পুলিশের সঙ্গে ‘ধস্তাধস্তি’ করে পালালেন যুবলীগ নেতা
jugantor
পুলিশের সঙ্গে ‘ধস্তাধস্তি’ করে পালালেন যুবলীগ নেতা

  মৌলভীবাজার প্রতিনিধি  

১৭ অক্টোবর ২০২১, ২২:১২:৪৬  |  অনলাইন সংস্করণ

ওয়ারেন্টভুক্ত আসামি রাজনগর উপজেলা যুবলীগের সহ-সভাপতি সিজু মিয়া পুলিশের সঙ্গে ধস্তাধস্তি করে পালিয়ে যাওয়ার গুঞ্জন উঠেছে। তবে রাজনগর থানা পুলিশ বলছে নিয়মিত অভিযানের অংশ হিসেবে যুবলীগ নেতা সিজু মিয়াকে গ্রেফতার করতে গেলে তিনি পালিয়ে যান।

স্থানীয়দের কাছ থেকে জানা যায়, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে রোববার রাতে উপজেলার মুন্সিবাজার ইউনিয়নের মসুদরাজার বাড়ি থেকে যুবলীগ নেতা সিজুকে আটক করতে অভিযান চালায় রাজনগর থানা পুলিশ। এ সময় যুবলীগ নেতা সিজুকে আটকের খবর পেয়ে নেতাকর্মীরা এগিয়ে এলে পুলিশের সঙ্গে ধস্তাধস্তি শুরু হয়। একপর্যায়ে নেতাকর্মীরা পুলিশের কাছ থেকে সিজুকে নিয়ে পালিয়ে যায়।

স্থানীয় একটি দায়িত্বশীল সূত্র বলছে, পুলিশ রাজনগর উপজেলা যুবলীগের সহ-সভাপতি সিজু মিয়াকে গ্রেফতার করলে তার নেতাকর্মীরা এসে তাকে ছুটিয়ে নিয়ে যায়। এ সময় তার হাতে হাতকড়া লাগানো ছিল। পরে পুলিশ বিভিন্ন মাধ্যম ব্যবহার করে রাত ৩টার দিকে হাতকড়া উদ্ধার করে।

মুন্সিবাজার ইউপি চেয়ারম্যান ছালেক মিয়া বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখি আসামি পালিয়ে গেছে এবং পুলিশ বাড়িতে ঢোকায় নারীরা চিৎকার করছেন।

এ বিষয়ে জানতে রাজনগর উপজেলা যুবলীগের সহ-সভাপতি সিজু মিয়ার ব্যক্তিগত মোবাইল ফোনে একাধিকবার ফোন দিলেও সেটি বন্ধ পাওয়া যায়।

রাজনগর থানার ওসি মোহাম্মদ নজরুল ইসলাম বলেন, যুবলীগ নেতা সিজু মিয়াকে গ্রেফতার করতে গেলে তিনি পালিয়ে যান। তবে ধস্তাধস্তির ঘটনা ঘটেনি।

পুলিশের সঙ্গে ‘ধস্তাধস্তি’ করে পালালেন যুবলীগ নেতা

 মৌলভীবাজার প্রতিনিধি 
১৭ অক্টোবর ২০২১, ১০:১২ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ওয়ারেন্টভুক্ত আসামি রাজনগর উপজেলা যুবলীগের সহ-সভাপতি সিজু মিয়া পুলিশের সঙ্গে ধস্তাধস্তি করে পালিয়ে যাওয়ার গুঞ্জন উঠেছে। তবে রাজনগর থানা পুলিশ বলছে নিয়মিত অভিযানের অংশ হিসেবে যুবলীগ নেতা সিজু মিয়াকে গ্রেফতার করতে গেলে তিনি পালিয়ে যান।

স্থানীয়দের কাছ থেকে জানা যায়, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে রোববার রাতে উপজেলার মুন্সিবাজার ইউনিয়নের মসুদরাজার বাড়ি থেকে যুবলীগ নেতা সিজুকে আটক করতে অভিযান চালায় রাজনগর থানা পুলিশ। এ সময় যুবলীগ নেতা সিজুকে আটকের খবর পেয়ে নেতাকর্মীরা এগিয়ে এলে পুলিশের সঙ্গে ধস্তাধস্তি শুরু হয়। একপর্যায়ে নেতাকর্মীরা পুলিশের কাছ থেকে সিজুকে নিয়ে পালিয়ে যায়।

স্থানীয় একটি দায়িত্বশীল সূত্র বলছে, পুলিশ রাজনগর উপজেলা যুবলীগের সহ-সভাপতি সিজু মিয়াকে গ্রেফতার করলে তার নেতাকর্মীরা এসে তাকে ছুটিয়ে নিয়ে যায়। এ সময় তার হাতে হাতকড়া লাগানো ছিল। পরে পুলিশ বিভিন্ন মাধ্যম ব্যবহার করে রাত ৩টার দিকে হাতকড়া উদ্ধার করে।

মুন্সিবাজার ইউপি চেয়ারম্যান ছালেক মিয়া বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখি আসামি পালিয়ে গেছে এবং পুলিশ বাড়িতে ঢোকায় নারীরা চিৎকার করছেন।

এ বিষয়ে জানতে রাজনগর উপজেলা যুবলীগের সহ-সভাপতি সিজু মিয়ার ব্যক্তিগত মোবাইল ফোনে একাধিকবার ফোন দিলেও সেটি বন্ধ পাওয়া যায়।

রাজনগর থানার ওসি মোহাম্মদ নজরুল ইসলাম বলেন, যুবলীগ নেতা সিজু মিয়াকে গ্রেফতার করতে গেলে তিনি পালিয়ে যান। তবে ধস্তাধস্তির ঘটনা ঘটেনি।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন