মসজিদ দেখতে গেলেন ফ্রান্সের রাষ্ট্রদূত
jugantor
মসজিদ দেখতে গেলেন ফ্রান্সের রাষ্ট্রদূত

  বাঁশখালী (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি  

১০ অক্টোবর ২০২১, ২১:৪০:৩২  |  অনলাইন সংস্করণ

চট্টগ্রামের বাঁশখালীর প্রাচীন স্থাপনা বখসি হামিদ জামে মসজিদ পরিদর্শন করেছেন বাংলাদেশে নিযুক্ত ফ্রান্সের রাষ্ট্রদূত জ্যাঁ মেরিন সুহ ও তার স্ত্রী। রোববার সন্ধ্যা ৬টার দিকে প্রাচীন এ স্থাপনা পরিদর্শন করেন তারা।

এ সময় বাঁশখালী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাইদুজ্জামান চৌধুরী, অলিয়স ফ্রসেস ড. সেলভাস থেরেস, চট্টগ্রাম চারুকলা ইনস্টিটিউটের পরিচালক ড. প্রণব মিত্র চৌধুরী, সহকারী পুলিশ সুপার হুমায়ুন কবির, বাঁশখালী থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আজিজুল ইসলাম, মাদ্রাসা পরিচালক শাহ সুফি হাফেজ মাওলানা আবদুল মজিদ, চেয়ারম্যান অধ্যাপক তাজুল ইসলাম, সাবেক চেয়ারম্যান আহমদুর রহমান, ব্যাংকার ছৈয়দুল আলম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

মসজিদ পরিদর্শনকালে ফ্রান্সের রাষ্ট্রদূত জ্যাঁ মেরিন সুহ বলেন, এটি ঐতিহাসিক একটি দর্শনীয় স্থান। এখানে আসতে পেরে বেশ ভালো লাগছে। এরকম প্রাচীন স্থাপনাগুলো সংরক্ষণ করা দরকার। এগুলো দেশের ঐতিহ্যের সাক্ষী।

উল্লেখ্য, ৯৭৫ হিজরি (১৫৬৮) সালে বাঁশখালীর বাহারছড়া ইউনিয়নের ইলশা গ্রামে একটি দীঘিরপাড়ে প্রাচীন স্থাপনা বখসি হামিদ জামে মসজিদটি নির্মিত হয়।

মসজিদের ফলক সূত্রে জানা যায়, মসজিদটি সুলতান সম্রাট সোলাইমানের আমলে নির্মিত হয়। এ মসজিদটির নির্মাণ কৌশলের সাথে প্রাচীন স্থাপনা ঢাকার শায়েস্তা খান মসজিদ এবং নারায়ণগঞ্জের বিবি মরিয়ম মসজিদের মিল রয়েছে। কালের সাক্ষী হয়ে মসজিদটি এখানে দাঁড়িয়ে আছে। এই মসজিদকে কেন্দ্র করে সেখানে নির্মিত হয়েছে মাদ্রাসা, হেফজখানা। প্রতি শুক্রবার এই মসজিদে জুমার নামাজ আদায় করতে মানুষ দূর-দূরান্ত থেকে ছুটে আসেন।

মসজিদ দেখতে গেলেন ফ্রান্সের রাষ্ট্রদূত

 বাঁশখালী (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি 
১০ অক্টোবর ২০২১, ০৯:৪০ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

চট্টগ্রামের বাঁশখালীর প্রাচীন স্থাপনা বখসি হামিদ জামে মসজিদ পরিদর্শন করেছেন বাংলাদেশে নিযুক্ত ফ্রান্সের রাষ্ট্রদূত জ্যাঁ মেরিন সুহ ও তার স্ত্রী। রোববার সন্ধ্যা ৬টার দিকে প্রাচীন এ স্থাপনা পরিদর্শন করেন তারা।

এ সময় বাঁশখালী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাইদুজ্জামান চৌধুরী, অলিয়স ফ্রসেস ড. সেলভাস থেরেস, চট্টগ্রাম চারুকলা ইনস্টিটিউটের পরিচালক ড. প্রণব মিত্র চৌধুরী, সহকারী পুলিশ সুপার হুমায়ুন কবির, বাঁশখালী থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আজিজুল ইসলাম, মাদ্রাসা পরিচালক শাহ সুফি হাফেজ মাওলানা আবদুল মজিদ, চেয়ারম্যান অধ্যাপক তাজুল ইসলাম, সাবেক চেয়ারম্যান আহমদুর রহমান, ব্যাংকার ছৈয়দুল আলম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। 

মসজিদ পরিদর্শনকালে ফ্রান্সের রাষ্ট্রদূত জ্যাঁ মেরিন সুহ বলেন, এটি ঐতিহাসিক একটি দর্শনীয় স্থান। এখানে আসতে পেরে বেশ ভালো লাগছে। এরকম প্রাচীন স্থাপনাগুলো সংরক্ষণ করা দরকার। এগুলো দেশের ঐতিহ্যের সাক্ষী। 

উল্লেখ্য, ৯৭৫ হিজরি (১৫৬৮) সালে বাঁশখালীর বাহারছড়া ইউনিয়নের ইলশা গ্রামে একটি দীঘিরপাড়ে প্রাচীন স্থাপনা বখসি হামিদ জামে মসজিদটি নির্মিত হয়।

মসজিদের ফলক সূত্রে জানা যায়, মসজিদটি সুলতান সম্রাট সোলাইমানের আমলে নির্মিত হয়। এ মসজিদটির নির্মাণ কৌশলের সাথে প্রাচীন স্থাপনা ঢাকার শায়েস্তা খান মসজিদ এবং নারায়ণগঞ্জের বিবি মরিয়ম মসজিদের মিল রয়েছে। কালের সাক্ষী হয়ে মসজিদটি এখানে দাঁড়িয়ে আছে। এই মসজিদকে কেন্দ্র করে সেখানে নির্মিত হয়েছে মাদ্রাসা, হেফজখানা। প্রতি শুক্রবার এই মসজিদে জুমার নামাজ আদায় করতে মানুষ দূর-দূরান্ত থেকে ছুটে আসেন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন