বাড়ির সীমানা নিয়ে সংঘর্ষ, আহত ১০
jugantor
বাড়ির সীমানা নিয়ে সংঘর্ষ, আহত ১০

  রাজশাহী ব্যুরো  

০৭ অক্টোবর ২০২১, ২২:৫১:১৪  |  অনলাইন সংস্করণ

রাজশাহীর বাগমারায় বসতবাড়ির সীমানা নিয়ে বিরোধ সংঘর্ষের ঘটনায় উভয়পক্ষের ১০ জন আহত হয়েছেন। বৃহস্পতিবার দুপুরে উপজেলার বাসুপাড়া ইউনিয়নের বীরকয়া গ্রামে হারেজ আলী এবং মকবুল হোসেনের লোকজনের মধ্যে সংঘর্ষের এ ঘটনা ঘটে।

আহতদের উদ্ধার করে বাগমারা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। আহতরা হলেন- হারেজ আলীর ৫ ছেলে আবু সায়েম বাপ্পি (৪৫), মামুনুর রশিদ (৪৩), সিরাজ উদ্দীন (৪০), সিদ্দিক আলী (৩৮) এবং সাদেক আলী (৩৩)। আহতদের মধ্যে আবু সায়েম বাপ্পি ও সিরাজ উদ্দীনের শারীরিক অবস্থা সংকটাপন্ন হওয়ায় তাদের রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

অপরদিকে মকবুল হোসেনের পক্ষের ৫ জনের অবস্থাও আশঙ্কাজনক। তাদের বাগমারা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। এরা হলেন- মকবুল হোসেনের ভাতিজা মফিজ উদ্দীনের ছেলে মতিউর রহমান (৪৫), প্রতিবেশী মৃত বাহার আলীর ছেলে শুকুর আলী (৫০), বিশুর ছেলে রনি আহম্মেদ (২৮), বাহার আলীর ছেলে রহিদুল ইসলাম (৩০) এবং নজের আলীর ছেলে আসাদ আলী (২৮)।

সংঘর্ষ চলাকালে স্থানীয় লোকজন ৯৯৯-এ ফোন দিলে দ্রুত পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছায়। পরে উভয়ের মধ্যে উত্তেজনাকর পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। বসতবাড়ির সীমানা নিয়ে সংঘর্ষের ঘটনায় উভয়পক্ষ থানায় মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছে বলে জানা গেছে।

এ ব্যাপারে বাগমারা থানার ওসি মোস্তাক আহম্মেদ জানান, সীমানা নিয়ে উভয়পক্ষের বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন। এখনো কেউ থানায় অভিযোগ করেননি। অভিযোগ পেলে এ ব্যাপারে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

বাড়ির সীমানা নিয়ে সংঘর্ষ, আহত ১০

 রাজশাহী ব্যুরো 
০৭ অক্টোবর ২০২১, ১০:৫১ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

রাজশাহীর বাগমারায় বসতবাড়ির সীমানা নিয়ে বিরোধ সংঘর্ষের ঘটনায় উভয়পক্ষের ১০ জন আহত হয়েছেন। বৃহস্পতিবার দুপুরে উপজেলার বাসুপাড়া ইউনিয়নের বীরকয়া গ্রামে হারেজ আলী এবং মকবুল হোসেনের লোকজনের মধ্যে সংঘর্ষের এ ঘটনা ঘটে। 

আহতদের উদ্ধার করে বাগমারা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। আহতরা হলেন- হারেজ আলীর ৫ ছেলে আবু সায়েম বাপ্পি (৪৫), মামুনুর রশিদ (৪৩), সিরাজ উদ্দীন (৪০), সিদ্দিক আলী (৩৮) এবং সাদেক আলী (৩৩)। আহতদের মধ্যে আবু সায়েম বাপ্পি ও সিরাজ উদ্দীনের শারীরিক অবস্থা সংকটাপন্ন হওয়ায় তাদের রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

অপরদিকে মকবুল হোসেনের পক্ষের ৫ জনের অবস্থাও আশঙ্কাজনক। তাদের বাগমারা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। এরা হলেন- মকবুল হোসেনের ভাতিজা মফিজ উদ্দীনের ছেলে মতিউর রহমান (৪৫), প্রতিবেশী মৃত বাহার আলীর ছেলে শুকুর আলী (৫০), বিশুর ছেলে রনি আহম্মেদ (২৮), বাহার আলীর ছেলে রহিদুল ইসলাম (৩০) এবং নজের আলীর ছেলে আসাদ আলী (২৮)।

সংঘর্ষ চলাকালে স্থানীয় লোকজন ৯৯৯-এ ফোন দিলে দ্রুত পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছায়। পরে উভয়ের মধ্যে উত্তেজনাকর পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। বসতবাড়ির সীমানা নিয়ে সংঘর্ষের ঘটনায় উভয়পক্ষ থানায় মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছে বলে জানা গেছে।

এ ব্যাপারে বাগমারা থানার ওসি মোস্তাক আহম্মেদ জানান, সীমানা নিয়ে উভয়পক্ষের বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন। এখনো কেউ থানায় অভিযোগ করেননি। অভিযোগ পেলে এ ব্যাপারে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন