিয়নের ধারকী-বড়াইলপাড়ার বাসিন্দা মামুন আকন্দের ছেলে।

মামলার বিবরণীতে জানা গেছে, জয়পুরহাট সদর উপজেলার বম্বু ইউনিয়নের আব্দুল মোমিন আকন্দ নবম শ্রেণির এক ছাত্রীকে দীর্ঘ দিন যাবত প্রেম ও কুপ্রস্তাব দিয়ে আসছিলেন। তাতে সাড়া না দেওয়ায় ২০১৮ সালের ৩ সেপ্টেম্বর বেলা ১১টায় বিদ্যালয় গেটের সামনে থেকে ওই ছাত্রীকে মাইক্রোবাসে তুলে অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে যায় আব্দুল মোমিন আকন্দসহ তার ৬ জন সহযোগী।

পরে অভিযুক্তরা তাকে একাধিক স্থানে নিয়ে গিয়ে জোরপূর্বক ধর্ষণ করেন। এ ঘটনায় নির্যাতিতার (মেয়েটির) বাবা বাদী হয়ে ওই বছরের ৫ সেপ্টেম্বর জয়পুরহাট থানায় ৬ জনের বিরুদ্ধে অপহরণ ও ধর্ষণের মামলা দায়ের করেন। ৩ মাস পর পুলিশ অভিযান চালিয়ে মেয়েটিকে উদ্ধার ও আব্দুল মোমিন আকন্দকে গ্রেফতার করে।

পুলিশ দীর্ঘ তদন্ত শেষে ২০১৮ সালের ৩১ ডিসেম্বর শুধুমাত্র আব্দুল মোমিন আকন্দকে আসামি দেখিয়ে আদালতে চার্জশিট দাখিল করে এবং অপর অভিযুক্তদের মামলা থেকে অব্যাহতি প্রদান করে।

অবশেষে আইনের যাবতীয় প্রক্রিয়া শেষে মঙ্গলবার দুপুরে আদালতের বিচারক মোমিন আকন্দকে অপহরণের মামলায় ৩০ বছর সশ্রম কারাদণ্ড ও ৭ লাখ টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও ৭ বছরের জেল এবং ধর্ষণের মামলায় ৩০ বছর ও ১০ লাখ টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও ৫ বছরের সশ্রম কারাদণ্ডাদেশ দেন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন