ভৈরবে বগি লাইনচ্যুতের ঘটনা তদন্তে ৩ সদস্যের কমিটি
jugantor
ভৈরবে বগি লাইনচ্যুতের ঘটনা তদন্তে ৩ সদস্যের কমিটি

  ভৈরব (কিশোরগঞ্জ) প্রতিনিধি  

০৩ অক্টোবর ২০২১, ১৪:৫৮:০০  |  অনলাইন সংস্করণ

বগি লাইনচ্যুত

কিশোরগঞ্জের ভৈরব উপজেলায় নাসিরাবাদ ট্রেনের একটি বগির চারটি চাকা লাইনচ্যুতের ঘটনা তদন্তে তিন সদস্যের কমিটি গঠন করা হয়েছে।

রোববার সকালে বাংলাদেশ রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ ওই তদন্ত কমিটি গঠন করে। তদন্ত কমিটিকে সাত দিনের মধ্য তদন্ত রিপোর্ট জমা দিতে বলা হয়েছে।

কমিটির আহ্বায়ক হলেন— বাংলাদেশ রেলওয়ের সহকারী পরিবহন কর্মকর্তা মো. আমিরুল ইসলাম। সদস্যরা হলেন— সহকারী যন্ত্র প্রকৌশলী মো. মিজানুর রহমান ও ভৈরব রেলওয়ে প্রকৌশলী শাখার সহকারী প্রকৌশলী জিসান দত্ত।

এর আগে শনিবার দুপুর দেড়টার দিকে ভৈরব- ময়মনসিংহ রেলপথে ভৈরব রেলস্টেশনের আউটারে তাতাঁরকান্দি এলাকায় নাসিরাবাদ ট্রেনের একটি বগির চারটি চাকা লাইনচ্যুত হয়। পরে আখাউড়া থেকে একটি রিলিফ ট্রেন ঘটনাস্থল ভৈরবে এসে তিন ঘণ্টা চেষ্টার পর ট্রেনের চাকা উদ্ধার করে।

এতে ভৈরব-ময়মনসিংহ রেলপথে প্রায় ৫ ঘণ্টা ট্রেন চলাচল বন্ধ ছিল। ট্রেনের বগি উদ্ধারের পর সন্ধ্যা ৭টার দিকে ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক হয়।

তদন্ত কমিটির আহ্বায়ক ও রেলওয়ের সহকারী পরিবহন কর্মকর্তা মো. আমিরুল ইসলাম যুগান্তরকে জানান, ব্রিটিশ আমলে নির্মিত রেললাইনে সংস্কারকাজ নিয়মিত না করা ও লাইনে পাথর কম থাকায় বারবার একই স্থানে দুর্ঘটনা ঘটছে। ইতিপূর্বে আমরা এ ধরনের রিপোর্ট দিয়েছি। গতকালের দুর্ঘটনার রিপোর্ট সাত দিনের মধ্য দাখিল করতে বলা হয়েছে বলে তিনি স্বীকার করেন।

উল্লেখ্য, ভৈরবে একই স্থানে গত ছয় মাসে তিনবার ট্রেন দুর্ঘটনা ঘটে। রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ বারবার তদন্ত কমিটি গঠন করলেও দুর্ঘটনা বন্ধ হচ্ছে না।

ভৈরবে বগি লাইনচ্যুতের ঘটনা তদন্তে ৩ সদস্যের কমিটি

 ভৈরব (কিশোরগঞ্জ) প্রতিনিধি 
০৩ অক্টোবর ২০২১, ০২:৫৮ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
বগি লাইনচ্যুত
ফাইল ছবি

কিশোরগঞ্জের ভৈরব উপজেলায় নাসিরাবাদ ট্রেনের একটি বগির চারটি চাকা লাইনচ্যুতের ঘটনা তদন্তে তিন সদস্যের কমিটি গঠন করা হয়েছে। 

রোববার সকালে বাংলাদেশ রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ ওই তদন্ত কমিটি গঠন করে। তদন্ত কমিটিকে সাত দিনের মধ্য তদন্ত রিপোর্ট জমা দিতে বলা হয়েছে।

কমিটির আহ্বায়ক হলেন— বাংলাদেশ রেলওয়ের সহকারী পরিবহন কর্মকর্তা মো. আমিরুল ইসলাম। সদস্যরা হলেন— সহকারী যন্ত্র প্রকৌশলী মো. মিজানুর রহমান ও ভৈরব রেলওয়ে প্রকৌশলী শাখার সহকারী প্রকৌশলী জিসান দত্ত। 

এর আগে শনিবার দুপুর দেড়টার দিকে ভৈরব- ময়মনসিংহ রেলপথে ভৈরব রেলস্টেশনের আউটারে তাতাঁরকান্দি এলাকায় নাসিরাবাদ ট্রেনের একটি বগির চারটি চাকা লাইনচ্যুত হয়। পরে আখাউড়া থেকে একটি রিলিফ ট্রেন ঘটনাস্থল ভৈরবে এসে তিন ঘণ্টা চেষ্টার পর ট্রেনের চাকা উদ্ধার করে।

এতে ভৈরব-ময়মনসিংহ রেলপথে প্রায় ৫ ঘণ্টা ট্রেন চলাচল বন্ধ ছিল। ট্রেনের বগি উদ্ধারের পর সন্ধ্যা ৭টার দিকে ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক হয়। 

তদন্ত কমিটির আহ্বায়ক ও রেলওয়ের সহকারী পরিবহন কর্মকর্তা মো. আমিরুল ইসলাম যুগান্তরকে জানান, ব্রিটিশ আমলে নির্মিত রেললাইনে সংস্কারকাজ নিয়মিত না করা ও লাইনে পাথর কম থাকায় বারবার একই স্থানে দুর্ঘটনা ঘটছে। ইতিপূর্বে আমরা এ ধরনের রিপোর্ট দিয়েছি। গতকালের দুর্ঘটনার রিপোর্ট সাত দিনের মধ্য দাখিল করতে বলা হয়েছে বলে তিনি স্বীকার করেন।

উল্লেখ্য, ভৈরবে একই স্থানে গত ছয় মাসে তিনবার ট্রেন দুর্ঘটনা ঘটে। রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ বারবার তদন্ত কমিটি গঠন করলেও দুর্ঘটনা বন্ধ হচ্ছে না।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও খবর
 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন