মোবাইলে ম্যাসেজ দেওয়াকে কেন্দ্র করে দুই যুবককে তুলে নিয়ে মারধর
jugantor
মোবাইলে ম্যাসেজ দেওয়াকে কেন্দ্র করে দুই যুবককে তুলে নিয়ে মারধর

  গৌরনদী (বরিশাল) প্রতিনিধি  

২৬ অক্টোবর ২০২১, ২২:২৫:১১  |  অনলাইন সংস্করণ

মারধর,

বরিশালের গৌরনদীতে মোবাইল ফোনে ম্যাসেজ দেওয়ার ঘটনাকে কেন্দ্র করে দুই যুবককে তুলে নিয়ে পিটিয়ে গুরুতর আহত করার অভিযোগ উঠেছে। আহতরা হলেন- উপজেলার জংগলপট্টি গ্রামের গোপীনাথ দাসের পুত্র পল্লব দাস (২৬) ও একই গ্রামের বাদল চন্দ্র ষোমের পুত্র অনয় ঘোষ (২৫)।

সোমবার রাতে উপজেলার বিল্বগ্রাম এলাকার ঘুল্লিরপাড় নামক স্থানে এ ঘটনা ঘটে।

গুরুতর আহত অবস্থায় ওই দুই যুবককে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। এ ঘটনায় থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন আহত পল্লব দাস ও অনয় জানান, হাপানিয়া গ্রামের সোহেল হাওলাদার শানুর মোবাইল ফোনে কে বা কারা দীর্ঘদিন থেকে ম্যাসেজ প্রদান ও ফোন করে বিরক্ত করে আসছিল। এ ঘটনায় তাদের (আহতদের) দায়ী করে আসছিল শানু।

এ ঘটনার জেরধরে শানু ও তার সহযোগীরা সোমবার রাতে বিল্বগ্রাম এলাকার থেকে পল্লব ও তাকে জোরপূর্বক মোটরসাইকেলে তুলে বিল্বগ্রাম এলাকার ঘুল্লিরপাড় নামক স্থানে নিয়ে যায়। সেখানে বসে তাদের বেধড়ক পিটিয়ে আহত করে ফেলে রাখা হয়। স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন।

তবে মারধরের বিষয়টি অস্বীকার করেছেন অভিযুক্ত সোহেল হাওলাদার শানু।

এ বিষয়ে গৌরনদী থানার ওসি আফজাল হোসেন লিখিত অভিযোগ পাওয়ার কথা জানিয়ে বলেন, তদন্তসাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

মোবাইলে ম্যাসেজ দেওয়াকে কেন্দ্র করে দুই যুবককে তুলে নিয়ে মারধর

 গৌরনদী (বরিশাল) প্রতিনিধি 
২৬ অক্টোবর ২০২১, ১০:২৫ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
মারধর,
মারধরে আহত পল্লব দাস ও অনয় ঘোষ

বরিশালের গৌরনদীতে মোবাইল ফোনে ম্যাসেজ দেওয়ার ঘটনাকে কেন্দ্র করে দুই যুবককে তুলে নিয়ে পিটিয়ে গুরুতর আহত করার অভিযোগ উঠেছে। আহতরা হলেন- উপজেলার জংগলপট্টি গ্রামের গোপীনাথ দাসের পুত্র পল্লব দাস (২৬) ও একই গ্রামের বাদল চন্দ্র ষোমের পুত্র অনয় ঘোষ (২৫)।

সোমবার রাতে উপজেলার বিল্বগ্রাম এলাকার ঘুল্লিরপাড় নামক স্থানে এ ঘটনা ঘটে। 

গুরুতর আহত অবস্থায় ওই দুই যুবককে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। এ ঘটনায় থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন আহত পল্লব দাস ও অনয় জানান, হাপানিয়া গ্রামের সোহেল হাওলাদার শানুর মোবাইল ফোনে কে বা কারা দীর্ঘদিন থেকে ম্যাসেজ প্রদান ও ফোন করে বিরক্ত করে আসছিল। এ ঘটনায় তাদের (আহতদের) দায়ী করে আসছিল শানু।

এ ঘটনার জেরধরে শানু ও তার সহযোগীরা সোমবার রাতে বিল্বগ্রাম এলাকার থেকে পল্লব ও তাকে জোরপূর্বক মোটরসাইকেলে তুলে বিল্বগ্রাম এলাকার ঘুল্লিরপাড় নামক স্থানে নিয়ে যায়। সেখানে বসে তাদের বেধড়ক পিটিয়ে  আহত করে ফেলে রাখা হয়। স্থানীয়রা  আহতদের উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন।

তবে মারধরের বিষয়টি অস্বীকার করেছেন অভিযুক্ত সোহেল হাওলাদার শানু। 

এ বিষয়ে গৌরনদী থানার ওসি আফজাল হোসেন লিখিত অভিযোগ পাওয়ার কথা জানিয়ে বলেন, তদন্তসাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন