২২ বছর পর ফিরল হারিয়ে যাওয়া তানজিমা  
jugantor
২২ বছর পর ফিরল হারিয়ে যাওয়া তানজিমা  

  ঈশ্বরগঞ্জ (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি  

০৭ অক্টোবর ২০২১, ২২:১৮:৫৯  |  অনলাইন সংস্করণ

ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জে ২২ বছর পর তানজিমা বাবা-মায়ের ঠিকানা খুঁজে পেয়েছেন। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় ঢাকার রামপুরা বনশ্রী এলাকায় স্বামীর বাসায় গিয়ে বাবা-মা ভাই মিলিত হয়। বৃহস্পতিবার রাত ৮টার দিকে ঢাকা থেকে তানজিমা বাবার বাড়ি ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলা মগটুলা ইউনিয়নের তরফফাচাইল গ্রামে ফিরছেন।

জানা যায়, ৬ বছর বয়সে ১৯৯৯ সালে নানি জাহানারা খাতুনের সঙ্গে ঈশ্বরগঞ্জ থেকে ঢাকার মহাখালীর কড়াইল নানার বাড়িতে গিয়ে হারিয়ে যায়। পরে শান্তিবাগ এলাকার গোকরান মিয়া নামের এক ব্যাংক কর্মকর্তা তানজিমাকে লালন-পালন করে বিয়ে দেন। তানজিমা বর্তমানে ৩ সন্তান ও স্বামীকে নিয়ে বনশ্রী এলাকায় ভাড়া বাড়িতে থাকেন।

মঙ্গলবার সোশ্যাল মিডিয়া আপন ঠিকানার মাধ্যমে তানজিমার বাসায় বাবা-মা ও ভাই গিয়ে উঠেন। তখন দীর্ঘ ২২ বছর পর তাদের দেখে আবেগাপ্লুত হলে সবাই কান্নায় ভেঙে পড়েন। একসঙ্গে মিলিত হয়ে রাত ৮টার দিকে গ্রামের বাড়িতে যেতে ঢাকা থেকে রওনা দেন। তানজিমার বাবার নাম নূরুল হুদা ও মা জোসনা বেগম।

তানজিমা কান্নাজড়িত কণ্ঠে বলেন, আমার জীবনের স্বপ্ন ছিল জন্মদাতা বাবা ও গর্ভধারিণী মাকে দেখার। তবে শৈশবে আমাকে যারা লালন-পালন করেছেন সেই ব্যাংক কর্মকর্তা আজ বেঁচে নেই। তারা আমাকে সন্তানের মতো লালন পালন করেছেন, তাদের প্রতি আমি চিরকৃতজ্ঞ। আর আপন ঠিকানার আর জে কিবরিয়াকে জানাই অশেষ ধন্যবাদ।

২২ বছর পর ফিরল হারিয়ে যাওয়া তানজিমা  

 ঈশ্বরগঞ্জ (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি 
০৭ অক্টোবর ২০২১, ১০:১৮ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জে ২২ বছর পর তানজিমা বাবা-মায়ের ঠিকানা খুঁজে পেয়েছেন। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় ঢাকার রামপুরা বনশ্রী এলাকায় স্বামীর বাসায় গিয়ে বাবা-মা ভাই মিলিত হয়। বৃহস্পতিবার রাত ৮টার দিকে ঢাকা থেকে তানজিমা বাবার বাড়ি ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলা মগটুলা ইউনিয়নের তরফফাচাইল গ্রামে ফিরছেন।

জানা যায়, ৬ বছর বয়সে ১৯৯৯ সালে নানি জাহানারা খাতুনের সঙ্গে ঈশ্বরগঞ্জ থেকে ঢাকার মহাখালীর কড়াইল নানার বাড়িতে গিয়ে হারিয়ে যায়। পরে শান্তিবাগ এলাকার গোকরান মিয়া নামের এক ব্যাংক কর্মকর্তা তানজিমাকে লালন-পালন করে বিয়ে দেন। তানজিমা বর্তমানে ৩ সন্তান ও স্বামীকে নিয়ে বনশ্রী এলাকায় ভাড়া বাড়িতে থাকেন।

মঙ্গলবার সোশ্যাল মিডিয়া আপন ঠিকানার মাধ্যমে তানজিমার বাসায় বাবা-মা ও ভাই গিয়ে উঠেন। তখন দীর্ঘ ২২ বছর পর তাদের দেখে আবেগাপ্লুত হলে সবাই কান্নায় ভেঙে পড়েন। একসঙ্গে মিলিত হয়ে রাত ৮টার দিকে গ্রামের বাড়িতে যেতে ঢাকা থেকে রওনা দেন। তানজিমার বাবার নাম নূরুল হুদা ও মা জোসনা বেগম। 

তানজিমা কান্নাজড়িত কণ্ঠে বলেন, আমার জীবনের স্বপ্ন ছিল জন্মদাতা বাবা ও গর্ভধারিণী মাকে দেখার। তবে শৈশবে আমাকে যারা লালন-পালন করেছেন সেই ব্যাংক কর্মকর্তা আজ বেঁচে নেই। তারা আমাকে সন্তানের মতো লালন পালন করেছেন, তাদের প্রতি আমি চিরকৃতজ্ঞ। আর আপন ঠিকানার আর জে কিবরিয়াকে জানাই অশেষ ধন্যবাদ।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন