প্রেমের কারণে নিজ ঘরে গলায় ফাঁস দিলেন মাদ্রাসাছাত্র
jugantor
প্রেমের কারণে নিজ ঘরে গলায় ফাঁস দিলেন মাদ্রাসাছাত্র

  আখাউড়া (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) প্রতিনিধি  

২৬ অক্টোবর ২০২১, ১৫:১২:০২  |  অনলাইন সংস্করণ

গলায় ফাঁস

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়ায় প্রেমঘটিত কারণে গলায় ফাঁস দিয়ে এক মাদ্রাসাছাত্র আত্মহত্যা করেছেন। নিহত ছাত্রের নাম বরকত উল্লাহ সুজন (২০)।

মঙ্গলবার সকালে উপজেলার মনিয়ন্দ ইউনিয়নের বড় লৌহঘর বসতভিটার নিজ কক্ষ থেকে পুলিশ ওই ছাত্রের লাশ উদ্ধার করে।

নিহত সুজন ওই গ্রামের ইমাম হোসেনের ছেলে। তিনি স্থানীয় টনকী মাদ্রাসার প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী ছিলেন।

আখাউড়া থানার এসআই মো. জাকির হোসেন যুগান্তরকে জানান, সুজনের বাবা-মা চিকিৎসার কাজে ঢাকায় অবস্থান করছেন। সোমবার দিবাগত রাতের কোনো একসময় তার শয়নকক্ষের ফ্যানের হুকের সঙ্গে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেন সুজন।

মঙ্গলবার সকালে বাড়ির লোকজন জানালা দিয়ে ঝুলন্ত লাশ দেখতে পেয়ে পুলিশকে খবর দেয়।

তবে ওই পুলিশ কর্মকর্তার ধারণা, প্রেমঘটিত কোনো কারণে সুজন আত্মহত্যা করে থাকতে পারে। তার ব্যবহৃত মোবাইল ফোন তল্লাশি করে কারণ উদ্ঘাটনে চেষ্টা করছে বলে ওই পুলিশ কর্মকর্তা জানিয়েছেন।

আখাউড়া থানার ওসি মিজানুর রহমান বলেন, মৃতদেহ ময়নাতদন্তের জন্য ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

প্রেমের কারণে নিজ ঘরে গলায় ফাঁস দিলেন মাদ্রাসাছাত্র

 আখাউড়া (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) প্রতিনিধি 
২৬ অক্টোবর ২০২১, ০৩:১২ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
গলায় ফাঁস
ফাইল ছবি

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়ায় প্রেমঘটিত কারণে গলায় ফাঁস দিয়ে এক মাদ্রাসাছাত্র আত্মহত্যা করেছেন। নিহত ছাত্রের নাম বরকত উল্লাহ সুজন (২০)।

মঙ্গলবার সকালে উপজেলার মনিয়ন্দ ইউনিয়নের বড় লৌহঘর বসতভিটার নিজ কক্ষ থেকে পুলিশ ওই ছাত্রের লাশ উদ্ধার করে।

নিহত সুজন ওই গ্রামের ইমাম হোসেনের ছেলে। তিনি স্থানীয় টনকী মাদ্রাসার প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী ছিলেন। 

আখাউড়া থানার এসআই মো. জাকির হোসেন যুগান্তরকে জানান, সুজনের বাবা-মা চিকিৎসার কাজে ঢাকায় অবস্থান করছেন। সোমবার দিবাগত রাতের কোনো একসময় তার শয়নকক্ষের ফ্যানের হুকের সঙ্গে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেন সুজন। 

মঙ্গলবার সকালে বাড়ির লোকজন জানালা দিয়ে ঝুলন্ত লাশ দেখতে পেয়ে পুলিশকে খবর দেয়।

তবে ওই পুলিশ কর্মকর্তার ধারণা, প্রেমঘটিত কোনো কারণে সুজন আত্মহত্যা করে থাকতে পারে। তার ব্যবহৃত মোবাইল ফোন তল্লাশি করে কারণ উদ্ঘাটনে চেষ্টা করছে বলে ওই পুলিশ কর্মকর্তা জানিয়েছেন। 

আখাউড়া থানার ওসি মিজানুর রহমান বলেন, মৃতদেহ ময়নাতদন্তের জন্য ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন