বাড়িতে মিলল জলময়ূরসহ ২০১ পাখি
jugantor
বাড়িতে মিলল জলময়ূরসহ ২০১ পাখি

  রাজশাহী ব্যুরো  

২৫ অক্টোবর ২০২১, ০০:০৬:৫৯  |  অনলাইন সংস্করণ

রাজশাহীতে বন বিভাগের কর্মকর্তারা অভিযান চালিয়ে দুই ব্যক্তির কথিত খামার থেকে জলময়ূর, বেগুনি কালেম, পাতি সরালিসহ ২০১টি পাখি উদ্ধার করেছেন। শনিবার বিকাল থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত জেলার দুর্গাপুর উপজেলার নারিকেলবাড়িয়া গ্রামে অভিযান চালিয়ে গাজিয়ার রহমান ও জাহিদুল ইসলামের বাড়ি থেকে পাখিগুলো উদ্ধার করা হয়।

বন বিভাগের কর্মকর্তারা গাজিয়ার রহমানকে ২০ হাজার এবং জাহিদুল ইসলামকে ২৫ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন। পাখিগুলোর মধ্যে ২টি জলময়ূর, ১৯২টি বেগুনি কালেম, ৬টি পাতি সরালি ও ১টি ধলা বুক ডাহুক রয়েছে।

রাজশাহী বন বিভাগের বন্যপ্রাণী ব্যবস্থাপনা ও প্রকৃতি সংরক্ষণ বিভাগের বন্যপ্রাণী পরিদর্শক মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর কবীর বলেন, গাজিয়ার ও জাহিদুল নিজেদের খামারি পরিচয় দিয়ে ফেসবুকে পাখি নিয়ে প্রচার চালাচ্ছিলেন। ফেসবুকের এই পোস্ট দেখে তিনি বন বিভাগের বন্যপ্রাণী ও প্রকৃতি সংরক্ষক রাহাত হোসেন ও দুজন বন্যপ্রাণী স্কাউটকে নিয়ে অভিযান চালান। পাখিগুলো উদ্ধারের পর রাতেই রাজশাহী বন্যপ্রাণী উদ্ধার ও সংরক্ষণ কেন্দ্রে নিয়ে আসা হয়। এর মধ্যে কিছু পাখি অসুস্থ। সংরক্ষণ কেন্দ্রে তাদের চিকিৎসা ও পরিচর্যা করা হচ্ছে। সম্পূর্ণ সুস্থ হলে তাদের প্রকৃতিতে অবমুক্ত করা হবে বলে জানান এ কর্মকর্তা।

বাড়িতে মিলল জলময়ূরসহ ২০১ পাখি

 রাজশাহী ব্যুরো 
২৫ অক্টোবর ২০২১, ১২:০৬ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

রাজশাহীতে বন বিভাগের কর্মকর্তারা অভিযান চালিয়ে দুই ব্যক্তির কথিত খামার থেকে জলময়ূর, বেগুনি কালেম, পাতি সরালিসহ ২০১টি পাখি উদ্ধার করেছেন। শনিবার বিকাল থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত জেলার দুর্গাপুর উপজেলার নারিকেলবাড়িয়া গ্রামে অভিযান চালিয়ে গাজিয়ার রহমান ও জাহিদুল ইসলামের বাড়ি থেকে পাখিগুলো উদ্ধার করা হয়।

বন বিভাগের কর্মকর্তারা গাজিয়ার রহমানকে ২০ হাজার এবং জাহিদুল ইসলামকে ২৫ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন। পাখিগুলোর মধ্যে ২টি জলময়ূর, ১৯২টি বেগুনি কালেম, ৬টি পাতি সরালি ও ১টি ধলা বুক ডাহুক রয়েছে।

রাজশাহী বন বিভাগের বন্যপ্রাণী ব্যবস্থাপনা ও প্রকৃতি সংরক্ষণ বিভাগের বন্যপ্রাণী পরিদর্শক মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর কবীর বলেন, গাজিয়ার ও জাহিদুল নিজেদের খামারি পরিচয় দিয়ে ফেসবুকে পাখি নিয়ে প্রচার চালাচ্ছিলেন। ফেসবুকের এই পোস্ট দেখে তিনি বন বিভাগের বন্যপ্রাণী ও প্রকৃতি সংরক্ষক রাহাত হোসেন ও দুজন বন্যপ্রাণী স্কাউটকে নিয়ে অভিযান চালান। পাখিগুলো উদ্ধারের পর রাতেই রাজশাহী বন্যপ্রাণী উদ্ধার ও সংরক্ষণ কেন্দ্রে নিয়ে আসা হয়। এর মধ্যে কিছু পাখি অসুস্থ। সংরক্ষণ কেন্দ্রে তাদের চিকিৎসা ও পরিচর্যা করা হচ্ছে। সম্পূর্ণ সুস্থ হলে তাদের প্রকৃতিতে অবমুক্ত করা হবে বলে জানান এ কর্মকর্তা।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন