'অনৈতিক কর্মকাণ্ডে' দেবর-ভাবিকে শিকলে বেঁধে নির্যাতন
jugantor
'অনৈতিক কর্মকাণ্ডে' দেবর-ভাবিকে শিকলে বেঁধে নির্যাতন

  চুনারুঘাট (হবিগঞ্জ) প্রতিনিধি   

১২ অক্টোবর ২০২১, ২২:০৮:৩১  |  অনলাইন সংস্করণ

হবিগঞ্জের চুনারুঘাটে অনৈতিক কাজের অভিযোগে দেবর-ভাবিকে শিকল দিয়ে বেঁধে নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে। খবর পেয়ে স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হুমায়ূন কবির খান তাদের উদ্ধার করে নিজ নিজ পিতার জিম্মায় দিয়েছেন।

স্থানীয়রা জানান, সোমবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে উপজেলার গাজিপুর ইউনিয়নে ওই যুবককে তারই চাচাতো ভাইয়ের স্ত্রীর ঘরে পেয়ে আটক করেন স্বজনরা। বিষয়টি স্থানীয় ইউপি সদস্য আজাদ মিয়াকে জানালে তিনি তাদের আটক রাখার সিদ্ধান্ত দেন। তবে তিনি তাদের শিকলে বাঁধার নির্দেশ দেননি। স্থানীয় উৎসাহী জনতা তাদের দুজনকে রাতে লোহার শিকল দিয়ে বেঁধে রেখে নির্যাতন করেছে।

পরদিন সকালে তাদের পুনরায় নির্যাতন করা হয় এবং দুপুরে এ খবর পেয়ে ইউপি চেয়ারম্যান তাদের উদ্ধার করে ইউনিয়ন অফিসে নিয়ে যান। সেখানে চেয়ারম্যান তাদের অভিভাবকদের ডেকে এনে বাবা-মায়ের জিম্মায় দেন।

এ ব্যাপারে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান হুমায়ূন কবির বলেন, বিষয়টি জানার পর দুপুরে তাদের উদ্ধার করে আমার অফিসে এনে যার যার পিতার জিম্মায় দিয়েছি।

'অনৈতিক কর্মকাণ্ডে' দেবর-ভাবিকে শিকলে বেঁধে নির্যাতন

 চুনারুঘাট (হবিগঞ্জ) প্রতিনিধি  
১২ অক্টোবর ২০২১, ১০:০৮ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

হবিগঞ্জের চুনারুঘাটে অনৈতিক কাজের অভিযোগে দেবর-ভাবিকে শিকল দিয়ে বেঁধে নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে। খবর পেয়ে স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হুমায়ূন কবির খান তাদের উদ্ধার করে নিজ নিজ পিতার জিম্মায় দিয়েছেন।

স্থানীয়রা জানান, সোমবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে উপজেলার গাজিপুর ইউনিয়নে ওই যুবককে তারই চাচাতো ভাইয়ের স্ত্রীর ঘরে পেয়ে আটক করেন স্বজনরা। বিষয়টি স্থানীয় ইউপি সদস্য আজাদ মিয়াকে জানালে তিনি তাদের আটক রাখার সিদ্ধান্ত দেন। তবে তিনি তাদের শিকলে বাঁধার নির্দেশ দেননি। স্থানীয় উৎসাহী জনতা তাদের দুজনকে রাতে লোহার শিকল দিয়ে বেঁধে রেখে নির্যাতন করেছে।

পরদিন সকালে তাদের পুনরায় নির্যাতন করা হয় এবং দুপুরে এ খবর পেয়ে ইউপি চেয়ারম্যান তাদের উদ্ধার করে ইউনিয়ন অফিসে নিয়ে যান। সেখানে চেয়ারম্যান তাদের অভিভাবকদের ডেকে এনে বাবা-মায়ের জিম্মায় দেন।

এ ব্যাপারে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান হুমায়ূন কবির বলেন, বিষয়টি জানার পর দুপুরে তাদের উদ্ধার করে আমার অফিসে এনে যার যার পিতার জিম্মায় দিয়েছি।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন