বিষপানে মায়ের মৃত্যুর পর চলে গেল ছেলেও
jugantor
বিষপানে মায়ের মৃত্যুর পর চলে গেল ছেলেও

  দিরাই (সুনামগঞ্জ) প্রতিনিধি  

০৫ অক্টোবর ২০২১, ১৫:১১:০৪  |  অনলাইন সংস্করণ

বিষপান

সুনামগঞ্জের শাল্লা উপজেলায় দুই সন্তানকে নিয়ে বিষপানে মা আখিয়া বেগমের (২৮) মৃত্যু পর মারা গেলতার এক ছেলেও।

মঙ্গলবার সকালে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন থেকে তার মৃত্যু হয়।

নিহতরা হলেন— উপজেলার সুলতানপুর গ্রামের শামসুল হকের স্ত্রী আখিয়া বেগম (২৮) ও তার ছেলে রবিউল (৬)। আহত আরেক ছেলের নাম সিয়াম (১০)।

এর আগে সোমবার উপজেলার বাহাড়া ইউনিয়নের সুলতানপুর গ্রামে ঘটনাটি ঘটে।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন শাল্লা থানার ওসি আমিনুল ইসলাম।

তিনি জানান, সোমবার গৃহবধূ আখিয়া বেগম দুই ছেলেকে নিয়ে বিষপান করেন পারিবারিক কলহে। সিলেট নিয়ে যাওয়ার পথে আঁখি আক্তারের মৃত্যু হয়। তার দুই ছেলেকে দিরাই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়। সেখানে অবস্থার অবনতি হওয়ায় তাদের সিলেটে নেওয়া হয়। মঙ্গলবার সকালে সেখানে রবিউলের মৃত্যু হয়।

মৃত আখিয়া বেগমের সুরতহাল প্রতিবেদন প্রস্তুত শেষে ময়নাতদন্তের জন্য সুনামগঞ্জ মর্গে পাঠানো হয়েছে। তবে কেন মা, দুই ছেলে বিষপান করল প্রাথমিকভাবে কোনো কারণ জানা যায়নি। অসুস্থ অন্য ছেলে শঙ্কামুক্ত রয়েছে বলে জানান তিনি।

স্থানীয়রা জানান, সোমবার ভোরে সুলতানপুর গ্রামের শামসুল হক জীবিকার জন্য হাওরে মাছ ধরতে গেলে তার স্ত্রী আখিয়া বেগম, ছেলে সিয়াম (১০) ও রবিউলকে নিয়ে মা আখিয়া বেগম বিষপান করেন। তাদের তিনজনের চিৎকারে পার্শ্ববর্তী বাড়ির লোকজন গিয়ে তাদের শাল্লা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে এলে অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদের সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠান।

শাল্লা থেকে দিরাই যাওয়ার পথে আখিয়া বেগমের মৃত্যু হয় বলে জানান মৃতের আত্মীয়রা।

এ বিষয়ে শাল্লা উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার-পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. সুমন ভূঁইয়া বলেন, সোমবার সকাল ১০টার দিকে তাদের হাসপাতালে নিয়ে এলে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। দিরাই পৌঁছার আগেই আখিয়া বেগম নিস্তেজ হলে তাকে পুনরায় শাল্লা হাসপাতালে নিয়ে এলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

বিষপানে মায়ের মৃত্যুর পর চলে গেল ছেলেও

 দিরাই (সুনামগঞ্জ) প্রতিনিধি 
০৫ অক্টোবর ২০২১, ০৩:১১ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
বিষপান
ফাইল ছবি

সুনামগঞ্জের শাল্লা উপজেলায় দুই সন্তানকে নিয়ে বিষপানে মা আখিয়া বেগমের (২৮) মৃত্যু পর মারা গেল তার এক ছেলেও। 

মঙ্গলবার সকালে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন থেকে তার মৃত্যু হয়। 

নিহতরা হলেন— উপজেলার সুলতানপুর গ্রামের শামসুল হকের স্ত্রী আখিয়া বেগম (২৮) ও তার ছেলে রবিউল (৬)। আহত আরেক ছেলের নাম সিয়াম (১০)। 

এর আগে সোমবার উপজেলার বাহাড়া ইউনিয়নের সুলতানপুর গ্রামে ঘটনাটি ঘটে।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন শাল্লা থানার ওসি আমিনুল ইসলাম।

তিনি জানান, সোমবার গৃহবধূ আখিয়া বেগম দুই ছেলেকে নিয়ে বিষপান করেন পারিবারিক কলহে। সিলেট নিয়ে যাওয়ার পথে আঁখি আক্তারের মৃত্যু হয়। তার দুই ছেলেকে দিরাই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়। সেখানে অবস্থার অবনতি হওয়ায় তাদের সিলেটে নেওয়া হয়। মঙ্গলবার সকালে সেখানে রবিউলের মৃত্যু হয়।

মৃত আখিয়া বেগমের সুরতহাল প্রতিবেদন প্রস্তুত শেষে ময়নাতদন্তের জন্য সুনামগঞ্জ মর্গে পাঠানো হয়েছে। তবে কেন মা, দুই ছেলে বিষপান করল প্রাথমিকভাবে কোনো কারণ জানা যায়নি। অসুস্থ অন্য ছেলে শঙ্কামুক্ত রয়েছে বলে জানান তিনি।

স্থানীয়রা জানান, সোমবার ভোরে সুলতানপুর গ্রামের শামসুল হক জীবিকার জন্য হাওরে মাছ ধরতে গেলে তার স্ত্রী আখিয়া বেগম, ছেলে সিয়াম (১০) ও রবিউলকে নিয়ে মা আখিয়া বেগম বিষপান করেন। তাদের তিনজনের চিৎকারে পার্শ্ববর্তী বাড়ির লোকজন গিয়ে তাদের শাল্লা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে এলে অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদের সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠান। 

শাল্লা থেকে দিরাই যাওয়ার পথে আখিয়া বেগমের মৃত্যু হয় বলে জানান মৃতের আত্মীয়রা। 

এ বিষয়ে শাল্লা উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার-পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. সুমন ভূঁইয়া বলেন, সোমবার সকাল ১০টার দিকে তাদের হাসপাতালে নিয়ে এলে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। দিরাই পৌঁছার আগেই আখিয়া বেগম নিস্তেজ হলে তাকে পুনরায় শাল্লা হাসপাতালে নিয়ে এলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন