থানার জানালার গ্রিল ভেঙে পালাল আসামি
jugantor
থানার জানালার গ্রিল ভেঙে পালাল আসামি

  পার্বতীপুর (দিনাজপুর) প্রতিনিধি  

২৬ অক্টোবর ২০২১, ২১:৫৪:১২  |  অনলাইন সংস্করণ

দিনদুপুরে পার্বতীপুর মডেল থানা হাজতের জানালার গ্রিল ভেঙে পালিয়েছে ওয়ারেন্টের এক আসামি। ঘটনাটি ঘটেছে মঙ্গলবার সকালে।

এ ঘটনায় দায়িত্বে অবহেলার কারণে ডিউটি অফিসার কেবিএম শাহারিয়ার ও পুলিশ কনস্টেবল সাবিনা ইয়াছমিনকে তাৎক্ষণিক দিনাজপুর পুলিশ লাইনে ক্লোজ করা হয়েছে।

ঘটনাটি জানাজানি হলে দিনাজপুর জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) মমিনুল করিম ও অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ফুলবাড়ী সার্কেল আসাদুজ্জামান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

পার্বতীপুর উপজেলার বড়পুকুরিয়া কয়লা খনি পুলিশ তদন্ত কেন্দ্র সূত্রে জানা যায়, একটি ওয়ারেন্টভুক্ত মামলার আসামি মোকারুল ইসলামকে (৩২) রাত ১২টার দিকে উপজেলার হাবড়া ইউনিয়নের ভবানীপুর এলাকা থেকে গ্রেফতার করা হয়। পরে রাতেই আসামি মোকারুল ইসলামকে পার্বতীপুর মডেল থানায় হস্তান্তর করা হয়। মঙ্গলবার বেলা পৌনে ১১টার দিকে পুলিশের চোখ ফাঁকি দিয়ে হাজতখানার জানালার তিনটি গ্রিল ভেঙে কৌশলে পালিয়ে যায় আসামি।

পার্বতীপুর মডেল থানার ওসি মো. ইমাম জাফর জানান, থানা হাজতে ছিল আসামি। পুলিশের অগোচরে হাজতখানার পাশের দরজার তালা ভেঙে স্টোর রুমে প্রবেশ করে। পরে স্টোর রুমের গ্রিল কেটে পালিয়ে যায়। তাকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার পার্বতীপুর-ফুলবাড়ী সার্কেল আসাদুজ্জামান বলেন, এ ঘটনায় পুলিশের দায়িত্বে অবহেলার কারণে পুলিশের উপ-সহকারী পরিদর্শক কেবিএম শাহরিয়ার ও কনস্টেবল সাবিনা ইয়াছমিনকে দিনাজপুর পুলিশ লাইনে ক্লোজ করা হয়েছে।

থানার জানালার গ্রিল ভেঙে পালাল আসামি

 পার্বতীপুর (দিনাজপুর) প্রতিনিধি 
২৬ অক্টোবর ২০২১, ০৯:৫৪ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

দিনদুপুরে পার্বতীপুর মডেল থানা হাজতের জানালার গ্রিল ভেঙে পালিয়েছে ওয়ারেন্টের এক আসামি। ঘটনাটি ঘটেছে মঙ্গলবার সকালে।

এ ঘটনায় দায়িত্বে অবহেলার কারণে ডিউটি অফিসার কেবিএম শাহারিয়ার ও পুলিশ কনস্টেবল সাবিনা ইয়াছমিনকে তাৎক্ষণিক দিনাজপুর পুলিশ লাইনে ক্লোজ করা হয়েছে।

ঘটনাটি জানাজানি হলে দিনাজপুর জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) মমিনুল করিম ও অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ফুলবাড়ী সার্কেল আসাদুজ্জামান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

পার্বতীপুর উপজেলার বড়পুকুরিয়া কয়লা খনি পুলিশ তদন্ত কেন্দ্র সূত্রে জানা যায়, একটি ওয়ারেন্টভুক্ত মামলার আসামি মোকারুল ইসলামকে (৩২) রাত ১২টার দিকে উপজেলার হাবড়া ইউনিয়নের ভবানীপুর এলাকা থেকে গ্রেফতার করা হয়। পরে রাতেই আসামি মোকারুল ইসলামকে পার্বতীপুর মডেল থানায় হস্তান্তর করা হয়। মঙ্গলবার বেলা পৌনে ১১টার দিকে পুলিশের চোখ ফাঁকি দিয়ে হাজতখানার জানালার তিনটি গ্রিল ভেঙে কৌশলে পালিয়ে যায় আসামি।

পার্বতীপুর মডেল থানার ওসি মো. ইমাম জাফর জানান, থানা হাজতে ছিল আসামি। পুলিশের অগোচরে হাজতখানার পাশের দরজার তালা ভেঙে স্টোর রুমে প্রবেশ করে। পরে স্টোর রুমের গ্রিল কেটে পালিয়ে যায়। তাকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার পার্বতীপুর-ফুলবাড়ী সার্কেল আসাদুজ্জামান বলেন, এ ঘটনায় পুলিশের দায়িত্বে অবহেলার কারণে পুলিশের উপ-সহকারী পরিদর্শক কেবিএম শাহরিয়ার ও কনস্টেবল সাবিনা ইয়াছমিনকে দিনাজপুর পুলিশ লাইনে ক্লোজ করা হয়েছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন