ভুয়া রাজার সনদে জমি ক্রয়, প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন
jugantor
ভুয়া রাজার সনদে জমি ক্রয়, প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন

  বান্দরবান প্রতিনিধি  

০৭ অক্টোবর ২০২১, ১৯:০১:৪৫  |  অনলাইন সংস্করণ

বান্দরবানের চিম্বুক সড়কের জায়গার চৌহদ্দি পরিবর্তন করে দালালের সহযোগিতায় হলুদিয়া এলাকায় অসহায় পরিবারের রেকর্ডের জায়গা দখলে নেওয়ার অপচেষ্টার প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন করেছে এক অসহায় পরিবার।

বৃহস্পতিবার সকালে বান্দরবান জাফরান রেস্টুরেন্ট মিলনায়তনে এ সংবাদ সম্মেলন করেন অসহায় পরিবারের একমাত্র বড় ছেলে আলী হায়দার বাবলু।

সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, আমার বাবা মারা গেছেন। আমার বাবা রেজাউল করিম ও আমার চাচা হেফজুল করিমের নামে ১৯৭৯-৮০ সালের ৫৮৭নং বন্দোবস্ত মূলে ৫ একর তৃতীয় শ্রেণির জায়গা আছে।

তিনি বলেন, আমার বাবা ২০১৫ সালে দুরারোগ্য ক্যান্সারে আক্রান্ত হলে তার চিকিৎসার জন্য আমি প্রায় সময় ঢাকা ও চট্টগ্রামে অবস্থান করি। সর্বশেষ বাবার উন্নত চিকিৎসার জন্য ৩ মাস ভারতে ছিলাম। এদিকে আমার চাচাও সরকারি চাকরীজীবী হওয়ায় বান্দরবানের বাইরে কর্মস্থলে অবস্থান করেন। এ সুযোগ কাজে লাগিয়ে জান্নাতুল ফেরদৌস নামের এক ভূমিদস্যু স্থানীয় কিছু দালাল চক্রের সহযোগিতায় তার চিম্বুক সড়কের পাশে থাকা ৫৭৮নং হোল্ডিংয়ের সব চৌহদ্দি পরিবর্তন করে আমার বাবা এবং চাচার নামীয় জায়গাটি দখলের চেষ্টা চালায়। আমি এতে বাধা দিলে আমার বিরুদ্ধে অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেটের আদালতে ১৪৪ ধারায় আবেদন করেন। বর্তমানে মামলায় সার্ভেয়ার সরেজমিনে তদন্ত করে একটি তদন্ত প্রতিবেদন দিয়েছেন। সেখানে সার্ভেয়ার উল্লেখ করেন, সংশ্লিষ্ট চেয়ারম্যান ও মেম্বার হতে জানা যায় উক্ত জমি বিবাদীদের রেকর্ডের জমি, নালিশি জমি কোন সময় মুরুং সম্প্রদায়ের দখলে ছিল না।

তিনি আরো বলেন, জান্নাতুল ফেরদৌস পার্বত্য এলাকার বাসিন্দাও নয়। তিনি সুয়ালক ইউনিয়নের কাইচতলী এলাকার মৃত আমির হোসেনকে পিতা বানিয়ে বান্দরবানের বোমাং রাজার সনদ গ্রহণ করেন এবং জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে বোমাং রাজার সনদটি উপস্থাপন করে বাংদো বমের কাছ থেকে ৪.৯০ একর জায়গা ক্রয় করেন। মৃত আমির হোসেন তার পিতা নন তার যাবতীয় প্রমাণাদি বোমাং রাজার কার্যালয়ে উপস্থাপন করলে জান্নাতুল ফেরদৌসের নামে ইস্যুকৃত বোমাং রাজার সদন নং-(৮১৭৫) বাতিল ঘোষণা করেন বোমাং রাজা।

জান্নাতুল ফেরদৌসের প্রতারণার ফলে হয়রানির শিকার হয়ে আসছেন জানিয়ে সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, বর্তমানে আমাকে তিনি নারী নির্যাতন ও ইয়াবা দিয়ে ফাঁসানোর হুমকি দিচ্ছেন। তাই ভবিষ্যতে যেন আর তার দ্বারা কোনো ধরনের হয়রানির শিকার না হই এবং জেলা প্রশাসক যেন জান্নাতুল ফেরদৌসের ৫৭৮নং হোল্ডিংয়ের রেকর্ড বাতিল করে তার জন্য সাংবাদিকদের মাধ্যমে প্রশাসনের সহযোগিতা কামনা করছি।

সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিক ইউনিয়নের আহবায়ক আল-ফয়সাল বিকাশ, বান্দরবান প্রেস ইউনিট সংগঠনের সভাপতি আলাউদ্দিন শাহরিয়ার, জিটিভির প্রতিনিধি মো. ইসহাক, রিপোর্টার্স ইউনিটির সভাপতি মংসানু মারমা, একুশে টিভি ও বাংলা ট্রিবিউনের প্রতিনিধি মো. নজরুল ইসলাম (টিটু), দৈনিক যায়যায়দিনের প্রতিনিধি ক্যপমুই অং মারমাসহ বান্দরবানে কর্মরত সাংবাদিকরা উপস্থিত ছিলেন।

ভুয়া রাজার সনদে জমি ক্রয়, প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন

 বান্দরবান প্রতিনিধি 
০৭ অক্টোবর ২০২১, ০৭:০১ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

বান্দরবানের চিম্বুক সড়কের জায়গার চৌহদ্দি পরিবর্তন করে দালালের সহযোগিতায় হলুদিয়া এলাকায় অসহায় পরিবারের রেকর্ডের জায়গা দখলে নেওয়ার অপচেষ্টার প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন করেছে এক অসহায় পরিবার।

বৃহস্পতিবার সকালে বান্দরবান জাফরান রেস্টুরেন্ট মিলনায়তনে এ সংবাদ সম্মেলন করেন অসহায় পরিবারের একমাত্র বড় ছেলে আলী হায়দার বাবলু।

সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, আমার বাবা মারা গেছেন। আমার বাবা রেজাউল করিম ও আমার চাচা হেফজুল করিমের নামে ১৯৭৯-৮০ সালের ৫৮৭নং বন্দোবস্ত মূলে ৫ একর তৃতীয় শ্রেণির জায়গা আছে।

তিনি বলেন, আমার বাবা ২০১৫ সালে দুরারোগ্য ক্যান্সারে আক্রান্ত হলে তার চিকিৎসার জন্য আমি প্রায় সময় ঢাকা ও চট্টগ্রামে অবস্থান করি। সর্বশেষ বাবার উন্নত চিকিৎসার জন্য ৩ মাস ভারতে ছিলাম। এদিকে আমার চাচাও সরকারি চাকরীজীবী হওয়ায় বান্দরবানের বাইরে কর্মস্থলে অবস্থান করেন। এ সুযোগ কাজে লাগিয়ে জান্নাতুল ফেরদৌস নামের এক ভূমিদস্যু স্থানীয় কিছু দালাল চক্রের সহযোগিতায় তার চিম্বুক সড়কের পাশে থাকা ৫৭৮নং হোল্ডিংয়ের সব চৌহদ্দি পরিবর্তন করে আমার বাবা এবং চাচার নামীয় জায়গাটি দখলের চেষ্টা চালায়। আমি এতে বাধা দিলে আমার বিরুদ্ধে অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেটের আদালতে ১৪৪ ধারায় আবেদন করেন। বর্তমানে মামলায় সার্ভেয়ার সরেজমিনে তদন্ত করে একটি তদন্ত প্রতিবেদন দিয়েছেন। সেখানে সার্ভেয়ার উল্লেখ করেন, সংশ্লিষ্ট চেয়ারম্যান ও মেম্বার হতে জানা যায় উক্ত জমি বিবাদীদের রেকর্ডের জমি, নালিশি জমি কোন সময় মুরুং সম্প্রদায়ের দখলে ছিল না।

তিনি আরো বলেন, জান্নাতুল ফেরদৌস পার্বত্য এলাকার বাসিন্দাও নয়। তিনি সুয়ালক ইউনিয়নের কাইচতলী এলাকার মৃত আমির হোসেনকে পিতা বানিয়ে বান্দরবানের বোমাং রাজার সনদ গ্রহণ করেন এবং জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে বোমাং রাজার সনদটি উপস্থাপন করে বাংদো বমের কাছ থেকে ৪.৯০ একর জায়গা ক্রয় করেন। মৃত আমির হোসেন তার পিতা নন তার যাবতীয় প্রমাণাদি বোমাং রাজার কার্যালয়ে উপস্থাপন করলে জান্নাতুল ফেরদৌসের নামে ইস্যুকৃত বোমাং রাজার সদন নং-(৮১৭৫) বাতিল ঘোষণা করেন বোমাং রাজা।

জান্নাতুল ফেরদৌসের প্রতারণার ফলে হয়রানির শিকার হয়ে আসছেন জানিয়ে সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, বর্তমানে  আমাকে তিনি নারী নির্যাতন ও ইয়াবা দিয়ে ফাঁসানোর হুমকি দিচ্ছেন। তাই ভবিষ্যতে যেন আর তার দ্বারা কোনো ধরনের হয়রানির শিকার না হই এবং জেলা প্রশাসক যেন জান্নাতুল ফেরদৌসের ৫৭৮নং হোল্ডিংয়ের রেকর্ড বাতিল করে তার জন্য সাংবাদিকদের মাধ্যমে প্রশাসনের সহযোগিতা কামনা করছি।

সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিক ইউনিয়নের আহবায়ক আল-ফয়সাল বিকাশ, বান্দরবান প্রেস ইউনিট সংগঠনের সভাপতি আলাউদ্দিন শাহরিয়ার, জিটিভির প্রতিনিধি মো. ইসহাক, রিপোর্টার্স ইউনিটির সভাপতি মংসানু মারমা, একুশে টিভি ও বাংলা ট্রিবিউনের প্রতিনিধি মো. নজরুল ইসলাম (টিটু), দৈনিক যায়যায়দিনের প্রতিনিধি ক্যপমুই অং মারমাসহ বান্দরবানে কর্মরত সাংবাদিকরা উপস্থিত ছিলেন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও খবর
 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন