হিজড়াকে শ্বাসরোধ করে হত্যা
jugantor
হিজড়াকে শ্বাসরোধ করে হত্যা

  আশুলিয়া (ঢাকা) প্রতিনিধি  

২৫ অক্টোবর ২০২১, ২০:২৯:১৪  |  অনলাইন সংস্করণ

ঢাকার আশুলিয়ায় বাদল নামে এক হিজড়াকে শ্বাসরোধে হত্যার হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। রোববার দিবাগত রাতে আশুলিয়ার এনায়েতপুর এলাকার আবু বকরের বাড়িতে এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে।

নিহতের নাম বাদল (৪০)। তিনি ঢাকার ধামরাই থানার কুশুরা এলাকার বাসিন্দা।

বাড়ির মালিক আবু বকর সিদ্দিক বলেন, ঢাকা ইপিজেডে চাকরি শেষে রাত ৮টার দিকে বাসায় এসে গোসল করে খেয়ে টিভি দেখছিলাম। রাত ১০টার দিকে তার ভাড়া বাসার সামনে লোক জনের চিৎকার শুনে সেখানে গিয়ে দেখন বাদলের লাশ পরে আছে। পরে আশুলিয়া থানা পুলিশকে খবর দেন তিনি। পুলিশ এসে বাদলের লাশ থানায় নিয়ে যায়।

আবু বকর আরও জানান, যে কক্ষে বাদলের লাশ পাওয়া গেছে ওই কক্ষের ভাড়াটিয়া হলো মোর্শেদ নামের এক লোক। মোর্শেদের কাছ থেকে চাবি নিয়ে বাদল ও তার বন্ধু ওই কক্ষে প্রবেশ করেন। ধারণা করা হচ্ছে বাদলকে তার বন্ধুই হত্যা করে পালিয়েছে।

এ বিষয়ে আশুলিয়া থানার এসআই ইউনুস বলেন, লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। হত্যাকারীকে এখনও চিহ্নিত করা যায়নি। পুলিশ এ ব্যাপারে তদন্ত অব্যাহত রেখেছে।

হিজড়াকে শ্বাসরোধ করে হত্যা

 আশুলিয়া (ঢাকা) প্রতিনিধি 
২৫ অক্টোবর ২০২১, ০৮:২৯ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ঢাকার আশুলিয়ায় বাদল নামে এক হিজড়াকে শ্বাসরোধে  হত্যার হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। রোববার দিবাগত রাতে আশুলিয়ার এনায়েতপুর এলাকার আবু বকরের বাড়িতে এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে।

নিহতের নাম বাদল (৪০)। তিনি ঢাকার ধামরাই থানার কুশুরা এলাকার বাসিন্দা। 

বাড়ির মালিক আবু বকর সিদ্দিক বলেন, ঢাকা ইপিজেডে চাকরি শেষে রাত ৮টার দিকে বাসায় এসে গোসল করে খেয়ে টিভি দেখছিলাম। রাত ১০টার দিকে তার ভাড়া বাসার সামনে লোক জনের চিৎকার শুনে সেখানে গিয়ে দেখন বাদলের লাশ পরে আছে। পরে আশুলিয়া থানা পুলিশকে খবর দেন তিনি। পুলিশ এসে বাদলের লাশ থানায় নিয়ে যায়।

আবু বকর আরও জানান, যে কক্ষে বাদলের লাশ পাওয়া গেছে ওই  কক্ষের ভাড়াটিয়া হলো মোর্শেদ নামের এক লোক। মোর্শেদের কাছ থেকে চাবি নিয়ে বাদল ও তার বন্ধু ওই কক্ষে প্রবেশ করেন। ধারণা করা হচ্ছে বাদলকে তার বন্ধুই হত্যা করে পালিয়েছে।

এ বিষয়ে আশুলিয়া থানার এসআই ইউনুস বলেন, লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। হত্যাকারীকে এখনও চিহ্নিত করা যায়নি। পুলিশ এ ব্যাপারে তদন্ত অব্যাহত রেখেছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন