মা ইলিশ ধরায় ৪৭ জেলে আটক
jugantor
মা ইলিশ ধরায় ৪৭ জেলে আটক

  শরীয়তপুর প্রতিনিধি  

০৯ অক্টোবর ২০২১, ২২:৩৫:৩৮  |  অনলাইন সংস্করণ

নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে নদীতে মাছ ধরার অপরাধে ৪৭ জেলেকে আটক করেছে আনসার ভিডিপি, র‌্যাব ও পুলিশ।

শনিবার সকালে জাজিরা উপজেলার বড়কান্দি, বিলাশপুর, নড়িয়া উপজেলার মোক্তারের চর ও গড়িসার এলাকার পদ্মা নদীর বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালানো হয় বলে জাজিরা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মাহবুবুর রহমান জানান।

এ সময় ২ লাখ মিটার কারেন্ট জাল, প্রায় ৫০ মণ ইলিশ মাছ জব্দ করা হয়েছে। জব্দকৃত ইলিশ মাছ বিভিন্ন এতিমখানায় বিতরণ করা হয়েছে।

আটককৃত জেলেরা হলেন- সাকিব মাদবর (১৬), জলিল মাদবর (৪০), লিটন বেপারী (৩০), মনির মুন্সি (৩৫), ফরহাদ বেপারী (৪০), জাহিদ সরদার (২৮), সোহেল মিয়া (৪৬), মিজানুর রহমানসহ (২৬) ৪৭ জনকে জেল ও জরিমানা করেছেন জাজিরা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. আশ্রাফুজ্জামান ভুইয়া।

এর মধ্যে ৩ জনকে ৫ হাজার টাকা করে জরিমানা করে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। বাকি ৪৪ জনকে ৩০ দিন করে কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। এ সময় আরও প্রায় ৫০ জন শিশু-কিশোর মাছ শিকারিকে তাদের পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। তাদের সবার বাড়ি নড়িয়া ও জাজিরা উপজেলার বিভিন্ন এলাকায়।

শনিবার দুপুরে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে ৪৪ জনকে কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে।

জেলা মৎস্য কর্মকর্তা প্রণব কুমার বলেন, শনিবার সকালে পদ্মা নদীর বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে নড়িয়া ও জাজিরা উপজেলা র‌্যাব, পুলিশ ও আনসার ভিডিপি সমন্বয়ে অভিযান পরিচালনা করে ৪৭ জন জেলে ও প্রায় ৫০ শিশু-কিশোরকে আটক করে। এরপর ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে তাদের জেল-জরিমানা করা হয় এবং শিশুদের ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। এ অভিযান আগামী ২৬ তারিখ পর্যন্ত চলবে।

মা ইলিশ ধরায় ৪৭ জেলে আটক

 শরীয়তপুর প্রতিনিধি 
০৯ অক্টোবর ২০২১, ১০:৩৫ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে নদীতে মাছ ধরার অপরাধে ৪৭ জেলেকে আটক করেছে আনসার ভিডিপি, র‌্যাব ও পুলিশ।

শনিবার সকালে জাজিরা উপজেলার বড়কান্দি, বিলাশপুর, নড়িয়া উপজেলার মোক্তারের চর ও গড়িসার এলাকার পদ্মা নদীর বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালানো হয় বলে জাজিরা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মাহবুবুর রহমান জানান।

এ সময় ২ লাখ মিটার কারেন্ট জাল, প্রায় ৫০ মণ ইলিশ মাছ জব্দ করা হয়েছে। জব্দকৃত ইলিশ মাছ বিভিন্ন এতিমখানায় বিতরণ করা হয়েছে।

আটককৃত জেলেরা হলেন- সাকিব মাদবর (১৬), জলিল মাদবর (৪০), লিটন বেপারী (৩০), মনির মুন্সি (৩৫), ফরহাদ বেপারী (৪০), জাহিদ সরদার (২৮), সোহেল মিয়া (৪৬), মিজানুর রহমানসহ (২৬) ৪৭ জনকে জেল ও জরিমানা করেছেন জাজিরা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. আশ্রাফুজ্জামান ভুইয়া। 

এর মধ্যে ৩ জনকে ৫ হাজার টাকা করে জরিমানা করে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। বাকি ৪৪ জনকে ৩০ দিন করে কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। এ সময় আরও প্রায় ৫০ জন শিশু-কিশোর মাছ শিকারিকে তাদের পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। তাদের সবার বাড়ি নড়িয়া ও জাজিরা উপজেলার বিভিন্ন এলাকায়। 

শনিবার দুপুরে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে ৪৪ জনকে কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে।  

জেলা মৎস্য কর্মকর্তা প্রণব কুমার বলেন, শনিবার সকালে পদ্মা নদীর বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে নড়িয়া ও জাজিরা উপজেলা র‌্যাব, পুলিশ ও আনসার ভিডিপি সমন্বয়ে অভিযান পরিচালনা করে ৪৭ জন জেলে ও প্রায় ৫০ শিশু-কিশোরকে আটক করে। এরপর ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে তাদের জেল-জরিমানা করা হয় এবং শিশুদের ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। এ অভিযান আগামী ২৬ তারিখ পর্যন্ত চলবে। 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন