আ’লীগের সভা মঞ্চে বসা নিয়ে দু’পক্ষের হাতাহাতি, ভাংচুর (ভিডিও)
jugantor
আ’লীগের সভা মঞ্চে বসা নিয়ে দু’পক্ষের হাতাহাতি, ভাংচুর (ভিডিও)

  তানোর (রাজশাহী) প্রতিনিধি  

০২ অক্টোবর ২০২১, ০১:২০:৪৮  |  অনলাইন সংস্করণ

রাজশাহীর তানোরে উপজেলা আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভায় মঞ্চে বসা নিয়ে দুইপক্ষের মধ্যে হাতাহাতি ও ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে।

এ ঘটনায় তানোর উপজেলা চত্বরে অবস্থিত অডিটোরিয়ামে বর্ধিত সভায় তানোর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক প্রভাষক রাকিবুল সরকার পাপুল মঞ্চে বসা নিয়ে এ ঘটনা ঘটে। এ সময় উভয়পক্ষের কমপক্ষে ১০ জন আহত হয়। অর্ধশতাধিক চেয়ার-টেবিল ভাংচুর করা হয়েছে।

আহতরা স্থানীয় বিভিন্ন ফার্মেসীতে প্রাথমিক চিকিৎসা নেয়। কিন্তু এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে কাউকে ভর্তির খবর পাওয়া যায়নি।

প্রত্যক্ষদর্শী ও দলীয় সূত্রে জানা গেছে, আগামী ১১ নভেম্বর তানোর উপজেলার ৭টি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে সামনে রেখে শুক্রবার বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে তানোর উপজেলা পরিষদ অডিটোরিয়ামে বর্ধিত সভার আয়োজন করা হয়। সভায় মঞ্চে বসা নিয়ে তানোর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল্লাহ আল মামুন এবং তানোর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও যুবলীগের সভাপতি লুৎফর হায়দার রশিদ ময়নার সমর্থকদের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও হাতাহাতির ঘটনা ঘটে।

এছাড়াও এক পর্যায়ে চেয়ার ছুড়াছুড়ি ও ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া হয়। এসময় পালাতে গিয়ে উভয়পক্ষের অন্তত ১০ জন আহত হন। পরে তানোর থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হলে উভয়পক্ষের নেতাকর্মী ও সমর্থকরা ছত্রভঙ্গ হয়ে পড়ে।

ঘটনার বেশ কিছুক্ষণ পরে রাজশাহী-১ (তানোর-গোদাগাড়ী) আসনের এমপি ওমর ফারুক চৌধুরী ঘটনাস্থলে এলে শান্তিপূর্ণভাবে বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত হয়। এ সময় জেলা আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দের কাছে তানোর উপজেলার ৭টি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান পদে মনোনয়ন প্রত্যাশীরা তাদের জীবন বৃত্তান্ত জমা দেন।

তানোর উপজেলার আসন্ন ৭টি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে ঘিরে আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশীরা নিজে উপস্থিত হয়ে জেলা কমিটির নিকট বায়োডাটা শুক্রবার জমা দেওয়ার দিন ধার্য ছিল। সেই সুবাদে ৭টি ইউপিতে মোট ৩১ জন চেয়ারম্যান পদের জন্য মনোনয়ন প্রত্যাশী প্রার্থীরা মনোনয়নের জন্য আবেদন করেন।

এদের মধ্যে উপজেলার কলমা ইউপিতে চেয়ারম্যান ৬ জন, বাধাঁইড় ইউপিতে ৫ জন, পাঁচন্দর ইউপিতে ৫ জন, সরনজাই ইউপিতে ৪ জন, তালন্দ ইউপিতে ৬ জন, কামারগাঁ ইউপিতে ৪ জন ও চাঁন্দুড়িয়া ইউপিতে ১ জন জীবন বৃত্তান্ত জমা দেন।

এব্যাপারে তানোর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল্লাহ আল মামুনের মোবাইলে একাধিকবার ফোন দেয়া হলেও রিসিভ হয়নি। পরে তানোর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি গোলাম রাব্বানীর মোবাইলে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, আমাদের মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থীদের তালিকা নেয়া হয়নি। এরপরও তালিকা নিয়ে বর্ধিত সভায় মামুন ও পাপুল যায়। এতে আসন গ্রহণ ও তালিকা নিয়ে তাদের মধ্যে বাক-বিতণ্ডার সৃষ্টি হয়। পরে হাতাহাতিতে মামুন আহত হয়। পরে মামুনের চিকিৎসার জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয় বলে জানান রাব্বানী।

এ বিষয়ে তানোর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও যুবলীগের সভাপতি লুৎফর হায়দার রশিদ ময়না বলেন, মামুন তার লোকজন নিয়ে পরিচ্ছন্ন বর্ধিত সভায় অতর্কিত হামলা করে। এতে তার অনুসারী বেশ কয়েকজন নেতাকর্মী আহত হয়। আহতদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে বলে জানান তিনি।

এ নিয়ে তানোর থানার ওসি রাকিবুল হাসান বলেন, অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে উভয়পক্ষের নেতাকর্মী ও সমর্থকদের পুলিশ ছত্রভঙ্গ করে দেয়। তবে ঘটনাটি নিয়ে কোনো পক্ষের অভিযোগ পাওয়া যায়নি। অভিযোগ পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে ওসি।

আ’লীগের সভা মঞ্চে বসা নিয়ে দু’পক্ষের হাতাহাতি, ভাংচুর (ভিডিও)

 তানোর (রাজশাহী) প্রতিনিধি 
০২ অক্টোবর ২০২১, ০১:২০ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

রাজশাহীর তানোরে উপজেলা আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভায় মঞ্চে বসা নিয়ে দুইপক্ষের মধ্যে হাতাহাতি ও ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে।

এ ঘটনায় তানোর উপজেলা চত্বরে অবস্থিত অডিটোরিয়ামে বর্ধিত সভায় তানোর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক প্রভাষক রাকিবুল সরকার পাপুল মঞ্চে বসা নিয়ে এ ঘটনা ঘটে। এ সময় উভয়পক্ষের কমপক্ষে ১০ জন আহত হয়। অর্ধশতাধিক চেয়ার-টেবিল ভাংচুর করা হয়েছে।

আহতরা স্থানীয় বিভিন্ন ফার্মেসীতে প্রাথমিক চিকিৎসা নেয়। কিন্তু এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে কাউকে ভর্তির খবর পাওয়া যায়নি।

প্রত্যক্ষদর্শী ও দলীয় সূত্রে জানা গেছে, আগামী ১১ নভেম্বর তানোর উপজেলার ৭টি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে সামনে রেখে শুক্রবার বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে তানোর উপজেলা পরিষদ অডিটোরিয়ামে বর্ধিত সভার আয়োজন করা হয়। সভায় মঞ্চে বসা নিয়ে তানোর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল্লাহ আল মামুন এবং তানোর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও যুবলীগের সভাপতি লুৎফর হায়দার রশিদ ময়নার সমর্থকদের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও হাতাহাতির ঘটনা ঘটে।

এছাড়াও এক পর্যায়ে চেয়ার ছুড়াছুড়ি ও ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া হয়। এসময় পালাতে গিয়ে উভয়পক্ষের অন্তত ১০ জন আহত হন। পরে তানোর থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হলে উভয়পক্ষের নেতাকর্মী ও সমর্থকরা ছত্রভঙ্গ হয়ে পড়ে।

ঘটনার বেশ কিছুক্ষণ পরে রাজশাহী-১ (তানোর-গোদাগাড়ী) আসনের এমপি ওমর ফারুক চৌধুরী ঘটনাস্থলে এলে শান্তিপূর্ণভাবে বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত হয়। এ সময় জেলা আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দের কাছে তানোর উপজেলার ৭টি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান পদে মনোনয়ন প্রত্যাশীরা তাদের জীবন বৃত্তান্ত জমা দেন।

তানোর উপজেলার আসন্ন ৭টি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে ঘিরে আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশীরা নিজে উপস্থিত হয়ে জেলা কমিটির নিকট বায়োডাটা শুক্রবার জমা দেওয়ার দিন ধার্য ছিল। সেই সুবাদে ৭টি ইউপিতে মোট ৩১ জন চেয়ারম্যান পদের জন্য মনোনয়ন প্রত্যাশী প্রার্থীরা মনোনয়নের জন্য আবেদন করেন।

এদের মধ্যে উপজেলার কলমা ইউপিতে চেয়ারম্যান ৬ জন, বাধাঁইড় ইউপিতে ৫ জন, পাঁচন্দর ইউপিতে ৫ জন, সরনজাই ইউপিতে ৪ জন, তালন্দ ইউপিতে ৬ জন, কামারগাঁ ইউপিতে ৪ জন ও চাঁন্দুড়িয়া ইউপিতে ১ জন জীবন বৃত্তান্ত জমা দেন।

এব্যাপারে তানোর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল্লাহ আল মামুনের মোবাইলে একাধিকবার ফোন দেয়া হলেও রিসিভ হয়নি। পরে তানোর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি গোলাম রাব্বানীর মোবাইলে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, আমাদের মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থীদের তালিকা নেয়া হয়নি। এরপরও তালিকা নিয়ে বর্ধিত সভায় মামুন ও পাপুল যায়। এতে আসন গ্রহণ ও তালিকা নিয়ে তাদের মধ্যে বাক-বিতণ্ডার সৃষ্টি হয়। পরে হাতাহাতিতে মামুন আহত হয়। পরে মামুনের চিকিৎসার জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয় বলে জানান রাব্বানী।

এ বিষয়ে তানোর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও যুবলীগের সভাপতি লুৎফর হায়দার রশিদ ময়না বলেন, মামুন তার লোকজন নিয়ে পরিচ্ছন্ন বর্ধিত সভায় অতর্কিত হামলা করে। এতে তার অনুসারী বেশ কয়েকজন নেতাকর্মী আহত হয়। আহতদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে বলে জানান তিনি।

এ নিয়ে তানোর থানার ওসি রাকিবুল হাসান বলেন, অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে উভয়পক্ষের নেতাকর্মী ও সমর্থকদের পুলিশ ছত্রভঙ্গ করে দেয়। তবে ঘটনাটি নিয়ে কোনো পক্ষের অভিযোগ পাওয়া যায়নি। অভিযোগ পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে ওসি।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন