মৃত্যুর পরও কবরের জায়গা হলো না স্বামীর বাড়িতে, অতঃপর...
jugantor
মৃত্যুর পরও কবরের জায়গা হলো না স্বামীর বাড়িতে, অতঃপর...

  আগৈলঝাড়া (বরিশাল) প্রতিনিধি  

২৪ অক্টোবর ২০২১, ২৩:৫৫:০৯  |  অনলাইন সংস্করণ

মৃত্যুর পরও স্বামীর বাড়িতে কবরের জায়গাটুকু না হওয়ায় স্থানীয় এক ব্যক্তির জায়গায় স্থানীয় স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের উদ্যোগে অবশেষে শনিবার রাতে দাফন করা হয়েছে পানিতে ডুবে মৃত্যুবরণ করা নও মুসলিম গৃহবধূ স্বপ্না বেগমকে। স্বপ্নার শিশুকন্যা বর্তমানে তার বাবারবাড়িতে রয়েছে।

উপজেলার ফুল­শ্রী গ্রামের বাকাল ইউনিয়নের সাবেক সদস্য ও ব্যবসায়ী আসাদ খলিফার সম্মতিতে তার মালিকানাধীন জায়গায় আগৈলঝাড়ার স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ইয়ং স্টার ক্লাবের সদস্যদের উদ্যোগে শনিবার রাতে জানাজা শেষে দাফন সম্পন্ন করা হয়েছে নও মুসলিম স্বপ্না বেগমের লাশ।

এর আগে শুক্রবার সকালে ভাড়া বাড়ির পুকুরে কাজ করতে গিয়ে পানিতে ডুবে মারা যান এক সন্তানের জননী স্বপ্না বেগম।

থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মাজহারুল ইসলাম জানান, উপজেলার আস্কর গ্রামের সুভাষ বিশ্বাসের মেয়ে স্বপ্না গত ৭-৮ বছর আগে নিজ ধর্ম ত্যাগ করে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করে গৌরনদী উপজেলার শরিকল গ্রামের শাহজিরা গ্রামের রিপন ব্যাপারীকে বিয়ে করে। আগৈলঝাড়া থানা সংলগ্ন কুয়াতিয়ারপাড় গ্রামের শাহ আলম হাওলাদারের ভাড়া বাসায় সন্তান নিয়ে বসবাস করতেন স্বপ্না বেগম। স্বামী তেমন খোঁজ-খবর নিতেন না।

প্রতিবেশীরা জানিয়েছেন, স্বপ্নার মৃগী রোগ ছিল। স্বপ্নার মৃত্যুর পরে তার স্বামী রিপনের সঙ্গে পুলিশ ফোনে কথা বললেও পরে ওই নম্বরটি বন্ধ করে রাখেন তিনি।

মৃত্যুর পরও কবরের জায়গা হলো না স্বামীর বাড়িতে, অতঃপর...

 আগৈলঝাড়া (বরিশাল) প্রতিনিধি 
২৪ অক্টোবর ২০২১, ১১:৫৫ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

মৃত্যুর পরও স্বামীর বাড়িতে কবরের জায়গাটুকু না হওয়ায় স্থানীয় এক ব্যক্তির জায়গায় স্থানীয় স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের উদ্যোগে অবশেষে শনিবার রাতে দাফন করা হয়েছে পানিতে ডুবে মৃত্যুবরণ করা নও মুসলিম গৃহবধূ স্বপ্না বেগমকে। স্বপ্নার শিশুকন্যা বর্তমানে তার বাবারবাড়িতে রয়েছে।

উপজেলার ফুল­শ্রী গ্রামের বাকাল ইউনিয়নের সাবেক সদস্য ও ব্যবসায়ী আসাদ খলিফার সম্মতিতে তার মালিকানাধীন জায়গায় আগৈলঝাড়ার স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ইয়ং স্টার ক্লাবের সদস্যদের উদ্যোগে শনিবার রাতে জানাজা শেষে দাফন সম্পন্ন করা হয়েছে নও মুসলিম স্বপ্না বেগমের লাশ।

এর আগে শুক্রবার সকালে ভাড়া বাড়ির পুকুরে কাজ করতে গিয়ে পানিতে ডুবে মারা যান এক সন্তানের জননী স্বপ্না বেগম।

থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মাজহারুল ইসলাম জানান, উপজেলার আস্কর গ্রামের সুভাষ বিশ্বাসের মেয়ে স্বপ্না গত ৭-৮ বছর আগে নিজ ধর্ম ত্যাগ করে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করে গৌরনদী উপজেলার শরিকল গ্রামের শাহজিরা গ্রামের রিপন ব্যাপারীকে বিয়ে করে। আগৈলঝাড়া থানা সংলগ্ন কুয়াতিয়ারপাড় গ্রামের শাহ আলম হাওলাদারের ভাড়া বাসায় সন্তান নিয়ে বসবাস করতেন স্বপ্না বেগম। স্বামী তেমন খোঁজ-খবর নিতেন না।

প্রতিবেশীরা জানিয়েছেন, স্বপ্নার মৃগী রোগ ছিল। স্বপ্নার মৃত্যুর পরে তার স্বামী রিপনের সঙ্গে পুলিশ ফোনে কথা বললেও পরে ওই নম্বরটি বন্ধ করে রাখেন তিনি।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন