মুহিবুল্লাহ হত্যা: এক আসামির স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি
jugantor
মুহিবুল্লাহ হত্যা: এক আসামির স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি

  কক্সবাজার প্রতিনিধি  

১০ অক্টোবর ২০২১, ১৭:১৫:৪০  |  অনলাইন সংস্করণ

রোহিঙ্গাদের শীর্ষ নেতা মুহিবুল্লাহ হত্যা মামলায় গ্রেফতার পাঁচজন আসামির মধ্যে ইলিয়াস নামের একজন ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন।

রোববার দুপুরে কক্সবাজারের পুলিশ সুপার মো. হাসানুজ্জামান এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, মুহিবুল্লাহ হত্যা মামলায় এ পর্যন্ত পাঁচজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। আদালতের মাধ্যমে প্রত্যেকের তিন দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করে তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়।

শনিবার তিন দিনের রিমান্ড শেষে আদালতে আনা হয় ইলিয়াছকে। পরে কক্সবাজার চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক মো. হেলাল উদ্দিনের কাছে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দেন তিনি।

গত ২৯ সেপ্টেম্বর রাতে অজ্ঞাত বন্দুকধারীদের গুলিতে নিহত হন রোহিঙ্গাদের শীর্ষ নেতা মুহিবুল্লাহ। নিজ অফিসে অস্ত্রধারীরা তাকে পাঁচ রাউন্ড গুলি করে। এ সময় তিন রাউন্ড গুলি তার বুকে লাগে। খবর পেয়ে এপিবিএন সদস্যরা তাকে উদ্ধার করে ‘এমএসএফ’ হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

এ ঘটনায় নিহত মুহিবুল্লাহর ভাই হাবিবুল্লাহ বাদী হয়ে উখিয়া থানায় অজ্ঞাত আসামিদের বিরুদ্ধে মামলা করেন। এরপর পাঁচ আসামিকে গ্রেফতার করে পুলিশ। পরে তাদের রিমান্ডে নেওয়া হয়।

মুহিবুল্লাহ হত্যা: এক আসামির স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি

 কক্সবাজার প্রতিনিধি 
১০ অক্টোবর ২০২১, ০৫:১৫ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

রোহিঙ্গাদের শীর্ষ নেতা মুহিবুল্লাহ হত্যা মামলায় গ্রেফতার পাঁচজন আসামির মধ্যে ইলিয়াস নামের একজন ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন।

রোববার দুপুরে কক্সবাজারের পুলিশ সুপার মো. হাসানুজ্জামান এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, মুহিবুল্লাহ হত্যা মামলায় এ পর্যন্ত পাঁচজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। আদালতের মাধ্যমে প্রত্যেকের তিন দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করে তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়।

শনিবার তিন দিনের রিমান্ড শেষে আদালতে আনা হয় ইলিয়াছকে। পরে কক্সবাজার চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক মো. হেলাল উদ্দিনের কাছে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দেন তিনি।

গত ২৯ সেপ্টেম্বর রাতে অজ্ঞাত বন্দুকধারীদের গুলিতে নিহত হন রোহিঙ্গাদের শীর্ষ নেতা মুহিবুল্লাহ। নিজ অফিসে অস্ত্রধারীরা তাকে পাঁচ রাউন্ড গুলি করে। এ সময় তিন রাউন্ড গুলি তার বুকে লাগে। খবর পেয়ে এপিবিএন সদস্যরা তাকে উদ্ধার করে ‘এমএসএফ’ হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।
 
এ ঘটনায় নিহত মুহিবুল্লাহর ভাই হাবিবুল্লাহ বাদী হয়ে উখিয়া থানায় অজ্ঞাত আসামিদের বিরুদ্ধে মামলা করেন। এরপর পাঁচ আসামিকে গ্রেফতার করে পুলিশ। পরে তাদের রিমান্ডে নেওয়া হয়।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : রোহিঙ্গা বর্বরতা

আরও খবর
 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন