ডুবো জাহাজে ধাক্কা লেগে ট্রলারডুবি
jugantor
ডুবো জাহাজে ধাক্কা লেগে ট্রলারডুবি

  কুয়াকাটা (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি  

২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২০:৩৩:৩৮  |  অনলাইন সংস্করণ

ট্রলারডুবি

ডুবো জাহাজে ধাক্কা লেগে ও পায়রা বন্দরের তৃতীয় বয়া সংলগ্ন উত্তাল সমুদ্রে দুইটি ট্রলারডুবির ঘটনা ঘটেছে। এ দুই ঘটনায় ৪২ জন জেলেকে উদ্ধার করা হয়েছে।

মঙ্গলবার দুপুরে পায়রা বন্দরের তৃতীয় বয়া সংলগ্ন উত্তাল সমুদ্রে ১৭ জেলেসহ এফবি জাহানারা নামে একটি মাছধরা ট্রলার নিমজ্জিত হয়েছে। ওই ট্রলারের মালিক আলীপুর মৎস্য বন্দরের মাসুদ মোল্লা যুগান্তরকে নিশ্চিত করেছেন।

ডুবে যাওয়ার পরপরই অপর একটি মাছধরা ট্রলারের সহায়তায় ১৭ জেলের সবাইকে উদ্ধার করে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় আলীপুরে পৌঁছায়।

ট্রলার মালিক মাসুদ মোল্লা জানান, সোমবার আলীপুর ঘাট থেকে ১৭ জেলেসহ ট্রলারটি ইলিশ শিকারের উদ্দেশ্যে সাগরে যায়। সাগর উত্তাল হয়ে ওঠায় ঘাটে ফেরার সময় মঙ্গলবার দুপুরে সমুদ্রে পায়রা বন্দরের তৃতীয় বয়া সংলগ্ন ট্রলারটি নিমজ্জিত হয়। জেলেদের উদ্ধার করা গেলেও সাগর উত্তাল থাকায় ট্রলারসহ মাছধরার জাল এবং অন্যান্য রসদ কোন কিছুই উদ্ধার করা সম্ভব হয়নি। সাগর শান্ত হলে ট্রলারটি উদ্ধারে ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন বলেও জানান মাসুদ মোল্লা।

এর আগে পায়রা বন্দরের বাইরে দ্বিতীয় বয়া সংলগ্ন গভীর সমুদ্রে ২৫ জেলেসহ অপর একটি মাছধরা ট্রলার ডুবির ঘটনা ঘটে। সোমবার রাতে এ দুর্ঘটনাটি ঘটেছে। এ সময় নিকটবর্তী থাকা অপর একটি মাছধরা ট্রলার ২৫ জেলের সবাইকে উদ্ধার করতে সক্ষম হলেও ট্রলার এবং মাছ শিকারের সরঞ্জাম ও জালসহ অন্যকিছু উদ্ধার করা সম্ভব হয়নি।

মঙ্গলবার দুপুরে মৎস্য বন্দর আলীপুর ঘাটে উদ্ধারকারী ট্রলারটি জেলেদের নিয়ে পৌঁছালে এসব তথ্য জানা যায়। দুর্ঘটনার শিকার হওয়া চট্টগ্রামের বাঁশখালীর এফবি হাজী আনোয়ার নামে ওই ট্রলারের মাঝী (জেলে) মো. হোসেন যুগান্তরকে জানান, রোববার মহিপুর থেকে ইলিশ শিকারের উদ্দেশ্যে ২৫ জেলেকে নিয়ে ট্রলারটি সাগরে যায়। পায়রা বন্দরের বাইরে দ্বিতীয় বয়া বরাবর ট্রলারটি সোমবার রাত ৯টার দিকে জাল ফেলার প্রস্তুতি নিচ্ছিল। এসময় কোনো কিছুর ওপর উঠে যাওয়ার মত একটি বিকট শব্দ হয় এবং ট্রলারের তলা ফেটে গিয়ে মুহূর্তের মধ্যে ট্রলারটি ডুবে যায়। তাদের অনতিদূরে থাকা অপর একটি মাছধরা ট্রলারের জেলেদের বিষয়টি নজরে এলে অল্প সময়ের মধ্যে ভাসমান জেলেদের উদ্ধারে সক্ষম হয়। এরপর ট্রলারটি তীরে নিয়ে আসার প্রচেষ্টা চালান সত্ত্বেও সাগর উত্তাল থাকায় সম্ভব হয়নি বলে জানান।

ট্রলার ডুবির কথা স্বীকার করে মৎস্য বন্দর আলীপুরের (আড়ৎদার) খান ফিসের মালিক আ. রহিম খান দাবি করেন, ২০২০ সালে পায়রা বন্দরের উদ্দেশ্যে চট্টগ্রাম থেকে ছেড়ে আসা একটি কন্টেইনারবাহী জাহাজ পায়রা বন্দরের দ্বিতীয় বয়া সংলগ্ন সমুদ্রে নিমজ্জিত হয়। সেখানে দুর্ঘটনাপ্রবণ এলাকা হিসেবে চিহ্নিত বয়া না থাকায় জেলেরা ভুলক্রমে যাওয়ায় সেখানে ট্রলারটি দুর্ঘটনার কবলে পড়েছে।

ডুবো জাহাজে ধাক্কা লেগে ট্রলারডুবি

 কুয়াকাটা (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি 
২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৮:৩৩ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
ট্রলারডুবি
প্রতীকী ছবি

ডুবো জাহাজে ধাক্কা লেগে ও পায়রা বন্দরের তৃতীয় বয়া সংলগ্ন উত্তাল সমুদ্রে দুইটি ট্রলারডুবির ঘটনা ঘটেছে। এ দুই ঘটনায় ৪২ জন জেলেকে উদ্ধার করা হয়েছে।

মঙ্গলবার দুপুরে পায়রা বন্দরের তৃতীয় বয়া সংলগ্ন উত্তাল সমুদ্রে ১৭ জেলেসহ এফবি জাহানারা নামে একটি মাছধরা ট্রলার নিমজ্জিত হয়েছে। ওই ট্রলারের মালিক আলীপুর মৎস্য বন্দরের মাসুদ মোল্লা যুগান্তরকে নিশ্চিত করেছেন।

ডুবে যাওয়ার পরপরই অপর একটি মাছধরা ট্রলারের সহায়তায় ১৭ জেলের সবাইকে উদ্ধার করে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় আলীপুরে পৌঁছায়।

ট্রলার মালিক মাসুদ মোল্লা জানান, সোমবার আলীপুর ঘাট থেকে ১৭ জেলেসহ ট্রলারটি ইলিশ শিকারের উদ্দেশ্যে সাগরে যায়। সাগর উত্তাল হয়ে ওঠায় ঘাটে ফেরার সময় মঙ্গলবার দুপুরে সমুদ্রে পায়রা বন্দরের তৃতীয় বয়া সংলগ্ন ট্রলারটি নিমজ্জিত হয়। জেলেদের উদ্ধার করা গেলেও সাগর উত্তাল থাকায় ট্রলারসহ মাছধরার জাল এবং অন্যান্য রসদ কোন কিছুই উদ্ধার করা সম্ভব হয়নি। সাগর শান্ত হলে ট্রলারটি উদ্ধারে ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন বলেও জানান মাসুদ মোল্লা।

এর আগে পায়রা বন্দরের বাইরে দ্বিতীয় বয়া সংলগ্ন গভীর সমুদ্রে ২৫ জেলেসহ অপর একটি মাছধরা ট্রলার ডুবির ঘটনা ঘটে। সোমবার রাতে এ দুর্ঘটনাটি ঘটেছে। এ সময় নিকটবর্তী থাকা অপর একটি মাছধরা ট্রলার ২৫ জেলের সবাইকে উদ্ধার করতে সক্ষম হলেও ট্রলার এবং মাছ শিকারের সরঞ্জাম ও জালসহ অন্যকিছু উদ্ধার করা সম্ভব হয়নি।

মঙ্গলবার দুপুরে মৎস্য বন্দর আলীপুর ঘাটে উদ্ধারকারী ট্রলারটি জেলেদের নিয়ে পৌঁছালে এসব তথ্য জানা যায়। দুর্ঘটনার শিকার হওয়া চট্টগ্রামের বাঁশখালীর এফবি হাজী আনোয়ার নামে ওই ট্রলারের মাঝী (জেলে) মো. হোসেন যুগান্তরকে জানান, রোববার মহিপুর থেকে ইলিশ শিকারের উদ্দেশ্যে ২৫ জেলেকে নিয়ে ট্রলারটি সাগরে যায়। পায়রা বন্দরের বাইরে দ্বিতীয় বয়া বরাবর ট্রলারটি সোমবার রাত ৯টার দিকে জাল ফেলার প্রস্তুতি নিচ্ছিল। এসময় কোনো কিছুর ওপর উঠে যাওয়ার মত একটি বিকট শব্দ হয় এবং ট্রলারের তলা ফেটে গিয়ে মুহূর্তের মধ্যে ট্রলারটি ডুবে যায়। তাদের অনতিদূরে থাকা অপর একটি মাছধরা ট্রলারের জেলেদের বিষয়টি নজরে এলে অল্প সময়ের মধ্যে ভাসমান জেলেদের উদ্ধারে সক্ষম হয়। এরপর ট্রলারটি তীরে নিয়ে আসার প্রচেষ্টা চালান সত্ত্বেও সাগর উত্তাল থাকায় সম্ভব হয়নি বলে জানান।

ট্রলার ডুবির কথা স্বীকার করে মৎস্য বন্দর আলীপুরের (আড়ৎদার) খান ফিসের মালিক আ. রহিম খান দাবি করেন, ২০২০ সালে পায়রা বন্দরের উদ্দেশ্যে চট্টগ্রাম থেকে ছেড়ে আসা একটি কন্টেইনারবাহী জাহাজ পায়রা বন্দরের দ্বিতীয় বয়া সংলগ্ন সমুদ্রে নিমজ্জিত হয়। সেখানে দুর্ঘটনাপ্রবণ এলাকা হিসেবে চিহ্নিত বয়া না থাকায় জেলেরা ভুলক্রমে যাওয়ায় সেখানে ট্রলারটি দুর্ঘটনার কবলে পড়েছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন