হাসপাতালে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রকে পেটাল আনসার সদস্যরা
jugantor
হাসপাতালে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রকে পেটাল আনসার সদস্যরা

  ময়মনসিংহ ব্যুরো  

২১ অক্টোবর ২০২১, ২২:১৫:১০  |  অনলাইন সংস্করণ

ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বহির্বিভাগে চিকিৎসা নিতে এসে আনসার সদস্যদের বেধড়ক মারধরের শিকার হয়েছেন জাতীয় কবি কাজী নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ের এক শিক্ষার্থী।

বৃহস্পতিবার দুপুরে এ ঘটনা প্রকাশ পেলে বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের মাঝে ক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ে। একপর্যায়ে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়ক অবরোধ করতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের আশ্বাসে ক্যাম্পাসে ফিরে যান শিক্ষার্থীরা এবং জড়িতদের বিচারের দাবি করেন নির্যাতিত শিক্ষার্থী ও সহপাঠীরা।

এদিকে এ ঘটনায় জড়িত দুই আনসার সদস্যকে তাৎক্ষণিক প্রত্যাহারের পাশাপাশি তদন্ত কমিটি গঠন করেছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

নির্যাতনের শিকার শিক্ষার্থী ঐশ্বর্য সরকার ও প্রত্যক্ষদর্শী শিক্ষার্থীরা জানান, জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ফোকলোর বিভাগের ২য় বর্ষের শিক্ষার্থী ঐশ্বর্য সরকার তীব্র মাথা ব্যথা নিয়ে বৃহস্পতিবার দুপুরে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বহির্বিভাগে চিকিৎসা নিতে আসেন।

এ সময় টিকিট সংগ্রহের জন্য লাইনে দাঁড়ানো নিয়ে এক ব্যক্তির সাথে ওই শিক্ষার্থীর বাকবিতণ্ডা হয়। পরে উপস্থিত আনসার সদস্যদের সহযোগিতা চাইলে উল্টো আনসার সদস্যরাও তার সঙ্গে বাকবিতণ্ডায় জড়িয়ে পড়ে। একপর্যায়ে তাকে টেনেহিঁচড়ে নিয়ে বেধড়ক মারধর করে আনসার সদস্যরা। এ সময় উপর্যুপরি কিলঘুষি দিয়ে মাটিতে ফেলে বন্দুকের বাট দিয়ে বুকে-পিঠে পিটিয়ে জখম করে এবং চিকিৎসাসেবা না দিয়ে একঘণ্টা আনসার অফিসে আটকে রাখে।

জাতীয় কবি কাজি নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী প্রক্টর মো. আসাদুজ্জামান নিউটন জানান, এ ঘটনায় জড়িত আনসার সদস্যদের চাকরিচ্যুত, সুষ্ঠু বিচারসহ তিন দফা দাবি জানিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টরিয়াল বডির সদস্যরা।

ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের উপপরিচালক ওয়ায়েজ উদ্দিন ফরাজি সাংবাদিকদের জানান, টিকিট সংগ্রহ নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীর সঙ্গে অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা ঘটেছে। অভিযুক্ত দুই আনসার সদস্যকে প্রত্যাহারের পাশাপাশি একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

হাসপাতালে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রকে পেটাল আনসার সদস্যরা

 ময়মনসিংহ ব্যুরো 
২১ অক্টোবর ২০২১, ১০:১৫ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বহির্বিভাগে চিকিৎসা নিতে এসে আনসার সদস্যদের বেধড়ক মারধরের শিকার হয়েছেন জাতীয় কবি কাজী নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ের এক শিক্ষার্থী। 

বৃহস্পতিবার দুপুরে এ ঘটনা প্রকাশ পেলে বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের মাঝে ক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ে। একপর্যায়ে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়ক অবরোধ করতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের আশ্বাসে ক্যাম্পাসে ফিরে যান শিক্ষার্থীরা এবং জড়িতদের বিচারের দাবি করেন নির্যাতিত শিক্ষার্থী ও সহপাঠীরা। 

এদিকে এ ঘটনায় জড়িত দুই আনসার সদস্যকে তাৎক্ষণিক প্রত্যাহারের পাশাপাশি তদন্ত কমিটি গঠন করেছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। 

নির্যাতনের শিকার শিক্ষার্থী ঐশ্বর্য সরকার ও প্রত্যক্ষদর্শী শিক্ষার্থীরা জানান, জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ফোকলোর বিভাগের ২য় বর্ষের শিক্ষার্থী ঐশ্বর্য সরকার তীব্র মাথা ব্যথা নিয়ে বৃহস্পতিবার দুপুরে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বহির্বিভাগে চিকিৎসা নিতে আসেন। 

এ সময় টিকিট সংগ্রহের জন্য লাইনে দাঁড়ানো নিয়ে এক ব্যক্তির সাথে ওই শিক্ষার্থীর বাকবিতণ্ডা হয়। পরে উপস্থিত আনসার সদস্যদের সহযোগিতা চাইলে উল্টো আনসার সদস্যরাও তার সঙ্গে বাকবিতণ্ডায় জড়িয়ে পড়ে। একপর্যায়ে তাকে টেনেহিঁচড়ে নিয়ে বেধড়ক মারধর করে আনসার সদস্যরা। এ সময় উপর্যুপরি কিলঘুষি দিয়ে মাটিতে ফেলে বন্দুকের বাট দিয়ে বুকে-পিঠে পিটিয়ে জখম করে এবং চিকিৎসাসেবা না দিয়ে একঘণ্টা আনসার অফিসে আটকে রাখে। 

জাতীয় কবি কাজি নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী প্রক্টর মো. আসাদুজ্জামান নিউটন জানান, এ ঘটনায় জড়িত আনসার সদস্যদের চাকরিচ্যুত, সুষ্ঠু বিচারসহ তিন দফা দাবি জানিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টরিয়াল বডির সদস্যরা।

ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের উপপরিচালক ওয়ায়েজ উদ্দিন ফরাজি সাংবাদিকদের জানান, টিকিট সংগ্রহ নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীর সঙ্গে অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা ঘটেছে। অভিযুক্ত দুই আনসার সদস্যকে প্রত্যাহারের পাশাপাশি একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন