পীরগঞ্জের ঘটনায় শিবিরের দুই কর্মী গ্রেফতার
jugantor
পীরগঞ্জের ঘটনায় শিবিরের দুই কর্মী গ্রেফতার

  রংপুর ব্যুরো  

২৫ অক্টোবর ২০২১, ১৯:২২:৩১  |  অনলাইন সংস্করণ

রংপুরের পীরগঞ্জে সাম্প্রদায়িক সহিংসতার ঘটনায় জড়িত অভিযোগে আরও দুজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গ্রেফতাররা হলেন- আবদুল্লাহ আল মামুন (২৩) ও ওমর ফারুক টনেট (২৪)।

সোমবার দুপুরে বিষয়টি নিশ্চিত করেন রংপুর জেলা পুলিশ সুপার বিপ্লব কুমার সরকার। এর আগে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে রোববার রাতে ওই দুজনকে তাদের গ্রামের বাড়ি গাইবান্ধার সাদুল্লাপুর থেকে গ্রেফতার করা হয়।

পুলিশ সুপার আরও জানান, গ্রেফতারকৃত আবদুল্লাহ আল মামুন ও ওমর ফারুক জামায়াত-শিবিরের কর্মী। ঘটনার রাতে তারা পেট্রল নিয়ে মোটরসাইকেলে করে সাদুল্যাপুর থেকে পীরগঞ্জে এসে হামলায় অংশ নেন। তাদের রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করলে ঘটনার বিষয়ে আরও গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পাওয়া যেতে পারে। এজন্য তাদেরকে আদালতে তোলা হবে।

এদিকে পীরগঞ্জ থানা পুলিশের ওসি সরেস চন্দ্র জানান, বড় করিমপুর মাঝিপাড়া গ্রামে সংঘটিত সহিংসতার ঘটনায় চারটি মামলা হয়েছে। ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে করা তিনটি মামলা এবং হামলা, ভাঙচুর, অগ্নিসংযোগ ও লুটের ঘটনায় আরেকটি মামলা। এসব মামলায় এখন পর্যন্ত ৬৬ জন গ্রেফতার হয়েছেন।

এদের মধ্যে ফেসবুকে আপত্তিকর পোস্ট দেওয়া ও সহিংসতার ঘটনা উসকে দেওয়ার অন্যতম হোতা পরিতোষ সরকার, উজ্জ্বল হোসেন, বহিষ্কৃত ছাত্রলীগ নেতা সৈকত মণ্ডল ও মসজিদের ইমাম রবিউল ইসলামসহ অনেকেই রয়েছেন। তারা আদালতে দেওয়া স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিতে নিজেদের জড়িত থাকার দায় স্বেচ্ছায় স্বীকার করেছেন।

পীরগঞ্জের ঘটনায় শিবিরের দুই কর্মী গ্রেফতার

 রংপুর ব্যুরো 
২৫ অক্টোবর ২০২১, ০৭:২২ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

রংপুরের পীরগঞ্জে সাম্প্রদায়িক সহিংসতার ঘটনায় জড়িত অভিযোগে আরও দুজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গ্রেফতাররা হলেন- আবদুল্লাহ আল মামুন (২৩) ও ওমর ফারুক টনেট (২৪)।

সোমবার দুপুরে বিষয়টি নিশ্চিত করেন রংপুর জেলা পুলিশ সুপার বিপ্লব কুমার সরকার। এর আগে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে রোববার রাতে ওই দুজনকে তাদের গ্রামের বাড়ি গাইবান্ধার সাদুল্লাপুর থেকে গ্রেফতার করা হয়।

পুলিশ সুপার আরও জানান, গ্রেফতারকৃত আবদুল্লাহ আল মামুন ও ওমর ফারুক জামায়াত-শিবিরের কর্মী। ঘটনার রাতে তারা পেট্রল নিয়ে মোটরসাইকেলে করে সাদুল্যাপুর থেকে পীরগঞ্জে এসে হামলায় অংশ নেন। তাদের রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করলে ঘটনার বিষয়ে আরও গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পাওয়া যেতে পারে। এজন্য তাদেরকে আদালতে তোলা হবে।

এদিকে পীরগঞ্জ থানা পুলিশের ওসি সরেস চন্দ্র জানান, বড় করিমপুর মাঝিপাড়া গ্রামে সংঘটিত সহিংসতার ঘটনায় চারটি মামলা হয়েছে। ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে করা তিনটি মামলা এবং হামলা, ভাঙচুর, অগ্নিসংযোগ ও লুটের ঘটনায় আরেকটি মামলা। এসব মামলায় এখন পর্যন্ত ৬৬ জন গ্রেফতার হয়েছেন।

এদের মধ্যে ফেসবুকে আপত্তিকর পোস্ট দেওয়া ও সহিংসতার ঘটনা উসকে দেওয়ার অন্যতম হোতা পরিতোষ সরকার, উজ্জ্বল হোসেন, বহিষ্কৃত ছাত্রলীগ নেতা সৈকত মণ্ডল ও মসজিদের ইমাম রবিউল ইসলামসহ অনেকেই রয়েছেন। তারা আদালতে দেওয়া স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিতে নিজেদের জড়িত থাকার দায় স্বেচ্ছায় স্বীকার করেছেন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন