সাধারণ সভায় হামলায় আহত ছেলেসহ আইনজীবী সমিতির সভাপতি
jugantor
সাধারণ সভায় হামলায় আহত ছেলেসহ আইনজীবী সমিতির সভাপতি

  সাতক্ষীরা প্রতিনিধি  

২৭ অক্টোবর ২০২১, ২২:১৩:৫৫  |  অনলাইন সংস্করণ

সাতক্ষীরা জেলা আইনজীবী সমিতি

সাধারণ সভা চলাকালে সাতক্ষীরা জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি প্রবীণ আইনজীবী আবুল হোসেন ও তার ছেলে আরেক দল আইনজীবীর হাতে লাঞ্ছিত হয়েছেন। এ ঘটনায় তারা আহত হন। পরে পুলিশ ও অন্য আইনজীবীরা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন।

বুধবার বিকাল ৫টায় জেলা আইনজীবী সমিতির নিজস্ব মিলনায়তনে গত ৩ দিন ধরে চলমান সাধারণ সভা বসে। এতে ৩ শতাধিক আইনজীবী অংশ নেন। নানা কারণে আজও সভা শেষ করতে না পারায় পরবর্তী দিন ঘোষণার পরই এ হামলার ঘটনা ঘটে। হামলায় অ্যাডভোকেট আবুল হোসেন লাঞ্ছিত ও আহত হন। তাকে ঠেকাতে গিয়ে তার ছেলে অ্যাডভোকেট শহীদ হাসানও কিল-ঘুষি আঘাতের শিকার হন।

জেলা আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক রেজোয়ানউল্লাহ সবুজ বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, আগামী বুধবার মিটিংয়ের পরবর্তী দিন ধার্য করার পর অ্যাডভোকেট আজিবর রহমানের নেতৃত্বে অ্যাডভোকেট শাহেদ, অ্যাডভোকেট চঞ্চল, অ্যাডভোকেট জিকু এবং অ্যাডভোকেট আল আমিনসহ বেশ কয়েকজন এ হামলার ঘটনা ঘটায়।

তিনি বলেন, এ হামলার নেপথ্য কারণ সাবেক সভাপতি অ্যাডভোকেট শাহ আলম এবং বর্তমান সভাপতি অ্যাডভোকেট আবুল হোসেনের মধ্যকার বিভিন্ন প্রকারের দ্বন্দ্ব। বর্তমানে পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে বলে তিনি জানান।

সাধারণ সভায় হামলায় আহত ছেলেসহ আইনজীবী সমিতির সভাপতি

 সাতক্ষীরা প্রতিনিধি 
২৭ অক্টোবর ২০২১, ১০:১৩ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
সাতক্ষীরা জেলা আইনজীবী সমিতি
ফাইল ছবি

সাধারণ সভা চলাকালে সাতক্ষীরা জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি প্রবীণ আইনজীবী আবুল হোসেন ও তার ছেলে আরেক দল আইনজীবীর হাতে লাঞ্ছিত হয়েছেন। এ ঘটনায় তারা আহত হন। পরে পুলিশ ও অন্য আইনজীবীরা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন।

বুধবার বিকাল ৫টায় জেলা আইনজীবী সমিতির নিজস্ব মিলনায়তনে গত ৩ দিন ধরে চলমান সাধারণ সভা বসে। এতে ৩ শতাধিক আইনজীবী অংশ নেন। নানা কারণে আজও সভা শেষ করতে না পারায় পরবর্তী দিন ঘোষণার পরই এ হামলার ঘটনা ঘটে। হামলায় অ্যাডভোকেট আবুল হোসেন লাঞ্ছিত ও আহত হন। তাকে ঠেকাতে গিয়ে তার ছেলে অ্যাডভোকেট শহীদ হাসানও কিল-ঘুষি আঘাতের শিকার হন।

জেলা আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক রেজোয়ানউল্লাহ সবুজ বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, আগামী বুধবার মিটিংয়ের পরবর্তী দিন ধার্য করার পর অ্যাডভোকেট আজিবর রহমানের নেতৃত্বে অ্যাডভোকেট শাহেদ, অ্যাডভোকেট চঞ্চল, অ্যাডভোকেট জিকু এবং অ্যাডভোকেট আল আমিনসহ বেশ কয়েকজন এ হামলার ঘটনা ঘটায়।

তিনি বলেন, এ হামলার নেপথ্য কারণ সাবেক সভাপতি অ্যাডভোকেট শাহ আলম এবং বর্তমান সভাপতি অ্যাডভোকেট আবুল হোসেনের মধ্যকার বিভিন্ন প্রকারের দ্বন্দ্ব। বর্তমানে পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে বলে তিনি জানান।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন