স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতাকে তুলে নেওয়ার অভিযোগ
jugantor
স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতাকে তুলে নেওয়ার অভিযোগ

  দুমকি (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি  

০৮ অক্টোবর ২০২১, ১৮:৩১:৪৯  |  অনলাইন সংস্করণ

পটুয়াখালীর দুমকিতে আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের সহ-সভাপতি মিলন গাজী (৩৫) নামের এক যুবককে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) পরিচয়ে তুলে নেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

বৃহস্পতিবার রাত ১টার দিকে উপজেলার লেবুখালী ফেরিঘাট সংলগ্ন গ্রামের বাড়ি থেকে একটি পিকআপে তুলে নেয়া হয় বলে পরিবার জানায়। মিলন গাজী লেবুখালী ফেরিঘাটের আবদুল কাদের গাজীর ছেলে। তিনি পেশায় একজন গাড়িচালক।

শুক্রবার সকালে দুমকি থানায় এ ঘটনায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেন নিখোঁজ যুবকের বাবা আবদুল কাদের গাজী।

জিডি সূত্রের অভিযোগে উল্লেখ করা হয়, মিলন গাজী একজন গাড়িচালক। প্রতিদিনের মতো বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১০টায় তিনি বাড়িতে ফেরেন। পরে রাতের খাবার খেয়ে বাসার সবাই ঘুমিয়ে পড়েন। রাত ১টার দিকে তাদের বসত ঘরের সামনে ৮-১০ জন লোক এসে পুলিশ পরিচয়ে ডাকাডাকি করে। দরজা খোলার পর সবাই হুড়মুড়িয়ে ঘরে ঢুকে মিলন গাজীকে বাড়ির সামনে অপেক্ষমাণ একটি পিকআপ ভ্যানে তুলে লেবুখালী ঘাটের স্পেশাল ফেরিতে পার হয়ে বরিশালের দিকে নিয়ে যায়। এরপর থেকে তার ব্যবহৃত মোবাইল বন্ধ ও নিখোঁজ রয়েছে।

কাদের গাজী যুগান্তরকে জানান, তার ছেলে বর্তমানে দুমকি স্বেচ্ছাসেবক লীগের সহ-সভাপতি এবং পেশায় একজন পরিবহনচালক। বৃহস্পতিবার রাতে পুলিশ পরিচয়ে তুলে নেওয়ার পর থেকে তার সন্ধান মিলছে না। পিবিআই বরিশাল, ডিবি পুলিশ, র্যা ব ও থানা পুলিশ কার্যালয়ে খোঁজ করেও কোনো সন্ধান পাইনি।

দুমকি থানার ওসি আবদুস সালাম বলেন, এ ব্যাপারে আমরা কিছু জানি না। সাধারণ ডায়েরি হওয়ার পর বিষয়টি জানতে পেরেছি।

স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতাকে তুলে নেওয়ার অভিযোগ

 দুমকি (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি 
০৮ অক্টোবর ২০২১, ০৬:৩১ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

পটুয়াখালীর দুমকিতে আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের সহ-সভাপতি মিলন গাজী (৩৫) নামের এক যুবককে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) পরিচয়ে তুলে নেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। 

বৃহস্পতিবার রাত ১টার দিকে উপজেলার লেবুখালী ফেরিঘাট সংলগ্ন গ্রামের বাড়ি থেকে একটি পিকআপে তুলে নেয়া হয় বলে পরিবার জানায়। মিলন গাজী লেবুখালী ফেরিঘাটের আবদুল কাদের গাজীর ছেলে। তিনি পেশায় একজন গাড়িচালক।

শুক্রবার সকালে দুমকি থানায় এ ঘটনায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেন নিখোঁজ যুবকের বাবা আবদুল কাদের গাজী। 

জিডি সূত্রের অভিযোগে উল্লেখ করা হয়, মিলন গাজী একজন গাড়িচালক। প্রতিদিনের মতো বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১০টায় তিনি বাড়িতে ফেরেন। পরে রাতের খাবার খেয়ে বাসার সবাই ঘুমিয়ে পড়েন। রাত ১টার দিকে তাদের বসত ঘরের সামনে ৮-১০ জন লোক এসে পুলিশ পরিচয়ে ডাকাডাকি করে। দরজা খোলার পর সবাই হুড়মুড়িয়ে ঘরে ঢুকে মিলন গাজীকে বাড়ির সামনে অপেক্ষমাণ একটি পিকআপ ভ্যানে তুলে লেবুখালী ঘাটের স্পেশাল ফেরিতে পার হয়ে বরিশালের দিকে নিয়ে যায়। এরপর থেকে তার ব্যবহৃত মোবাইল বন্ধ ও নিখোঁজ রয়েছে।  

কাদের গাজী যুগান্তরকে জানান, তার ছেলে বর্তমানে দুমকি স্বেচ্ছাসেবক লীগের সহ-সভাপতি এবং পেশায় একজন পরিবহনচালক। বৃহস্পতিবার রাতে পুলিশ পরিচয়ে তুলে নেওয়ার পর থেকে তার সন্ধান মিলছে না। পিবিআই বরিশাল, ডিবি পুলিশ, র্যা ব ও থানা পুলিশ কার্যালয়ে খোঁজ করেও কোনো সন্ধান পাইনি।

দুমকি থানার ওসি আবদুস সালাম বলেন, এ ব্যাপারে আমরা কিছু জানি না। সাধারণ ডায়েরি হওয়ার পর বিষয়টি জানতে পেরেছি। 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন