পীরগঞ্জের মাঝিপাড়ায় আর ভয় নেই: ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী
jugantor
পীরগঞ্জের মাঝিপাড়ায় আর ভয় নেই: ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী

  রংপুর ব্যুরো ও পীরগঞ্জ প্রতনিধি  

২৩ অক্টোবর ২০২১, ২০:৫৩:২৭  |  অনলাইন সংস্করণ

বাড়ি ফিরছেন নারীরা

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. এনামুর রহমান বলেছেন, পীরগঞ্জের মাঝিপাড়ায় এখন আতঙ্ক নেই, কোনো ভয় নেই। সবাই বাড়ি ফিরেছেন। নতুন করে ঘুরে দাঁড়ানোর প্রস্তুতি নিচ্ছেন।

শনিবার দুপুরে রংপুরের পীরগঞ্জ উপজেলার রামনাথপুর ইউনিয়নের ক্ষতিগ্রস্ত বড় করিমপুর কসবা মাঝিপাড়া গ্রাম পরিদর্শন শেষে স্থানীয় বটেরহাট আরডিএস দাখিল মাদ্রাসা মাঠে জেলা প্রশাসন আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে প্রতিমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী বলেন, নতুন টিনে নতুন ঘর তৈরির কাজ শেষ। সবার মুখে হাসি ফিরেছে। তারা সবাই স্বাভাবিক জীবনে ফিরেছেন। এ সময় তিনি জানান, সাম্প্রদায়িক সহিংসতার ঘটনায় অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) রংপুরকে আহ্বায়ক করে তিন সদস্যবিশিষ্ট কমিটি গঠন করা হয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী বলেন, সরকারি ও বেসরকারি নানা সংগঠনের সহযোগিতা ও ভালোবাসায় ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলো এখন স্বাভাবিক জীবনে ফিরে এসেছে। তাদের মাঝে স্বস্তি ফিরেছে।

মন্ত্রী পরিসংখ্যান তুলে ধরে বলেন, এ পর্যন্ত ক্ষতিগ্রস্ত ৬৬ পরিবারের মাঝে প্রায় ৬৫ লাখ টাকাসহ খাদ্য ও বস্ত্র সহযোগিতা করা হয়েছে। অগ্নিসংযোগের ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্ত ১৪টি ঘর নির্মাণ এবং ৪০টি ঘর মেরামত করা হয়েছে। ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারদের মাঝে সরকারের পক্ষ থেকে ১৬৬টি শাড়ি, ২৬৬টি লুঙ্গি, ১৬৬টি কম্বল, ৪০০ শুকনা খাবার প্যাকেট, ২৫ প্যাকেট গোখাদ্য, ৪০ প্যাকেট শিশু খাদ্য, ১০০ বান্ডিল টিন এবং নগদ ২৫ লাখ ৮০ হাজার টাকা বিতরণ করা হয়েছে।

এদিকে জেলা প্রশাসনের প্রত্যক্ষ তত্ত্বাবধানে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের মাঝে বেসরকারি সংস্থা রেড ক্রিসেন্ট, বিদ্যানন্দ ফাউন্ডেশন, আরডিআরএসের পক্ষ থেকে মোট ৩৪ লাখ ৩৫ হাজার টাকা ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারদের মধ্যে বিতরণ করা হয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, ঘটনার পর ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পরিদর্শন করেছেন জাতীয় সংসদের স্পিকার ও রংপুর-৬ (পীরগঞ্জ) আসনের সংসদ সদস্য শিরীন শারমিন চৌধুরী, তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী হাছান মাহমুদ, ধর্ম মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী ফরিদুল হক খান এবং শনিবার দুর্যোগ ও ত্রাণ মত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী এনামুর রহমান নিজে ঘটনাস্থল পরিদর্শনে আসেন। তিনি জানান, প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ রয়েছে প্রতিটি পরিবারের গৃহনির্মাণ ও নিরাপত্তা নিশ্চিত না করে তিনি যেন থেকে ঢাকায় ফিরে না যান।

সংবাদ সম্মেলনে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের সচিব মোহাম্মদ মোহসীন, রংপুরের জেলা প্রশাসক আসিব আহসান, জেলা পুলিশ সুপার বিপ্লব কুমার সরকার, পীরগঞ্জ পৌরসভার মেয়র ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক তানজিমুল ইসলাম শামীম, উপজেলা নির্বাহী অফিসার বিরোদা রাণী রায়, ওসি সরেষ চন্দ্র, রংপুর জেলা পরিষদের সদস্য পারভীন আক্তার, রামনাথপুর ইউপি চেয়ারম্যান সাদেকুল ইসলামসহ আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সংগঠনের নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

পীরগঞ্জের মাঝিপাড়ায় আর ভয় নেই: ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী

 রংপুর ব্যুরো ও পীরগঞ্জ প্রতনিধি 
২৩ অক্টোবর ২০২১, ০৮:৫৩ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
বাড়ি ফিরছেন নারীরা
বাড়ি ফিরছেন নারীরা। ছবি: যুগান্তর

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. এনামুর রহমান বলেছেন, পীরগঞ্জের মাঝিপাড়ায় এখন আতঙ্ক নেই, কোনো ভয় নেই। সবাই বাড়ি ফিরেছেন। নতুন করে ঘুরে দাঁড়ানোর প্রস্তুতি নিচ্ছেন।

শনিবার দুপুরে রংপুরের পীরগঞ্জ উপজেলার রামনাথপুর ইউনিয়নের ক্ষতিগ্রস্ত বড় করিমপুর কসবা মাঝিপাড়া গ্রাম পরিদর্শন শেষে স্থানীয় বটেরহাট আরডিএস দাখিল মাদ্রাসা মাঠে জেলা প্রশাসন আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে প্রতিমন্ত্রী এসব কথা বলেন। 

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী বলেন, নতুন টিনে নতুন ঘর তৈরির কাজ শেষ। সবার মুখে হাসি ফিরেছে। তারা সবাই স্বাভাবিক জীবনে ফিরেছেন। এ সময় তিনি জানান, সাম্প্রদায়িক সহিংসতার ঘটনায় অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) রংপুরকে আহ্বায়ক করে তিন সদস্যবিশিষ্ট কমিটি গঠন করা হয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী বলেন, সরকারি ও বেসরকারি নানা সংগঠনের সহযোগিতা ও ভালোবাসায় ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলো এখন স্বাভাবিক জীবনে ফিরে এসেছে। তাদের মাঝে স্বস্তি ফিরেছে। 

মন্ত্রী পরিসংখ্যান তুলে ধরে বলেন, এ পর্যন্ত ক্ষতিগ্রস্ত ৬৬ পরিবারের মাঝে প্রায় ৬৫ লাখ টাকাসহ খাদ্য ও বস্ত্র সহযোগিতা করা হয়েছে। অগ্নিসংযোগের ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্ত ১৪টি ঘর নির্মাণ এবং ৪০টি ঘর মেরামত করা হয়েছে। ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারদের মাঝে সরকারের পক্ষ থেকে ১৬৬টি শাড়ি, ২৬৬টি লুঙ্গি, ১৬৬টি কম্বল, ৪০০ শুকনা খাবার প্যাকেট, ২৫ প্যাকেট গোখাদ্য, ৪০ প্যাকেট শিশু খাদ্য, ১০০ বান্ডিল টিন এবং নগদ ২৫ লাখ ৮০ হাজার টাকা বিতরণ করা হয়েছে।

এদিকে জেলা প্রশাসনের প্রত্যক্ষ তত্ত্বাবধানে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের মাঝে বেসরকারি সংস্থা রেড ক্রিসেন্ট, বিদ্যানন্দ ফাউন্ডেশন, আরডিআরএসের পক্ষ থেকে মোট ৩৪ লাখ ৩৫ হাজার টাকা ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারদের মধ্যে বিতরণ করা হয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, ঘটনার পর ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পরিদর্শন করেছেন জাতীয় সংসদের স্পিকার ও রংপুর-৬ (পীরগঞ্জ) আসনের সংসদ সদস্য শিরীন শারমিন চৌধুরী, তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী হাছান মাহমুদ, ধর্ম মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী ফরিদুল হক খান এবং শনিবার দুর্যোগ ও ত্রাণ মত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী এনামুর রহমান নিজে ঘটনাস্থল পরিদর্শনে আসেন। তিনি জানান, প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ রয়েছে প্রতিটি পরিবারের গৃহনির্মাণ ও নিরাপত্তা নিশ্চিত না করে তিনি যেন থেকে ঢাকায় ফিরে না যান।

সংবাদ সম্মেলনে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের সচিব মোহাম্মদ মোহসীন, রংপুরের জেলা প্রশাসক আসিব আহসান, জেলা পুলিশ সুপার বিপ্লব কুমার সরকার, পীরগঞ্জ পৌরসভার মেয়র ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক তানজিমুল ইসলাম শামীম, উপজেলা নির্বাহী অফিসার বিরোদা রাণী রায়, ওসি সরেষ চন্দ্র, রংপুর জেলা পরিষদের সদস্য পারভীন আক্তার, রামনাথপুর ইউপি চেয়ারম্যান সাদেকুল ইসলামসহ আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সংগঠনের নেতারা উপস্থিত ছিলেন। 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন