পাবজি গেম খেলা নিয়ে দ্বন্দ্বে প্রাণ গেল কিশোরের
jugantor
পাবজি গেম খেলা নিয়ে দ্বন্দ্বে প্রাণ গেল কিশোরের

  সিংগাইর (মানিকগঞ্জ) প্রতিনিধি  

১৬ অক্টোবর ২০২১, ১৫:০১:৫০  |  অনলাইন সংস্করণ

পাবজি গেম খেলা নিয়ে দ্বন্দ্বে প্রাণ গেল কিশোরের

মানিকগঞ্জের সিংগাইর উপজেলায় পাবজি গেম খেলা নিয়ে দ্বন্দ্বে হামলায় আহত এক কিশোরের মৃত্যু হয়েছে।

শনিবার ভোরে সাভার এনাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন থেকে তার মৃত্যু হয়।

গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় উপজেলার সায়েস্তা ইউনিয়নের দক্ষিণ সাহরাইল গ্রামে ঘটনাটি ঘটে।

নিহত রাজু (১৪) একই গ্রামের মোসলেম উদ্দিনের ছেলে ও দক্ষিণ সাহরাইল কিন্ডারগার্টেনের ছাত্র।

নিহত রাজুর বাবা মুসলেম যুগান্তরকে জানান, উপজেলার দক্ষিণ সাহরাইল রাজু কোরাইশির ছেলে আলিফ (১৬) পাবজি গেম ও বিভিন্ন আইডি হ্যাক করতো। এ বিষয়টি রাজু (১৪) সবাইকে জানিয়ে দেয়ার কথা বলে।

এরই জের ধরে গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় কৌশলে রাজুকে সাইকেলে নবাবগঞ্জ উপজেলার শোল্লা ইউনিয়নের রুপারচর এলাকার কালীগঙ্গা নদীর তীরে কাশবনে নিয়ে যায়। সেখানে রাজুকে ইট দিয়ে মাথায় আঘাত করে। এরপর রাজুর গায়ের জামা খুলে মুখে ঢুকিয়ে দিয়ে গলায় ফাঁস দিয়ে মাথা ও মুখ থেতলে দিয়ে মৃত্যু নিশ্চিত করে।

এরপর দ্রুত ঘটনাস্থল ত্যাগ করে। এদিকে রাজুর পরিবার রাজুকে খুঁজে না পেয়ে আলিফের বাড়িতে যায়। আলিফ ও তার পরিবার বিভিন্ন স্থানে খোঁজাখুঁজি করে। রাত ৯টার দিকে গুরুতর অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে সাহরাইল ইব্রাহিম মেমোরিয়াল হাসপাতালে নেয়া হয়।

এরপর রাজুকে সাভার এনাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করেন চিকিৎসকরা। সেখানে চিকিৎসাধীন থেকে শনিবার ভোরে মারা যায় রাজু।

এদিকে সকাল ১০টার দিকে আলিফের বাড়িতে ঘেরাও করে বিক্ষুদ্ধ জনতা।

সিংগাইর থানার ওসি শফিকুল ইসলাম মোল্লা জানান, বিক্ষুদ্ধ জনতা অভিযুক্ত আলিফকে ছিনিয়ে নেয়ার চেষ্টা করলে পুলিশ বাধা দেয়। এসময় বাড়িতে ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে জনতা। এতে দুই পুলিশ সদস্য আহত হয়।

পাবজি গেম খেলা নিয়ে দ্বন্দ্বে প্রাণ গেল কিশোরের

 সিংগাইর (মানিকগঞ্জ) প্রতিনিধি 
১৬ অক্টোবর ২০২১, ০৩:০১ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
পাবজি গেম খেলা নিয়ে দ্বন্দ্বে প্রাণ গেল কিশোরের
ছবি: যুগান্তর

মানিকগঞ্জের সিংগাইর উপজেলায় পাবজি গেম খেলা নিয়ে দ্বন্দ্বে হামলায় আহত এক কিশোরের মৃত্যু হয়েছে।

শনিবার ভোরে সাভার এনাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন থেকে তার মৃত্যু হয়।

গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় উপজেলার সায়েস্তা ইউনিয়নের দক্ষিণ সাহরাইল গ্রামে ঘটনাটি ঘটে।

নিহত রাজু (১৪) একই গ্রামের মোসলেম উদ্দিনের ছেলে ও দক্ষিণ সাহরাইল কিন্ডারগার্টেনের ছাত্র। 

নিহত রাজুর বাবা মুসলেম যুগান্তরকে জানান, উপজেলার দক্ষিণ সাহরাইল রাজু কোরাইশির ছেলে আলিফ (১৬) পাবজি গেম ও বিভিন্ন আইডি হ্যাক করতো। এ বিষয়টি রাজু (১৪) সবাইকে জানিয়ে দেয়ার কথা বলে।

এরই জের ধরে গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় কৌশলে রাজুকে সাইকেলে নবাবগঞ্জ উপজেলার শোল্লা ইউনিয়নের রুপারচর এলাকার কালীগঙ্গা নদীর তীরে কাশবনে নিয়ে যায়। সেখানে রাজুকে ইট দিয়ে মাথায় আঘাত করে। এরপর রাজুর গায়ের জামা খুলে মুখে ঢুকিয়ে দিয়ে গলায় ফাঁস দিয়ে মাথা ও মুখ থেতলে দিয়ে মৃত্যু নিশ্চিত করে। 

এরপর দ্রুত ঘটনাস্থল ত্যাগ করে। এদিকে রাজুর পরিবার রাজুকে খুঁজে না পেয়ে আলিফের বাড়িতে যায়। আলিফ ও তার পরিবার বিভিন্ন স্থানে খোঁজাখুঁজি করে। রাত ৯টার দিকে গুরুতর অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে সাহরাইল ইব্রাহিম মেমোরিয়াল হাসপাতালে নেয়া হয়।

এরপর রাজুকে সাভার এনাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করেন চিকিৎসকরা। সেখানে চিকিৎসাধীন থেকে শনিবার ভোরে মারা যায় রাজু।

এদিকে সকাল ১০টার দিকে আলিফের বাড়িতে ঘেরাও করে বিক্ষুদ্ধ জনতা। 

সিংগাইর থানার ওসি শফিকুল ইসলাম মোল্লা জানান, বিক্ষুদ্ধ জনতা অভিযুক্ত আলিফকে ছিনিয়ে নেয়ার চেষ্টা করলে পুলিশ বাধা দেয়। এসময় বাড়িতে ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে জনতা। এতে দুই পুলিশ সদস্য আহত হয়। 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন