দৌড়ে এসে দা দিয়ে কুপিয়ে শিশুর মাথা আলাদা করে দিল যুবক
jugantor
দৌড়ে এসে দা দিয়ে কুপিয়ে শিশুর মাথা আলাদা করে দিল যুবক

  হালুয়াঘাট (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি  

২৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০১:৪৯:০৫  |  অনলাইন সংস্করণ

ময়মনসিংহের হালুয়াঘাট উপজেলায় দৌড়ে এসে আট বছরের শিশুকে দা দিয়ে কুপিয়ে মাথা আলাদা করে হত্যা করেছে এক যুবক। বুধবার বিকালে উপজেলার ধুরাইল ইউনিয়নের পূর্বধুরাইল কোদালিয়া খালেরপাড়ে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত শিশুর নাম সুমন মিয়া (৮)। সে পূর্বধুরাইল গ্রামের জুয়েল মিয়ার ছেলে। সে স্থানীয় একটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রথম শ্রেণিতে পড়ত।

এ ঘটনায় পুলিশ হত্যকারী শরিফ মিয়াকে আটক করেছে। সে একই এলাকার শাহজাহানের পুত্র। ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত দা জব্দ করেছে। লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

এলাকাবাসী ও পরিবার সূত্রে জানা গেছে, নিহত সুমন এবং তার সহপাঠী খালেরপাড়ে বিকালে খেলতে যায়। এ সময় হঠাৎ হত্যাকারী শরীফ দৌড়ে এসে সুমনকে পানিতে ফেলে দেয়। পরে আবার পানি থেকে উঁচু স্থানে তুলে ফের দা দিয়ে কুপিয়ে শরীর থেকে মাথা আলাদা করে ফেলে বাড়ি চলে যায়।

সঙ্গে থাকা তার সহপাঠী জুনাইদ ভয়ে দৌড়ে বাড়ি চলে যায়। পরে এলাকাবাসী টের পেয়ে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানকে জানান।

স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান মো. ওয়ারিছ উদ্দিন সুমন বলেন, আমি খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যাই। পরে এলকাবাসীর সহযোগিতায় হত্যাকারীকে পুলিশের হাতে তুলে দিই। আমি এ হত্যকাণ্ডের সুষ্ঠু বিচার প্রত্যাশা করি।

হালুয়াঘাট থানার ওসি মো. শাহিনুজ্জামান খান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, এলাকাবাসীর সহযোগিতায় আমরা হত্যাকারীকে আটক করেছি।

দৌড়ে এসে দা দিয়ে কুপিয়ে শিশুর মাথা আলাদা করে দিল যুবক

 হালুয়াঘাট (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি 
২৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০১:৪৯ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ময়মনসিংহের হালুয়াঘাট উপজেলায় দৌড়ে এসে আট বছরের শিশুকে দা দিয়ে কুপিয়ে মাথা আলাদা করে হত্যা করেছে এক যুবক। বুধবার বিকালে উপজেলার ধুরাইল ইউনিয়নের পূর্বধুরাইল কোদালিয়া খালেরপাড়ে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত শিশুর নাম সুমন মিয়া (৮)। সে পূর্বধুরাইল গ্রামের জুয়েল মিয়ার ছেলে। সে স্থানীয় একটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রথম শ্রেণিতে পড়ত।

এ ঘটনায় পুলিশ হত্যকারী শরিফ মিয়াকে আটক করেছে। সে একই এলাকার শাহজাহানের পুত্র। ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত দা জব্দ করেছে। লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

এলাকাবাসী ও পরিবার সূত্রে জানা গেছে, নিহত সুমন এবং তার সহপাঠী খালেরপাড়ে বিকালে খেলতে যায়। এ সময় হঠাৎ হত্যাকারী শরীফ দৌড়ে এসে সুমনকে পানিতে ফেলে দেয়। পরে আবার পানি থেকে উঁচু স্থানে তুলে ফের দা দিয়ে কুপিয়ে শরীর থেকে মাথা আলাদা করে ফেলে বাড়ি চলে যায়।

সঙ্গে থাকা তার সহপাঠী জুনাইদ ভয়ে দৌড়ে বাড়ি চলে যায়। পরে এলাকাবাসী টের পেয়ে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানকে জানান।

স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান মো. ওয়ারিছ উদ্দিন সুমন বলেন, আমি খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যাই। পরে এলকাবাসীর সহযোগিতায় হত্যাকারীকে পুলিশের হাতে তুলে দিই। আমি এ হত্যকাণ্ডের সুষ্ঠু বিচার প্রত্যাশা করি।

হালুয়াঘাট থানার ওসি মো. শাহিনুজ্জামান খান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, এলাকাবাসীর সহযোগিতায় আমরা হত্যাকারীকে আটক করেছি।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন