দুর্গম চরে আ.লীগের ২ গ্রুপের সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধসহ আহত ১০
jugantor
দুর্গম চরে আ.লীগের ২ গ্রুপের সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধসহ আহত ১০

  নরসিংদী প্রতিনিধি  

২৬ অক্টোবর ২০২১, ২২:৩৬:৩১  |  অনলাইন সংস্করণ

নরসিংদীর দুর্গম চরাঞ্চল আলোকবাড়িতে আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে ৫ জন গুলিবিদ্ধসহ ১০ জন আহত হয়েছেন। মঙ্গলবার বিকাল সাড়ে ৩টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

আহতরা হলো বর্তমান চেয়ারম্যান দেলোয়ার হোসেন দীপু সমর্থক শাহ আলম (৪৫) ও স্বতন্ত্র প্রার্থী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আসাদউল্লাহ সমর্থক কাইয়ূম মিয়া (৩০)। তারা দুইজনই সদর হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়ে বাড়ি চলে গেছেন। গুলিবিদ্ধ ৫ জনকে বিভিন্ন হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে।

পুলিশ জানিয়েছে, আগামী ইউপি নির্বাচনে সদর উপজেলার দুর্গম চরাঞ্চল আলোকবারী ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী ছিলেন বর্তমান চেয়ারম্যান দেলোয়ার হোসেন দীপু। একই সঙ্গে মনোনয়ন প্রত্যাশী ছিলেন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের অ্যাডভোকেট আসাদউল্লাহ। এতে দলীয় মনোনয়ন পান বর্তমান চেয়ারম্যান দেলোয়ার হোসেন দীপু। এ নিয়ে আওয়ামী লীগের দুইপক্ষের মধ্যে উত্তেজনা চলছিল।

এরই মধ্যে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন জমা দেন অ্যাডভোকেট আসাদউল্লাহ। সর্বশেষ দলীয় চাপে মঙ্গলবার দুপুর ৩টার দিকে বর্তমান চেয়ারম্যান দেলোয়ার হোসেন দীপুকে সমর্থন জানিয়ে মনোনয়ন প্রত্যাহার করে নেন আসাদুল্লাহ। এতে আসাদউল্লাহ সমর্থকদের মধ্যে হতাশা বিরাজ করছিল।

অন্যদিকে মনোনয়ন প্রত্যাহারের খবরে দীপুর সমর্থকরা এলাকায় আনন্দ মিছিল বের করেন। এ সময় দীপু সমর্থকদের সঙ্গে আসাদুল্লা সমর্থকদের কথাকাটাকাটি হয়। এ সময় উভয়পক্ষ সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন। সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধ হয়ে উভয়পক্ষের ৫ জন গুলিবিদ্ধসহ কমপক্ষে ১০ জন আহত হন। পরে স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে হাসপাতালে প্রেরণ করেন।

এ ব্যাপারে এক পক্ষের নেতা বর্তমান চেয়ারম্যান দেলোয়ার হোসেন দীপু বলেন, ১৫ দিন আগে সালাউদ্দিন নামে আমার এক সমর্থককে একা পেয়ে আসাদউল্লার সমর্থকরা তাকে হাতুড়ি দিয়ে বেধড়ক পিটিয়ে আহত করে। সে বর্তমানে ঢাকা মেডিকেলে চিকিৎসাধীন রয়েছে।এ ঘটনায় থানায় মামলা করলে তারা গ্রাম ছেড়ে পালিয়ে যায়। আজকে আসাদুল্লাহ মনোনয়ন প্রত্যাহারের পর তার সমর্থকরা গ্রামে ফিরে এসে আমার সমর্থকদের ওপর অতর্কিত হামলা করে। এতে আমার ৭ জনের মতো আহত হয়েছেন।

অপরপক্ষের নেতা আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী ও ইউনিয়ন সাধারণ সম্পাদক আসাদউল্লাহ বলেছেন, আমার সঙ্গে দীপু চেয়ারম্যানের কোনো বিরোধ নেই। আমি দীপু চেয়ারম্যানকে সমর্থন জানিয়ে মনোনয়ন প্রত্যাহার করে নিয়েছি। মারামারি ও সংঘর্ষের ঘটনা তাদের ব্যক্তিগত। জমিজমা নিয়ে দীপু সর্মথকদের সঙ্গে শুক্কুরালী নামে গ্রামের আরেক জনের মারামারি হয়েছিল। সে ঘটনার জের পুনরায় আজকে সংঘর্ষ হয়েছে। এতে আমার কোনো সম্পৃক্ততা নেই।

নরসিংদী অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) সাহেব আলী পাঠান বলেন, ইউপি নির্বাচন নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে গণ্ডগোল হয়েছে। ঘটনাস্থলে পুলিশ পৌঁছেছে। কতজন আহত হয়েছেন এখনো তা নিশ্চিত করে বলা যাচ্ছে না। তবে পুলিশ গিয়ে এলাকার পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে এনেছে। বর্তমানে পরিবেশ শান্ত রয়েছে।

দুর্গম চরে আ.লীগের ২ গ্রুপের সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধসহ আহত ১০

 নরসিংদী প্রতিনিধি 
২৬ অক্টোবর ২০২১, ১০:৩৬ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

নরসিংদীর দুর্গম চরাঞ্চল আলোকবাড়িতে আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে ৫ জন গুলিবিদ্ধসহ ১০ জন আহত হয়েছেন। মঙ্গলবার বিকাল সাড়ে ৩টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

আহতরা হলো বর্তমান চেয়ারম্যান দেলোয়ার হোসেন দীপু সমর্থক শাহ আলম (৪৫) ও স্বতন্ত্র প্রার্থী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আসাদউল্লাহ সমর্থক কাইয়ূম মিয়া (৩০)। তারা দুইজনই সদর হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়ে বাড়ি চলে গেছেন। গুলিবিদ্ধ ৫ জনকে বিভিন্ন হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে।

পুলিশ জানিয়েছে, আগামী ইউপি নির্বাচনে সদর উপজেলার দুর্গম চরাঞ্চল আলোকবারী ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী ছিলেন বর্তমান চেয়ারম্যান দেলোয়ার হোসেন দীপু। একই সঙ্গে মনোনয়ন প্রত্যাশী ছিলেন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের অ্যাডভোকেট আসাদউল্লাহ। এতে দলীয় মনোনয়ন পান বর্তমান চেয়ারম্যান দেলোয়ার হোসেন দীপু। এ নিয়ে আওয়ামী লীগের দুইপক্ষের মধ্যে উত্তেজনা চলছিল।

এরই মধ্যে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন জমা দেন অ্যাডভোকেট আসাদউল্লাহ। সর্বশেষ দলীয় চাপে মঙ্গলবার দুপুর ৩টার দিকে বর্তমান চেয়ারম্যান দেলোয়ার হোসেন দীপুকে সমর্থন জানিয়ে মনোনয়ন প্রত্যাহার করে নেন আসাদুল্লাহ। এতে আসাদউল্লাহ সমর্থকদের মধ্যে হতাশা বিরাজ করছিল।

অন্যদিকে মনোনয়ন প্রত্যাহারের খবরে দীপুর সমর্থকরা এলাকায় আনন্দ মিছিল বের করেন। এ সময় দীপু সমর্থকদের সঙ্গে আসাদুল্লা সমর্থকদের কথাকাটাকাটি হয়। এ সময় উভয়পক্ষ সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন। সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধ হয়ে উভয়পক্ষের ৫ জন গুলিবিদ্ধসহ কমপক্ষে ১০ জন আহত হন। পরে স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে হাসপাতালে প্রেরণ করেন।

এ ব্যাপারে এক পক্ষের নেতা বর্তমান চেয়ারম্যান দেলোয়ার হোসেন দীপু বলেন, ১৫ দিন আগে সালাউদ্দিন নামে আমার এক সমর্থককে একা পেয়ে আসাদউল্লার সমর্থকরা তাকে হাতুড়ি দিয়ে বেধড়ক পিটিয়ে আহত করে। সে বর্তমানে ঢাকা মেডিকেলে চিকিৎসাধীন রয়েছে।এ ঘটনায় থানায় মামলা করলে তারা গ্রাম ছেড়ে পালিয়ে যায়। আজকে আসাদুল্লাহ মনোনয়ন প্রত্যাহারের পর তার সমর্থকরা গ্রামে ফিরে এসে আমার সমর্থকদের ওপর অতর্কিত হামলা করে। এতে আমার ৭ জনের মতো আহত হয়েছেন।

অপরপক্ষের নেতা আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী ও ইউনিয়ন সাধারণ সম্পাদক আসাদউল্লাহ বলেছেন, আমার সঙ্গে দীপু চেয়ারম্যানের কোনো বিরোধ নেই। আমি দীপু চেয়ারম্যানকে সমর্থন জানিয়ে মনোনয়ন প্রত্যাহার করে নিয়েছি। মারামারি ও সংঘর্ষের ঘটনা তাদের ব্যক্তিগত। জমিজমা নিয়ে দীপু সর্মথকদের সঙ্গে শুক্কুরালী নামে গ্রামের আরেক জনের মারামারি হয়েছিল। সে ঘটনার জের পুনরায় আজকে সংঘর্ষ হয়েছে। এতে আমার কোনো সম্পৃক্ততা নেই।

নরসিংদী অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) সাহেব আলী পাঠান বলেন, ইউপি নির্বাচন নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে গণ্ডগোল হয়েছে। ঘটনাস্থলে পুলিশ পৌঁছেছে। কতজন আহত হয়েছেন এখনো তা নিশ্চিত করে বলা যাচ্ছে না। তবে পুলিশ গিয়ে এলাকার পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে এনেছে। বর্তমানে পরিবেশ শান্ত রয়েছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন