তুলে নেয়ার ১৬ ঘণ্টা পর হাসপাতালে মিলল স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা
jugantor
তুলে নেয়ার ১৬ ঘণ্টা পর হাসপাতালে মিলল স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা

  দুমকি (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি  

০৮ অক্টোবর ২০২১, ২৩:৫০:২২  |  অনলাইন সংস্করণ

পটুয়াখালীর দুমকিতে উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সহ-সভাপতি মিলন গাজী (৩৫)কে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) পরিচয়ে তুলে নেয়ার ১৬ঘন্টা পরে বরিশাল শেরে-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল থেকে উদ্ধার হয়েছে।

বৃহস্পতিবার রাত ১টার দিকে উপজেলার লেবুখালী ফেরিঘাট সংলগ্ন গ্রামের নিজ বাড়ি থেকে পিকআপে পিবিআই পুলিশ পরিচয়ে মিলনকে তুলে নিয়ে ফেরি পার হয়ে বরিশালের দিকে চলে যায়। এর পর থেকেই কোনো সন্ধান পাচ্ছিল না তার পরিবার।

চারিদিকে খোঁজ খবর নিয়ে সন্ধান না মেলায় শুক্রবার সকালে দুমকি থানায় এ ঘটনায় একটি সাধারণ একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন নিখোঁজ মিলন গাজীর পিতা আবদুল কাদের গাজী।

জিডিতে বলা হয়, মিলন গাজী পেশায় একজন গাড়িচালক। প্রতিদিনের মতো বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১০টায় তিনি বাড়িতে ফেরেন। পরে রাতের খাবার খেয়ে বাসার সবাই ঘুমিয়ে পড়ে। রাত সাড়ে ১টার দিকে তাদের বসত:ঘরের সামনে ৮-১০জন লোক এসে পুলিশ পরিচয়ে ডাকাডাকি করে। দরজা খোলার পর সবাই ঘরে ঢুকে মিলন গাজীকে বাড়ির সামনে অপেক্ষমাণ একটি পিকআপ ভ্যানে তুলে লেবুখালী ঘাটের স্পেশাল ফেরিতে পাড় হয়ে বরিশালের দিকে নিয়ে যায়। এরপর থেকে তার ব্যবহৃত মোবাইল বন্ধ ও নিখোঁজ ছিল।

শুক্রবার বিকাল ৪টায় লোকমুখে প্রাপ্ত সংবাদের ভিত্তিতে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল খোঁজ নিতে গিয়ে তার সন্ধান পায় স্বজনরা।

জ্ঞান ফেরার পর মিলন গাজী জানান, দুর্বৃত্তরা তুলে নিয়ে গাড়িতে বসে তাকে বেদম মারধর করে অজ্ঞান অবস্থায় বরিশালের রূপাতলি এলাকায় ফেলে যায়। ভোর হলে স্থানীয় লোকজন তাকে বরিশাল শেরে-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে।

দুমকি থানার অফিসার ইনচার্জ মো. আবদুস সালাম বলেন, এ বিষয়ে একটি সাধারণ ডায়েরি হয়েছে। তবে ভিকটিমকে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাওয়া গেছে বলে শুনেছি।

পুলিশ সুপার (পিবিআই) পটুয়াখালী আবদুস সোবাহান খান বলেন, এ বিষয়ে এখন পর্যন্ত কোনো অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে অভিযুক্তদের খুঁজে বের করে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

তুলে নেয়ার ১৬ ঘণ্টা পর হাসপাতালে মিলল স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা

 দুমকি (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি 
০৮ অক্টোবর ২০২১, ১১:৫০ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

পটুয়াখালীর দুমকিতে উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সহ-সভাপতি মিলন গাজী (৩৫)কে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) পরিচয়ে তুলে নেয়ার ১৬ঘন্টা পরে বরিশাল শেরে-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল থেকে উদ্ধার হয়েছে।

বৃহস্পতিবার রাত ১টার দিকে উপজেলার লেবুখালী ফেরিঘাট সংলগ্ন গ্রামের নিজ বাড়ি থেকে পিকআপে পিবিআই পুলিশ পরিচয়ে মিলনকে তুলে নিয়ে ফেরি পার হয়ে বরিশালের দিকে চলে যায়। এর পর থেকেই কোনো সন্ধান পাচ্ছিল না তার পরিবার।

চারিদিকে খোঁজ খবর নিয়ে সন্ধান না মেলায় শুক্রবার সকালে দুমকি থানায় এ ঘটনায় একটি সাধারণ একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন নিখোঁজ মিলন গাজীর পিতা আবদুল কাদের গাজী।

জিডিতে বলা হয়, মিলন গাজী পেশায় একজন গাড়িচালক। প্রতিদিনের মতো বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১০টায় তিনি বাড়িতে ফেরেন। পরে রাতের খাবার খেয়ে বাসার সবাই ঘুমিয়ে পড়ে। রাত সাড়ে ১টার দিকে তাদের বসত:ঘরের সামনে ৮-১০জন লোক এসে পুলিশ পরিচয়ে ডাকাডাকি করে। দরজা খোলার পর সবাই ঘরে ঢুকে মিলন গাজীকে বাড়ির সামনে অপেক্ষমাণ একটি পিকআপ ভ্যানে তুলে লেবুখালী ঘাটের স্পেশাল ফেরিতে পাড় হয়ে বরিশালের দিকে নিয়ে যায়। এরপর থেকে তার ব্যবহৃত মোবাইল বন্ধ ও নিখোঁজ ছিল।

শুক্রবার বিকাল ৪টায় লোকমুখে প্রাপ্ত সংবাদের ভিত্তিতে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল খোঁজ নিতে গিয়ে তার সন্ধান পায় স্বজনরা।

জ্ঞান ফেরার পর মিলন গাজী জানান, দুর্বৃত্তরা তুলে নিয়ে গাড়িতে বসে তাকে বেদম মারধর করে অজ্ঞান অবস্থায় বরিশালের রূপাতলি এলাকায় ফেলে যায়। ভোর হলে স্থানীয় লোকজন তাকে বরিশাল শেরে-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে।

দুমকি থানার অফিসার ইনচার্জ মো. আবদুস সালাম বলেন, এ বিষয়ে একটি সাধারণ ডায়েরি হয়েছে। তবে ভিকটিমকে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাওয়া গেছে বলে শুনেছি।

পুলিশ সুপার (পিবিআই) পটুয়াখালী আবদুস সোবাহান খান বলেন, এ বিষয়ে এখন পর্যন্ত কোনো অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে অভিযুক্তদের খুঁজে বের করে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন