ছেলেমেয়েকে সাঁতার শেখানোর সময় বিমানের পাইলটের মৃত্যু
jugantor
ছেলেমেয়েকে সাঁতার শেখানোর সময় বিমানের পাইলটের মৃত্যু

  রায়পুর (লক্ষ্মীপুর) প্রতিনিধি  

১৬ অক্টোবর ২০২১, ১৮:১৮:২৫  |  অনলাইন সংস্করণ

লক্ষ্মীপুরের রায়পুরে সন্তানদের পুকুরে সাঁতার শেখানোর সময় হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে মো. কাজি মফিজুর রহমান (৪৪) নামে বাংলাদেশ বিমানবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত এক উইং কমান্ডারের (পাইলট) মৃত্যু হয়েছে।

শনিবার দুপুর ১২টার সময় উপজেলার মধ্য কেরোয়া গ্রামের কাজিবাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। তিনি ওই গ্রামের মৃত কাজি সিদ্দিকুর রহমানের তৃতীয় সন্তান। তার স্ত্রীসহ এক ছেলে ও এক মেয়ে রয়েছে।

মৃত পাইলট মফিজুর রহমানকে দুপুর আড়াইটার দিকে তার ঢাকাস্থ বসুন্ধরা গ্রিন সিটির বাসায় নেওয়া হয়েছে। বিকালে বিমানবাহিনীর সদর দপ্তরে জানাজা শেষে তাকে ঢাকাতেই দাফন করা হবে বলে তাদের পারিবারিক সূত্রে জানা যায়।

মৃতের স্বজন কাজি ফরিদ হোসেন ও কাজি এরফান জানান, মফিজুর রহমান ১৯ বছর চাকরি জীবন শেষে স্বেচ্ছায় অবসর নেন। গত দুই বছর বেসরকারি একটি বিমানের পাইলট হিসেবে কর্মরত ছিলেন। তার স্ত্রীসহ এক ছেলে ও এক মেয়ে রয়েছে। প্রতিবারের মতো এবারো বৃহস্পতিবার ছুটিতে মধ্য কেরোয়া গ্রামের কাজিবাড়িতে বেড়াতে আসেন।

শনিবার বেলা ১১টার সময় একই এলাকার ৭ জন অসহায় পরিবারকে সেলাইমেশিন দান করেন। দুপুর ১২টার সময় নিজেদের বাড়ির পুকুরে ছেলে ও মেয়েকে সাঁতার শেখাচ্ছিলেন। এ সময় বুকে হঠাৎ ব্যথা উঠে অসুস্থ হয়ে পুকুরে ডুবে যান। তখন ছেলেমেয়ের চিৎকারে স্বজনরা এগিয়ে গিয়ে মফিজকে উদ্ধার করে রায়পুর সরকারি হাসপাতালে নেন। পরে কর্তব্যরত ডাক্তার মফিজকে মৃত ঘোষণা করেন।

রায়পুর পৌরসভার ৮নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আবুল হোসেন বলেন, বেসরকারি বিমানের পাইলট মফিজুর রহমান ভালো লোক ছিলেন। তার মৃত্যুতে আমরা শোকাহত।

ছেলেমেয়েকে সাঁতার শেখানোর সময় বিমানের পাইলটের মৃত্যু

 রায়পুর (লক্ষ্মীপুর) প্রতিনিধি 
১৬ অক্টোবর ২০২১, ০৬:১৮ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

লক্ষ্মীপুরের রায়পুরে সন্তানদের পুকুরে সাঁতার শেখানোর সময় হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে মো. কাজি মফিজুর রহমান (৪৪) নামে বাংলাদেশ বিমানবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত এক উইং কমান্ডারের (পাইলট) মৃত্যু হয়েছে। 

শনিবার দুপুর ১২টার সময় উপজেলার মধ্য কেরোয়া গ্রামের কাজিবাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। তিনি ওই গ্রামের মৃত কাজি সিদ্দিকুর রহমানের তৃতীয় সন্তান। তার স্ত্রীসহ এক ছেলে ও এক মেয়ে রয়েছে। 

মৃত পাইলট মফিজুর রহমানকে দুপুর আড়াইটার দিকে তার ঢাকাস্থ বসুন্ধরা গ্রিন সিটির বাসায় নেওয়া হয়েছে। বিকালে বিমানবাহিনীর সদর দপ্তরে জানাজা শেষে তাকে ঢাকাতেই দাফন করা হবে বলে তাদের পারিবারিক সূত্রে জানা যায়। 

মৃতের স্বজন কাজি ফরিদ হোসেন ও কাজি এরফান জানান, মফিজুর রহমান ১৯ বছর চাকরি জীবন শেষে স্বেচ্ছায় অবসর নেন। গত দুই বছর বেসরকারি একটি বিমানের পাইলট হিসেবে কর্মরত ছিলেন। তার স্ত্রীসহ এক ছেলে ও এক মেয়ে রয়েছে। প্রতিবারের মতো এবারো বৃহস্পতিবার ছুটিতে মধ্য কেরোয়া গ্রামের কাজিবাড়িতে বেড়াতে আসেন।

শনিবার বেলা ১১টার সময় একই এলাকার ৭ জন অসহায় পরিবারকে সেলাইমেশিন দান করেন। দুপুর ১২টার সময় নিজেদের বাড়ির পুকুরে ছেলে ও মেয়েকে সাঁতার শেখাচ্ছিলেন। এ সময় বুকে হঠাৎ ব্যথা উঠে অসুস্থ হয়ে পুকুরে ডুবে যান। তখন ছেলেমেয়ের চিৎকারে স্বজনরা এগিয়ে গিয়ে মফিজকে উদ্ধার করে রায়পুর সরকারি হাসপাতালে নেন। পরে কর্তব্যরত ডাক্তার মফিজকে মৃত ঘোষণা করেন।

রায়পুর পৌরসভার ৮নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আবুল হোসেন বলেন, বেসরকারি বিমানের পাইলট মফিজুর রহমান ভালো লোক ছিলেন। তার মৃত্যুতে আমরা শোকাহত।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন