হামলাকারীদের খুব দ্রুত আইনের আওতায় আনা হবে
jugantor
হামলাকারীদের খুব দ্রুত আইনের আওতায় আনা হবে

  গাজীপুর প্রতিনিধি  

২০ অক্টোবর ২০২১, ০১:২০:৪০  |  অনলাইন সংস্করণ

মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক। ছবি: যুগান্তর


মুক্তিযুদ্ধ বিষয়মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক এমপি বলেছেন, কুমিল্লায় মন্দিরে হামলার ব্যাপারে যারা জড়িত তার তদন্ত হচ্ছে। কিছু লোক ধরা পড়েছে। আমরা আশা করছি ঘটনায় দায়ী ব্যক্তিরা অচিরেই আইনের আওতায় আসবে।

মঙ্গলবার বিকালে গাজীপুর জেলা শহরের সার্কিট হাউজ সংলগ্ন কালেক্টরেট হাইস্কুলের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন অনুষ্ঠানে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী এসব কথা বলেন।

মুক্তিযোদ্ধা মন্ত্রী বলেন, দেশ যখনই এগিয়ে যায় তখন দেশের অগ্রযাত্রাকে বাধাগ্রস্ত করার জন্য বিশেষ একটি শ্রেণি বিভিন্ন ষড়যন্ত্রে মেতে ওঠে। যারা আমাদের স্বাধীনতাকে মেনে নিতে পারেনি এবং প্রত্যক্ষভাবে স্বাধীনতার বিরোধীতা করেছে সেই অপশক্তিরা এ দেশে বিশৃংখলা সৃষ্টি করে দেশকে পাকিস্তানের মতো অকার্যকর রাষ্ট্রে পরিণত করার জন্য বিভিন্ন সময়ে ষড়যন্ত্র করে যাচ্ছে। তাদের কাছেই জাতি জানতে পারবে কারা বিভিন্ন মন্দিরে হামলার মদদ দাতা, প্রশ্রয়দাতা ও ইন্দনদাতা। প্রকৃত দোষীরা অচিরেই চিহ্নিত হবে।

ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী মো. জাহিদ আহসান রাসেল। গাজীপুরে শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের অব্যবস্থাপনার বিষয়ে প্রতিমন্ত্রী বলেন, এ হাসপাতালে চিকিৎসক, নার্স , জনবল ও অবকাঠামোর সঙ্কট রয়েছে। এ সঙ্কট কাটিয়ে উঠতে পারলে অচিরেই জনগণ একটি পুর্ণাঙ্গ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সেবা পাবে।

অনুষ্ঠানে গাজীপুর সিটি করপোরেশনের মেয়র মো. জাহাঙ্গীর আলম, জেলা প্রশাসক এস.এম তরিকুল ইসলাম, গাজীপুর জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা জামিল আহমদ, গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের উপ-পুলিশ কমিশনার (উত্তর) মো. জাকির হাসান, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মামুন সরদার, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) অঞ্জন কুমার সরকার প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

হামলাকারীদের খুব দ্রুত আইনের আওতায় আনা হবে

 গাজীপুর প্রতিনিধি 
২০ অক্টোবর ২০২১, ০১:২০ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ
মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক। ছবি: যুগান্তর
মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক। ছবি: যুগান্তর


মুক্তিযুদ্ধ বিষয়মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক এমপি বলেছেন, কুমিল্লায় মন্দিরে হামলার ব্যাপারে যারা জড়িত তার তদন্ত হচ্ছে। কিছু লোক ধরা পড়েছে। আমরা আশা করছি ঘটনায় দায়ী ব্যক্তিরা অচিরেই আইনের আওতায় আসবে।

মঙ্গলবার বিকালে গাজীপুর জেলা শহরের সার্কিট হাউজ সংলগ্ন কালেক্টরেট হাইস্কুলের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন অনুষ্ঠানে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী এসব কথা বলেন।

মুক্তিযোদ্ধা মন্ত্রী বলেন, দেশ যখনই এগিয়ে যায় তখন দেশের অগ্রযাত্রাকে বাধাগ্রস্ত করার জন্য বিশেষ একটি শ্রেণি বিভিন্ন ষড়যন্ত্রে মেতে ওঠে। যারা আমাদের স্বাধীনতাকে মেনে নিতে পারেনি এবং প্রত্যক্ষভাবে স্বাধীনতার বিরোধীতা করেছে সেই অপশক্তিরা এ দেশে বিশৃংখলা সৃষ্টি করে দেশকে পাকিস্তানের মতো অকার্যকর রাষ্ট্রে পরিণত করার জন্য বিভিন্ন সময়ে ষড়যন্ত্র করে যাচ্ছে। তাদের কাছেই জাতি জানতে পারবে কারা বিভিন্ন মন্দিরে হামলার মদদ দাতা, প্রশ্রয়দাতা ও ইন্দনদাতা। প্রকৃত দোষীরা অচিরেই চিহ্নিত হবে।

ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী মো. জাহিদ আহসান রাসেল। গাজীপুরে শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের অব্যবস্থাপনার বিষয়ে প্রতিমন্ত্রী বলেন, এ হাসপাতালে চিকিৎসক, নার্স , জনবল ও অবকাঠামোর সঙ্কট রয়েছে। এ সঙ্কট কাটিয়ে উঠতে পারলে অচিরেই জনগণ একটি পুর্ণাঙ্গ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সেবা পাবে।

অনুষ্ঠানে গাজীপুর সিটি করপোরেশনের মেয়র মো. জাহাঙ্গীর আলম, জেলা প্রশাসক এস.এম তরিকুল ইসলাম, গাজীপুর জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা জামিল আহমদ, গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের উপ-পুলিশ কমিশনার (উত্তর) মো. জাকির হাসান, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মামুন সরদার, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) অঞ্জন কুমার সরকার প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন