জিনের বাদশা গ্রেফতার, দুই দিনের রিমান্ডে
jugantor
জিনের বাদশা গ্রেফতার, দুই দিনের রিমান্ডে

  যুগান্তর প্রতিবেদন, বরগুনা  

১৩ অক্টোবর ২০২১, ১৭:২০:৪৭  |  অনলাইন সংস্করণ

জিনের বাদশা

বরগুনায় জিনের বাদশা পরিচয় দানকারী নজরুল ইসলাম নামে এক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বুধবার এ জিনের বাদশাকে দুই দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন বরগুনার চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মুহাম্মদ মাহবুব আলম।

নিজেকে জিনের বাদশা পরিচয় দেওয়া নজরুল ইসলাম বগুড়া জেলার ধুনট থানার নিমগাছি ইউনিয়নের নাংলু গ্রামের মৃত কিনার উদ্দিনের ছেলে।

পুলিশ ও ভুক্তভোগী সূত্রে জানা যায়, নজরুল ইসলাম ও তার সঙ্গী আমিনুল বরগুনা জেলার বিভিন্ন স্থানে নিজেদের জিনের বাদশা পরিচয় দিয়ে সহজ-সরল মানুষকে গুপ্তধন পাইয়ে দেওয়ার কথা বলে প্রতারণার মাধ্যমে অর্থ হাতিয়ে নিত।

গত ১১ জানুয়ারি রাতে নজরুল ইসলাম বরগুনা জেলার নাপিতখালী গ্রামের রুস্তম আলী সরদারের ছেলে আবুল সরদারের বাড়িতে হাজির হয়ে তিনি জানান যে, এখানে গুপ্তধনের সন্ধান দিতে পারেন তিনি। এজন্য তিনি এলাকার জমির দাগ, খতিয়ান ও ম্যাপ দিতে বলেন। একদিন পর নজরুল ইসলাম তার সঙ্গী আমিনুলকে নিয়ে আবুল সরদারের বাড়িতে এসে ২-৩ দিন অবস্থান করেন। একদিন রাতে জিনের মাধ্যমে গুপ্তধন এনে দেওয়ার নামে নজরুল দেড় লাখ টাকা দাবি করেন।

আবুল সরদার নগদ ৪০ হাজার টাকা দেন। গভীর রাতে নজরুল ঘরের আলো নিভিয়ে দেন। তার সঙ্গী আমিনুল মন্ত্র পড়তে থাকেন। নজরুল হঠাৎ মাটিতে লুটিয়ে পড়েন, এরপর বলেন- কিছু দিনের মধ্যেই আপনারা গুপ্তধন পাবেন। পরে তারা আরও ৪০ হাজার টাকা দাবি করেন। এমনিভাবে নজরুল ইসলাম প্রতারণা করে আবুল সরদারের কাছ থেকে ৫ লাখ ৭৫ হাজার টাকা হাতিয়ে নেন।

গত শনিবার ভুক্তভোগী আবুল সরদার খবর পান প্রতারক নজরুল বরগুনার পুরাকাটায় এসেছেন। এ সময় তিনি থানায় জানালে পুলিশ নজরুলকে গ্রেফতার করে।

বরগুনা থানার এসআই মো. ফিরোজ আলম বলেন, নজরুল ইসলাম নিজেকে জিনের বাদশা পরিচয় দিয়ে মানুষের অর্থ হাতিয়ে নেয়। এ ব্যাপারে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য রিমান্ডে নেওয়ার আবেদন করলে আদালত দুই দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

জিনের বাদশা গ্রেফতার, দুই দিনের রিমান্ডে

 যুগান্তর প্রতিবেদন, বরগুনা 
১৩ অক্টোবর ২০২১, ০৫:২০ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
জিনের বাদশা
প্রতীকী ছবি

বরগুনায় জিনের বাদশা পরিচয় দানকারী নজরুল ইসলাম নামে এক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বুধবার এ জিনের বাদশাকে দুই দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন বরগুনার চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মুহাম্মদ মাহবুব আলম।

নিজেকে জিনের বাদশা পরিচয় দেওয়া নজরুল ইসলাম বগুড়া জেলার ধুনট থানার নিমগাছি ইউনিয়নের নাংলু গ্রামের মৃত কিনার উদ্দিনের ছেলে।

পুলিশ ও ভুক্তভোগী সূত্রে জানা যায়, নজরুল ইসলাম ও তার সঙ্গী আমিনুল বরগুনা জেলার বিভিন্ন স্থানে নিজেদের জিনের বাদশা পরিচয় দিয়ে সহজ-সরল মানুষকে গুপ্তধন পাইয়ে দেওয়ার কথা বলে প্রতারণার মাধ্যমে অর্থ হাতিয়ে নিত।

গত ১১ জানুয়ারি রাতে নজরুল ইসলাম বরগুনা জেলার নাপিতখালী গ্রামের রুস্তম আলী সরদারের ছেলে আবুল সরদারের বাড়িতে হাজির হয়ে তিনি জানান যে, এখানে গুপ্তধনের সন্ধান দিতে পারেন তিনি। এজন্য তিনি এলাকার জমির দাগ, খতিয়ান ও ম্যাপ দিতে বলেন। একদিন পর নজরুল ইসলাম তার সঙ্গী আমিনুলকে নিয়ে আবুল সরদারের বাড়িতে এসে ২-৩ দিন অবস্থান করেন। একদিন রাতে জিনের মাধ্যমে গুপ্তধন এনে দেওয়ার নামে নজরুল দেড় লাখ টাকা দাবি করেন।

আবুল সরদার নগদ ৪০ হাজার টাকা দেন। গভীর রাতে নজরুল ঘরের আলো নিভিয়ে দেন। তার সঙ্গী আমিনুল মন্ত্র পড়তে থাকেন। নজরুল হঠাৎ মাটিতে লুটিয়ে পড়েন, এরপর বলেন- কিছু দিনের মধ্যেই আপনারা গুপ্তধন পাবেন। পরে তারা আরও ৪০ হাজার টাকা দাবি করেন। এমনিভাবে নজরুল ইসলাম প্রতারণা করে আবুল সরদারের কাছ থেকে ৫ লাখ ৭৫ হাজার টাকা হাতিয়ে নেন।

গত শনিবার ভুক্তভোগী আবুল সরদার খবর পান প্রতারক নজরুল বরগুনার পুরাকাটায় এসেছেন। এ সময় তিনি থানায় জানালে পুলিশ নজরুলকে গ্রেফতার করে।

বরগুনা থানার এসআই মো. ফিরোজ আলম বলেন, নজরুল ইসলাম নিজেকে জিনের বাদশা পরিচয় দিয়ে মানুষের অর্থ হাতিয়ে নেয়। এ ব্যাপারে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য রিমান্ডে নেওয়ার আবেদন করলে আদালত দুই দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন