মেয়েকে বাঁচাতে গিয়ে জামাইয়ের হাতে শাশুড়ি খুন
jugantor
মেয়েকে বাঁচাতে গিয়ে জামাইয়ের হাতে শাশুড়ি খুন

  হালুয়াঘাট (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি  

০৮ অক্টোবর ২০২১, ০১:২২:৫৭  |  অনলাইন সংস্করণ

ময়মনসিংহের হালুয়াঘাটে মেয়েকে বাঁচাতে গিয়ে জামাতার হাতে শাশুড়ি খুন হয়েছেন। বুধবার ভোর ৪টার দিকে উপজেলার ৩নং কৈচাপুর ইউনিয়নের কড়ইকান্দা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

নিহতের ছোট মেয়ে সন্ধ্যারানী জানায়, পার্শ্ববর্তী ফুলপুর উপজেলার চনিয়া মোড় এলাকার অভলেশ শীলের পুত্র সুজিত শীলের সঙ্গে তার বড়বোন ইতিরানীর বিবাহ হয়। বিয়ের কিছুদিন পর থেকেই সুজিত স্ত্রীসহ হালুয়াঘাট উপজেলা কড়ইকান্দায় তার শ্বশুরবাড়িতে চলে আসে। কিছুদিন যাবত স্ত্রীর সঙ্গে তার কলহ চলছিল।

বুধবার ভোর ৪টায় সুজিত দা দিয়ে তার স্ত্রীকে কোপাতে থাকলে তার চিৎকারে পাশের রুম থেকে শাশুড়ি এসে তাকে বাঁচানোর চেষ্টা করে। এ সময় সুজিত তার শাশুড়িকে কুপিয়ে মারাত্মক জখম করে। পরে তাদের ডাকচিৎকারে ফজরের নামাজ পড়তে যাওয়া এলাকার লোকজন এসে সুজিতকে আটক করে পুলিশে খবর দিলে পুলিশ তাকে থানায় নিয়ে যায়।

সুজিতের শাশুড়িকে প্রথমে হালুয়াঘাট সরকারি হাসপাতালে নিয়ে প্রাথমিক চিকিৎসার পর ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করলে বৃহস্পতিবার সকাল ১০টায় তার মৃত্যু হয়।

সুজিতের স্ত্রীও আশঙ্কাজনক অবস্থায় ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন বলে পরিবার সূত্রে জানা যায়।

খুনের সত্যতা স্বীকার করে হালুয়াঘাট থানার ওসি শাহিনুজ্জামান জানান, খুন করার সময় সুজিত কিছুটা আহত হওয়ায় তাকেও আটক অবস্থায় চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

মেয়েকে বাঁচাতে গিয়ে জামাইয়ের হাতে শাশুড়ি খুন

 হালুয়াঘাট (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি 
০৮ অক্টোবর ২০২১, ০১:২২ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ময়মনসিংহের হালুয়াঘাটে মেয়েকে বাঁচাতে গিয়ে জামাতার হাতে শাশুড়ি খুন হয়েছেন। বুধবার ভোর ৪টার দিকে উপজেলার ৩নং কৈচাপুর ইউনিয়নের কড়ইকান্দা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

নিহতের ছোট মেয়ে সন্ধ্যারানী জানায়, পার্শ্ববর্তী ফুলপুর উপজেলার চনিয়া মোড় এলাকার অভলেশ শীলের পুত্র সুজিত শীলের সঙ্গে তার বড়বোন ইতিরানীর বিবাহ হয়। বিয়ের কিছুদিন পর থেকেই সুজিত স্ত্রীসহ হালুয়াঘাট উপজেলা কড়ইকান্দায় তার শ্বশুরবাড়িতে চলে আসে। কিছুদিন যাবত স্ত্রীর সঙ্গে তার কলহ চলছিল।

বুধবার ভোর ৪টায় সুজিত দা দিয়ে তার স্ত্রীকে কোপাতে থাকলে তার চিৎকারে পাশের রুম থেকে শাশুড়ি এসে তাকে বাঁচানোর চেষ্টা করে। এ সময় সুজিত তার শাশুড়িকে কুপিয়ে মারাত্মক জখম করে। পরে তাদের ডাকচিৎকারে ফজরের নামাজ পড়তে যাওয়া এলাকার লোকজন এসে সুজিতকে আটক করে পুলিশে খবর দিলে পুলিশ তাকে থানায় নিয়ে যায়।

সুজিতের শাশুড়িকে প্রথমে হালুয়াঘাট সরকারি হাসপাতালে নিয়ে প্রাথমিক চিকিৎসার পর ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করলে বৃহস্পতিবার সকাল ১০টায় তার মৃত্যু হয়।

সুজিতের স্ত্রীও আশঙ্কাজনক অবস্থায় ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন বলে পরিবার সূত্রে জানা যায়।

খুনের সত্যতা স্বীকার করে হালুয়াঘাট থানার ওসি শাহিনুজ্জামান জানান, খুন করার সময় সুজিত কিছুটা আহত হওয়ায় তাকেও আটক অবস্থায় চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন