যে কারণে স্ত্রীর পরকীয়া প্রেমিককে পিটিয়ে হত্যা
jugantor
যে কারণে স্ত্রীর পরকীয়া প্রেমিককে পিটিয়ে হত্যা

  রংপুর ব্যুরো  

০৪ অক্টোবর ২০২১, ০০:১৪:৪৮  |  অনলাইন সংস্করণ

রংপুরের পীরগঞ্জ পৌর শহরের সোনাকান্দর মহল্লায় স্ত্রীর সঙ্গে পরকীয়া প্রেমিককে আপত্তিকর অবস্থায় দেখে ফেলে স্বামী আমিনুল ইসলাম (২০)। এ পরিস্থিতিতে ক্ষুব্ধ স্বামী প্রেমিক পারভেজ ইসলামকে (২৫) পিটিয়ে হত্যা গুরুতর আহত করে।

শনিবার রাতে এ ঘটনার পর রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রোববার রাতে পারভেজের মৃত্যু হয়। আহত স্ত্রী বর্তমান পীরগঞ্জ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন আছেন।

নিহত পারভেজ ইসলাম (২৫) পীরগঞ্জ উপজেলা সদরের বালুয়াঘাট গ্রামের রেনু মিস্ত্রির ছেলে। তার পীরগঞ্জ বন্দর বাজারে ইলেকট্রনিক সার্ভিসিংয়ের ব্যবসা ছিল।

পুলিশ ও স্থানীয় গ্রামবাসী জানায়, নিহত পারভেজের সঙ্গে ওই নারীর দীর্ঘদিন ধরে পরকীয়ার সম্পর্ক চলছিল। ঘটনার দিন শনিবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে বাড়িতে কেউ না থাকার সুযোগে পারভেজ ওই গৃহবধূর সঙ্গে একান্ত দেখা করতে যায়। পরে তাদের দুজনকে আপত্তিকর অবস্থায় দেখে ফেলেন ওই গৃহবধূর স্বামী। এ নিয়ে বাগবিতণ্ডার একপর্যায়ে স্ত্রীসহ প্রেমিক পারভেজকে বাঁশের লাঠি দিয়ে পেটাতে থাকেন।

এতে লাঠির আঘাতে পারভেজের মাথা থেঁতলে প্রচুর রক্তক্ষরণ হয়। পরে প্রতিবেশীরা পারভেজকে প্রথমে পীরগঞ্জ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। সেখানে তার অবস্থার অবনতি হলে পরে সেখান থেকে উন্নত চিকিৎসার জন্য রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠালে সেখানে একদিন পরে রোববার রাতে তার মৃত্যু হয়।

বর্তমানে ওই নারী পীরগঞ্জ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। তাদের সংসারে একটি সন্তান রয়েছে। এদিকে ওই ঘটনার পর থেকে গৃহবধূর স্বামী পলাতক রয়েছেন। অন্যদিকে আপত্তিকর অবস্থায় দেখার বিষয়টি নিয়ে তাদের পরিবারের কেউ মুখ খুলছেন না।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন পীরগঞ্জ থানা ওসি সরেস চন্দ্র। তিনি জানান, পরকীয়ার অভিযোগে লাঠির আঘাতে আহত পারভেজের মৃত্যুর হয়েছে। আমরা ঘটনা খতিয়ে দেখছি। ঘটনার পর থেকে স্বামী পলাতক রয়েছেন।

যে কারণে স্ত্রীর পরকীয়া প্রেমিককে পিটিয়ে হত্যা

 রংপুর ব্যুরো 
০৪ অক্টোবর ২০২১, ১২:১৪ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

রংপুরের পীরগঞ্জ পৌর শহরের সোনাকান্দর মহল্লায় স্ত্রীর সঙ্গে পরকীয়া প্রেমিককে আপত্তিকর অবস্থায় দেখে ফেলে স্বামী আমিনুল ইসলাম (২০)। এ পরিস্থিতিতে ক্ষুব্ধ স্বামী প্রেমিক পারভেজ ইসলামকে (২৫) পিটিয়ে হত্যা গুরুতর আহত করে।

শনিবার রাতে এ ঘটনার পর রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রোববার রাতে পারভেজের মৃত্যু হয়। আহত স্ত্রী বর্তমান পীরগঞ্জ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন আছেন।

নিহত পারভেজ ইসলাম (২৫) পীরগঞ্জ উপজেলা সদরের বালুয়াঘাট গ্রামের রেনু মিস্ত্রির ছেলে। তার পীরগঞ্জ বন্দর বাজারে ইলেকট্রনিক সার্ভিসিংয়ের ব্যবসা ছিল।

পুলিশ ও স্থানীয় গ্রামবাসী জানায়, নিহত পারভেজের সঙ্গে ওই নারীর দীর্ঘদিন ধরে পরকীয়ার সম্পর্ক চলছিল। ঘটনার দিন শনিবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে বাড়িতে কেউ না থাকার সুযোগে পারভেজ ওই গৃহবধূর সঙ্গে একান্ত দেখা করতে যায়। পরে তাদের দুজনকে আপত্তিকর অবস্থায় দেখে ফেলেন ওই গৃহবধূর স্বামী। এ নিয়ে বাগবিতণ্ডার একপর্যায়ে স্ত্রীসহ প্রেমিক পারভেজকে বাঁশের লাঠি দিয়ে পেটাতে থাকেন।

এতে লাঠির আঘাতে পারভেজের মাথা থেঁতলে প্রচুর রক্তক্ষরণ হয়। পরে প্রতিবেশীরা পারভেজকে প্রথমে পীরগঞ্জ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। সেখানে তার অবস্থার অবনতি হলে পরে সেখান থেকে উন্নত চিকিৎসার জন্য রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠালে সেখানে একদিন পরে রোববার রাতে তার মৃত্যু হয়। 

বর্তমানে ওই নারী পীরগঞ্জ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। তাদের সংসারে একটি সন্তান রয়েছে। এদিকে ওই  ঘটনার পর থেকে গৃহবধূর স্বামী পলাতক রয়েছেন। অন্যদিকে আপত্তিকর অবস্থায় দেখার বিষয়টি নিয়ে তাদের পরিবারের কেউ মুখ খুলছেন না।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন পীরগঞ্জ থানা ওসি সরেস চন্দ্র। তিনি জানান, পরকীয়ার অভিযোগে লাঠির আঘাতে আহত পারভেজের মৃত্যুর হয়েছে। আমরা ঘটনা খতিয়ে দেখছি। ঘটনার পর থেকে স্বামী পলাতক রয়েছেন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন