৪ বছরের শিশু হত্যায় যাবজ্জীবন কারাদণ্ড
jugantor
৪ বছরের শিশু হত্যায় যাবজ্জীবন কারাদণ্ড

  দিনাজপুর প্রতিনিধি  

০৫ অক্টোবর ২০২১, ২১:১৪:১৭  |  অনলাইন সংস্করণ

৪ বছর বয়সী শিশুকে অপহরণের পর মুক্তিপণ না পেয়ে হত্যার ঘটনায় একজনের যাবজ্জীবন আর দুইজনেক তিন বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালাত।

দিনাজপুরের হাকিমপুরে চার বছর বয়সী এক শিশুকে অপহরণের পর হত্যার দায়ে আব্দুস সালাম ওরফে সামিউলকে (২৫) যাবজ্জীবন এবং তার বাবা-মাকে ৩ বছর করে কারাদণ্ডের আদেশ দিয়েছেন আদালত।

মঙ্গলবার দুপুরে দিনাজপুরের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের সিনিয়র জজ শরীফ উদ্দীন আহমেদ এ রায় ঘোষণা করেন।

রায়ে আসামি হাকিমপুর উপজেলার মুহারাপাড়া গ্রামের আমজাদ হোসেনের ছেলে আব্দুস সালাম ওরফে সামিউলকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের পাশাপাশি ৩০ হাজার টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরও ৩ মাসের কারাদণ্ড এবং সামিউলের বাবা আমজাদ হোসেন ও মা ছানোয়ারা বেগমকে ৩ বছর করে কারাদণ্ড ও ৩ হাজার টাকা করে জরিমানা, অনাদায়ে আরও এক মাস করে কারাদণ্ডের আদেশ দেন বিজ্ঞ বিচারক। এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন দিনাজপুরের কোর্ট ইন্সপেক্টর মো. মনিরুজ্জামান।

আদালত সূত্রে জানা যায়, ২০১৬ সালের ১১ এপ্রিল দিনাজপুরের হাকিমপুর মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ মামুনুর রশিদ আজাদের চার বছর বয়সী ছেলে আবতাহী আল রশিদকে অপহরণ করে মোবাইল ফোনে এসএমএসের মাধ্যমে ৩০ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করে অপহরণকারীরা।

শিশুটির বাবা অধ্যক্ষ মামুনুর রশিদ আজাদ বিষয়টি থানা পুলিশকে অবহিত করেন। পুলিশ তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহার করে আসামি সামিউলকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করে। জিজ্ঞাসাবাদে শিশু অপহরণ করে মুক্তিপণ দাবি ও হত্যা করে লাশ বস্তাবন্দি করে ঘরের ছাদে গুম করে রাখার বিষয়টি পুলিশের কাছে স্বীকার করে আসামি সামিউল।

স্বীকারোক্তি অনুযায়ী বাসার ছাদ থেকে শিশুটির লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনায় মামুনুর রশিদ বাদী হয়ে হাকিমপুর থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করেন।

মামলার সাক্ষ্যপ্রমাণ শেষে আদালতের বিজ্ঞ বিচারক মঙ্গলবার দুপুরে এ রায় ঘোষণা করেন।

৪ বছরের শিশু হত্যায় যাবজ্জীবন কারাদণ্ড

 দিনাজপুর প্রতিনিধি 
০৫ অক্টোবর ২০২১, ০৯:১৪ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

৪ বছর বয়সী শিশুকে অপহরণের পর মুক্তিপণ না পেয়ে হত্যার ঘটনায় একজনের যাবজ্জীবন আর দুইজনেক তিন বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালাত। 

দিনাজপুরের হাকিমপুরে চার বছর বয়সী এক শিশুকে অপহরণের পর হত্যার দায়ে আব্দুস সালাম ওরফে সামিউলকে (২৫) যাবজ্জীবন এবং তার বাবা-মাকে ৩ বছর করে কারাদণ্ডের আদেশ দিয়েছেন আদালত। 

মঙ্গলবার দুপুরে দিনাজপুরের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের সিনিয়র জজ শরীফ উদ্দীন আহমেদ এ রায় ঘোষণা করেন। 

রায়ে আসামি হাকিমপুর উপজেলার মুহারাপাড়া গ্রামের আমজাদ হোসেনের ছেলে আব্দুস সালাম ওরফে সামিউলকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের পাশাপাশি ৩০ হাজার টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরও ৩ মাসের কারাদণ্ড এবং সামিউলের বাবা আমজাদ হোসেন ও মা ছানোয়ারা বেগমকে ৩ বছর করে কারাদণ্ড ও ৩ হাজার টাকা করে জরিমানা, অনাদায়ে আরও এক মাস করে কারাদণ্ডের আদেশ দেন বিজ্ঞ বিচারক। এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন দিনাজপুরের কোর্ট ইন্সপেক্টর মো. মনিরুজ্জামান। 

আদালত সূত্রে জানা যায়, ২০১৬ সালের ১১ এপ্রিল দিনাজপুরের হাকিমপুর মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ মামুনুর রশিদ আজাদের চার বছর বয়সী ছেলে আবতাহী আল রশিদকে অপহরণ করে মোবাইল ফোনে এসএমএসের মাধ্যমে ৩০ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করে অপহরণকারীরা। 

শিশুটির বাবা অধ্যক্ষ মামুনুর রশিদ আজাদ বিষয়টি থানা পুলিশকে অবহিত করেন। পুলিশ তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহার করে আসামি সামিউলকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করে। জিজ্ঞাসাবাদে শিশু অপহরণ করে মুক্তিপণ দাবি ও হত্যা করে লাশ বস্তাবন্দি করে ঘরের ছাদে গুম করে রাখার বিষয়টি পুলিশের কাছে স্বীকার করে আসামি সামিউল।

স্বীকারোক্তি অনুযায়ী বাসার ছাদ থেকে শিশুটির লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনায় মামুনুর রশিদ বাদী হয়ে হাকিমপুর থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করেন। 

মামলার সাক্ষ্যপ্রমাণ শেষে আদালতের বিজ্ঞ বিচারক মঙ্গলবার দুপুরে এ রায় ঘোষণা করেন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন