বাবার সঙ্গে অভিমান করে মেয়ের আত্মহত্যা
jugantor
বাবার সঙ্গে অভিমান করে মেয়ের আত্মহত্যা

  লোহাগাড়া (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি  

২৫ অক্টোবর ২০২১, ২২:২৩:২৬  |  অনলাইন সংস্করণ

চট্টগ্রামের লোহাগাড়া উপজেলার পদুয়ায় পিতার সঙ্গে অভিমান করে ফাতেমা আক্তার রিয়া (১৩) নামে এক স্কুলছাত্রী আত্মহত্যা করেছে। সোমবার সকালে বসতঘরে নিজ শয়নকক্ষ থেকে তার ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করা হয়।

ফাতেমা আক্তার রিয়া ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ডের জঙ্গল পদুয়া হোসেন সিকদার পাড়ার হাসান আলী সিকদারের কন্যা ও উত্তর পদুয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের সপ্তম শ্রেণির ছাত্রী।

নিহতের স্বজন ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, নিহত রিয়া তিন দিন পূর্বে এক প্রতিবেশী থেকে টাকা ধার নিয়ে ফেরিওয়ালার কাছ থেকে নতুন কাপড় কিনে। রোববার রাতে তার পিতা বাড়িতে আসলে ধার করে নতুন কাপড় কেনার বিষয়টি জানায়। ধারের টাকা ফেরত দেয়ার জন্য পিতার কাছ থেকে টাকা চায় সে। কয়েকদিন পর ধার করা টাকা ফেরত দিবে বলে মেয়েকে আশ্বাস দেন পিতা। কিন্তু কাপড় কেনার টাকা দিতে দেরি হওয়ায় পিতার সঙ্গে অভিমান করে আত্মহত্যা করে সে।

নিহতের ভাই মো. রায়হান জানান, প্রতিদিনের ন্যায় তার বোন রাতের খাবার খেয়ে নিজ কক্ষে ঘুমাতে যায়। সকালে ঘুম থেকে উঠতে দেরি হওয়ায় ডাকাডাকি করেন। কোনো সাড়া না পাওয়ায় দরজা ভেঙ্গে ভেতরে গিয়ে দেখতে পান লোহার রডের সঙ্গে ওড়না পেঁচিয়ে গলায় ফাঁস লাগানো এবং লাশ ঝুলন্ত অবস্থায় রয়েছে। খবর পেয়ে আশপাশের লোকজন এগিয়ে আসেন। পরে থানা পুলিশকে খবর দেয়া হয়।

লোহাগাড়া থানার ওসি জাকের হোসাইন মাহমুদ জানান, খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে স্কুলছাত্রীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করে। পরে লাশ সুরতহাল লিপিবদ্ধ করা হয়। তবে আত্মহত্যার ব্যাপারে কারো কোনো অভিযোগ না থাকায় লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

বাবার সঙ্গে অভিমান করে মেয়ের আত্মহত্যা

 লোহাগাড়া (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি 
২৫ অক্টোবর ২০২১, ১০:২৩ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

চট্টগ্রামের লোহাগাড়া উপজেলার পদুয়ায় পিতার সঙ্গে অভিমান করে ফাতেমা আক্তার রিয়া (১৩) নামে এক স্কুলছাত্রী আত্মহত্যা করেছে। সোমবার সকালে বসতঘরে নিজ শয়নকক্ষ থেকে তার ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করা হয়।

ফাতেমা আক্তার রিয়া ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ডের জঙ্গল পদুয়া হোসেন সিকদার পাড়ার হাসান আলী সিকদারের কন্যা ও উত্তর পদুয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের সপ্তম শ্রেণির ছাত্রী।

নিহতের স্বজন ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, নিহত রিয়া তিন দিন পূর্বে এক প্রতিবেশী থেকে টাকা ধার নিয়ে ফেরিওয়ালার কাছ থেকে নতুন কাপড় কিনে। রোববার রাতে তার পিতা বাড়িতে আসলে ধার করে নতুন কাপড় কেনার বিষয়টি জানায়। ধারের টাকা ফেরত দেয়ার জন্য পিতার কাছ থেকে টাকা চায় সে। কয়েকদিন পর ধার করা টাকা ফেরত দিবে বলে মেয়েকে আশ্বাস দেন পিতা। কিন্তু কাপড় কেনার টাকা দিতে দেরি হওয়ায় পিতার সঙ্গে অভিমান করে আত্মহত্যা করে সে।

নিহতের ভাই মো. রায়হান জানান, প্রতিদিনের ন্যায় তার বোন রাতের খাবার খেয়ে নিজ কক্ষে ঘুমাতে যায়। সকালে ঘুম থেকে উঠতে দেরি হওয়ায় ডাকাডাকি করেন। কোনো সাড়া না পাওয়ায় দরজা ভেঙ্গে ভেতরে গিয়ে দেখতে পান লোহার রডের সঙ্গে ওড়না পেঁচিয়ে গলায় ফাঁস লাগানো এবং লাশ ঝুলন্ত অবস্থায় রয়েছে। খবর পেয়ে আশপাশের লোকজন এগিয়ে আসেন। পরে থানা পুলিশকে খবর দেয়া হয়।

লোহাগাড়া থানার ওসি জাকের হোসাইন মাহমুদ জানান, খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে স্কুলছাত্রীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করে। পরে লাশ সুরতহাল লিপিবদ্ধ করা হয়। তবে আত্মহত্যার ব্যাপারে কারো কোনো অভিযোগ না থাকায় লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন