পর্নোগ্রাফি মামলার বাদীর স্বামী গণধর্ষণ মামলায় গ্রেফতার!
jugantor
পর্নোগ্রাফি মামলার বাদীর স্বামী গণধর্ষণ মামলায় গ্রেফতার!

  মদন (নেত্রকোনা) প্রতিনিধি   

১৬ অক্টোবর ২০২১, ২১:০৯:৩৫  |  অনলাইন সংস্করণ

নেত্রকোনার মদনে পর্নোগ্রাফি মামলার বাদীর স্বামীর নামে গণধর্ষণ মামলা দেওয়া হয়েছে। পুলিশ এ মামলায় ব্যবসায়ী আব্দুল বাতেনকে (৪৫) গ্রেফতার করেছে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, গণধর্ষণ মামলায় গ্রেফতার হওয়া আসামি আব্দুল বাতেনের স্ত্রী গত ৭ সেপ্টেম্বর প্রতিবেশী রুবেল মিয়ার বিরুদ্ধে থানায় একটি পর্নোগ্রাফি আইনে মামলা দায়ের করেন। এরপর ২৩ সেপ্টেম্বর অভিযুক্ত রুবেল মিয়ার বোন পালটা বাদীর স্বামী আব্দুল বাতেনের নামে ধর্ষণ মামলা করেন।

পর্নোগ্রাফি মামলার বাদী ও গণধর্ষণ মামলায় গ্রেফতার আব্দুল বাতেনের স্ত্রী বলেন, প্রতিবেশী রুবেল সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকের মেসেঞ্জারে আমার কাছে অশ্লীল ভিডিও পাঠিয়ে কুপ্রস্তাব দেয়। এ ব্যাপারে বিরক্ত না করার জন্য বারবার বলা সত্ত্বেও সে হয়রানি করায় আমি থানায় পর্নোগ্রাফি আইনে মামলা করতে বাধ্য হই। এ মামলার জেরে রুবেল তার বোনকে দিয়ে আমার স্বামীর বিরুদ্ধে মিথ্যা গণধর্ষণ মামলা দিয়ে গ্রেফতার করে হয়রানি করছে। আমি এর ন্যায়বিচার চাই।

এ বিষয়ে বক্তব্য জানতে পর্নোগ্রাফি মামলার আসামি রুবেলের মোবাইলে একাধিকবার কল করা হলেও সেটি বন্ধ পাওয়া যায়।

মদন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মুহাম্মদ ফেরদৌস আলম বলেন, আদালতের নির্দেশে শুক্রবার থানায় গণধর্ষণ মামলা হয়েছে। ওই মামলার এজহারভুক্ত আসামি আব্দুল বাতেনকে শুক্রবার রাতে গ্রেফতার করা হয়। শনিবার তাকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

ওসি আরও জানান, গণধর্ষণ মামলার ভিকটিমকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য নেত্রকোনা আধুনিক সদর হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। পর্নোগ্রাফি ও গণধর্ষণ উভয়পক্ষের দুটি মামলা তদন্তাধীন আছে।

পর্নোগ্রাফি মামলার বাদীর স্বামী গণধর্ষণ মামলায় গ্রেফতার!

 মদন (নেত্রকোনা) প্রতিনিধি  
১৬ অক্টোবর ২০২১, ০৯:০৯ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

নেত্রকোনার মদনে পর্নোগ্রাফি মামলার বাদীর স্বামীর নামে গণধর্ষণ মামলা দেওয়া হয়েছে। পুলিশ এ মামলায় ব্যবসায়ী আব্দুল বাতেনকে (৪৫) গ্রেফতার করেছে। 

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, গণধর্ষণ মামলায় গ্রেফতার হওয়া আসামি আব্দুল বাতেনের স্ত্রী গত ৭ সেপ্টেম্বর প্রতিবেশী রুবেল মিয়ার বিরুদ্ধে থানায় একটি পর্নোগ্রাফি আইনে মামলা দায়ের করেন। এরপর ২৩ সেপ্টেম্বর অভিযুক্ত রুবেল মিয়ার বোন পালটা বাদীর স্বামী আব্দুল বাতেনের নামে ধর্ষণ মামলা করেন। 

পর্নোগ্রাফি মামলার বাদী ও গণধর্ষণ মামলায় গ্রেফতার আব্দুল বাতেনের স্ত্রী বলেন, প্রতিবেশী রুবেল সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকের মেসেঞ্জারে আমার কাছে অশ্লীল ভিডিও পাঠিয়ে কুপ্রস্তাব দেয়। এ ব্যাপারে বিরক্ত না করার জন্য বারবার বলা সত্ত্বেও সে হয়রানি করায় আমি থানায় পর্নোগ্রাফি আইনে মামলা করতে বাধ্য হই। এ মামলার জেরে রুবেল তার বোনকে দিয়ে আমার স্বামীর বিরুদ্ধে মিথ্যা গণধর্ষণ মামলা দিয়ে গ্রেফতার করে হয়রানি করছে। আমি এর ন্যায়বিচার চাই।

এ বিষয়ে বক্তব্য জানতে পর্নোগ্রাফি মামলার আসামি রুবেলের মোবাইলে একাধিকবার কল করা হলেও সেটি বন্ধ পাওয়া যায়। 

মদন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মুহাম্মদ ফেরদৌস আলম বলেন, আদালতের নির্দেশে শুক্রবার থানায় গণধর্ষণ মামলা হয়েছে। ওই মামলার এজহারভুক্ত আসামি আব্দুল বাতেনকে শুক্রবার রাতে গ্রেফতার করা হয়। শনিবার তাকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। 

ওসি আরও জানান, গণধর্ষণ মামলার ভিকটিমকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য নেত্রকোনা আধুনিক সদর হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। পর্নোগ্রাফি ও গণধর্ষণ উভয়পক্ষের দুটি মামলা তদন্তাধীন আছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও খবর
 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন