ফরমালিন পরীক্ষা ছাড়াই ভারত থেকে আমদানি হয় বিভিন্ন ফল
jugantor
ফরমালিন পরীক্ষা ছাড়াই ভারত থেকে আমদানি হয় বিভিন্ন ফল

  বেনাপোল প্রতিনিধি  

১০ অক্টোবর ২০২১, ১৭:৩৬:১৭  |  অনলাইন সংস্করণ

ভারত থেকে আমদানি করা বিভিন্ন ধরনের ফলের ফরমালিন পরীক্ষা হচ্ছে না বেনাপোল বন্দরে। স্থানীয় উদ্ভিদ সঙ্গনিরোধ কেন্দ্র শুধুমাত্র জার্মিনেশন পরীক্ষা করে ছাড়পত্র প্রদান করে থাকে। গত ৯ বছর আগে হাইকোর্টের এক নির্দেশনায় ভারত থেকে আমদানি করা সব ধরনের ফলে ফরমালিন পরীক্ষা বাধ্যতামূলক করা হয়।

কিন্ত অদ্যাবধি বেনাপোল বন্দর দিয়ে ভারত থেকে আমদানি করা ফলের কোনো ফরমালিন পরীক্ষা করা হচ্ছে না। প্রতিদিন এ বন্দর দিয়ে ৭০-৮০ ট্রাক লেবু, আপেল, আনার, মাল্টা, আঙ্গুর ও কেনু আমদানি হয় ভারত থেকে। সরকারি রাজস্ব পরিশোধ করে ফলের চালান খালাস দেওয়া হয়ে থাকে। শুধুমাত্র ফল থেকেই বেনাপোল বন্দর দিয়ে প্রতিদিন ৪ কোটি টাকার রাজস্ব আয় করে থাকে সরকার।

বেনাপোল কাস্টমস হাউসের কমিশনার মো. আজিজুর রহমান জানান, বেনাপোল বন্দর দিয়ে আমদানি করা ফলে ফরমালিন পাওয়া যায়নি। কারণ ভারত থেকে যেসব ফল আমদানি হয় তা সরাসরি বাগান থেকে তুলে বাংলাদেশে রফতানি করা হয়। ১-২ দিন দেরি হলে ফলে পচন ধরতে শুরু করে। সমুদ্রপথে আমদানি করা ফল দেশে আসতে দীর্ঘ সময় লাগায় পচন ঠেকাতে ফরমালিন দেওয়া হয়ে থাকে।

ফরমালিন পরীক্ষা ছাড়াই ভারত থেকে আমদানি হয় বিভিন্ন ফল

 বেনাপোল প্রতিনিধি 
১০ অক্টোবর ২০২১, ০৫:৩৬ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ভারত থেকে আমদানি করা বিভিন্ন ধরনের ফলের ফরমালিন পরীক্ষা হচ্ছে না বেনাপোল বন্দরে। স্থানীয় উদ্ভিদ সঙ্গনিরোধ কেন্দ্র শুধুমাত্র জার্মিনেশন পরীক্ষা করে ছাড়পত্র প্রদান করে থাকে। গত ৯ বছর আগে হাইকোর্টের এক নির্দেশনায় ভারত থেকে আমদানি করা সব ধরনের ফলে ফরমালিন পরীক্ষা বাধ্যতামূলক করা হয়।

কিন্ত অদ্যাবধি বেনাপোল বন্দর দিয়ে ভারত থেকে আমদানি করা ফলের কোনো ফরমালিন পরীক্ষা করা হচ্ছে না। প্রতিদিন এ বন্দর দিয়ে ৭০-৮০ ট্রাক লেবু, আপেল, আনার, মাল্টা, আঙ্গুর ও কেনু আমদানি হয় ভারত থেকে। সরকারি রাজস্ব পরিশোধ করে ফলের চালান খালাস দেওয়া হয়ে থাকে। শুধুমাত্র ফল থেকেই বেনাপোল বন্দর দিয়ে প্রতিদিন ৪ কোটি টাকার রাজস্ব আয় করে থাকে সরকার।

বেনাপোল কাস্টমস হাউসের কমিশনার মো. আজিজুর রহমান জানান, বেনাপোল বন্দর দিয়ে আমদানি করা ফলে ফরমালিন পাওয়া যায়নি। কারণ ভারত থেকে যেসব ফল আমদানি হয় তা সরাসরি বাগান থেকে তুলে বাংলাদেশে রফতানি করা হয়। ১-২ দিন দেরি হলে ফলে পচন ধরতে শুরু করে। সমুদ্রপথে আমদানি করা ফল দেশে আসতে দীর্ঘ সময় লাগায় পচন ঠেকাতে ফরমালিন দেওয়া হয়ে থাকে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন