কাদের মির্জার রাজনৈতিক মৃত্যু হয়েছে
jugantor
কাদের মির্জার রাজনৈতিক মৃত্যু হয়েছে

  যুগান্তর প্রতিবেদক  

২১ অক্টোবর ২০২১, ২০:২৬:২৩  |  অনলাইন সংস্করণ

নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা খিজির হায়াত খান বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আবদুল কাদের মির্জাকে উদ্দেশ করে বলেন, কাদের মির্জার রাজনৈতিক মৃত্যু হয়েছে। এখন থেকে কোম্পানীগঞ্জের রাজনীতিতে তিনি আর জীবিত নেই।

বুধবার সন্ধ্যায় কারামুক্ত কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক ও মুছাপুর ইউপি চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম চৌধুরী শাহীনের সংবর্ধনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

মুছাপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মাহফুজুল হক চৌধুরীর সভাপতিত্বে ও ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক কামরুল হাসানের সঞ্চালনায় এতে বক্তব্য রাখেন- সদ্য কারামুক্ত সংবর্ধিত মুছাপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান ও উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলাম চৌধুরী শাহীন, কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান ও উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আরজুমান পারভীন রুনু, কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা ওলামা লীগ নেতা ও রংমালা দারুস সুন্নাহ সিনিয়র মডেল মাদ্রাসার প্রিন্সিপাল আবদুল্ল্যাহ আল মামুন, সেতুমন্ত্রীর ভাগনে ও রামপুর ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি সিরাজিস সালেকীন রিমন প্রমুখ।

মুক্তিযোদ্ধা খিজির হায়াত বলেন, আমরা কোম্পানীগঞ্জবাসী জননেতা ওবায়দুল কাদেরের নেতৃত্বে ঐক্যবদ্ধ আছি। আসন্ন ইউপি নির্বাচনে কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগ কেন্দ্রে যাদের নাম প্রস্তাব করবে, ওবায়দুল কাদের, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ এবং দলীয় সভানেত্রী শেখ হাসিনা তাদের হাতেই নৌকা প্রতীক তুলে দেবেন। আজকের পরেও যদি কাদের মির্জার শিক্ষা না হয়, তাকে কীভাবে শিক্ষা দিতে হয়, তা আমাদের জানা আছে।

এ সময় কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা কারামুক্ত চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম শাহীন চৌধুরীকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানায়। কারামুক্ত হয়ে আসার পথে এ নেতাকে কবিরহাট উপজেলার শেষপ্রান্ত, কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার প্রবেশমুখ থেকে বিশাল মোটরসাইকেল শোভাযাত্রাসহকারে সংবর্ধনাস্থলে নিয়ে আসেন বিপুলসংখ্যক নেতাকর্মী।

প্রসঙ্গত, বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আব্দুল কাদের মির্জার প্রতিপক্ষ সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান বাদল অনুসারী নজরুল ইসলাম চৌধুরী শাহীন চেয়ারম্যানকে গত ৮ সেপ্টেম্বর গভীর রাতে উপজেলার মুছাপুর ইউনিয়নের নিজ বাড়ি থেকে গ্রেফতার করে জেলা গোয়োন্দা পুলিশ (ডিবি)। ৪১ দিন কারাভোগের পর তিনি নোয়াখালী জেলা কারাগার থেকে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় জামিনে মুক্তি পান।

কাদের মির্জার রাজনৈতিক মৃত্যু হয়েছে

 যুগান্তর প্রতিবেদক 
২১ অক্টোবর ২০২১, ০৮:২৬ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা খিজির হায়াত খান বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আবদুল কাদের মির্জাকে উদ্দেশ করে বলেন, কাদের মির্জার রাজনৈতিক মৃত্যু হয়েছে। এখন থেকে কোম্পানীগঞ্জের রাজনীতিতে তিনি আর জীবিত নেই। 

বুধবার সন্ধ্যায় কারামুক্ত কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক ও মুছাপুর ইউপি চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম চৌধুরী শাহীনের সংবর্ধনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

মুছাপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মাহফুজুল হক চৌধুরীর সভাপতিত্বে ও ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক কামরুল হাসানের সঞ্চালনায় এতে বক্তব্য রাখেন- সদ্য কারামুক্ত সংবর্ধিত মুছাপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান ও উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলাম চৌধুরী শাহীন, কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান ও উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আরজুমান পারভীন রুনু, কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা ওলামা লীগ নেতা ও রংমালা দারুস সুন্নাহ সিনিয়র মডেল মাদ্রাসার প্রিন্সিপাল আবদুল্ল্যাহ আল মামুন, সেতুমন্ত্রীর ভাগনে ও রামপুর ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি সিরাজিস সালেকীন রিমন প্রমুখ।

মুক্তিযোদ্ধা খিজির হায়াত বলেন, আমরা কোম্পানীগঞ্জবাসী জননেতা ওবায়দুল কাদেরের নেতৃত্বে ঐক্যবদ্ধ আছি। আসন্ন ইউপি নির্বাচনে কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগ কেন্দ্রে যাদের নাম প্রস্তাব করবে, ওবায়দুল কাদের, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ এবং দলীয় সভানেত্রী শেখ হাসিনা তাদের হাতেই নৌকা প্রতীক তুলে দেবেন। আজকের পরেও যদি কাদের মির্জার শিক্ষা না হয়, তাকে কীভাবে শিক্ষা দিতে হয়, তা আমাদের জানা আছে।

এ সময় কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা কারামুক্ত চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম শাহীন চৌধুরীকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানায়। কারামুক্ত হয়ে আসার পথে এ নেতাকে কবিরহাট উপজেলার শেষপ্রান্ত, কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার প্রবেশমুখ থেকে বিশাল মোটরসাইকেল শোভাযাত্রাসহকারে সংবর্ধনাস্থলে নিয়ে আসেন বিপুলসংখ্যক নেতাকর্মী।

প্রসঙ্গত, বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আব্দুল কাদের মির্জার প্রতিপক্ষ সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান বাদল অনুসারী নজরুল ইসলাম চৌধুরী শাহীন চেয়ারম্যানকে গত ৮ সেপ্টেম্বর গভীর রাতে উপজেলার মুছাপুর ইউনিয়নের নিজ বাড়ি থেকে গ্রেফতার করে জেলা গোয়োন্দা পুলিশ (ডিবি)। ৪১ দিন কারাভোগের পর তিনি নোয়াখালী জেলা কারাগার থেকে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় জামিনে মুক্তি পান।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন